বাংপাকি! তুই দূরে গিয়া মর!

সাইফ তাহসিন এর ছবি
লিখেছেন সাইফ তাহসিন (তারিখ: রবি, ০৭/০২/২০১০ - ১০:৫২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

শিরোনাম দেখেই মুখ কুঁচকে যাবে অনেকের, তাতে আমার ভালো লাগাটাই বাড়বে, কারন ক’দিন আগে প্রজাপতি দেশ থেকে ফিরেছে, সাথে করে নিয়ে এসেছে নানা রকমের খবর, কিছু খুবই ভালো, কিছু খুবই মজার, আর কিছু মন খারাপ করানো। বালতি বালতি ছবি তুলেছে, আর বুভুক্ষের মত দেখে যাচ্ছি সেসব ছবি আর ভিডিও, আমার ২ ভাতিজাকে দেখিনি আজ ৩ বছর হতে চলল, কিন্তু তারা এখনো আমাকে মনে রেখেছে, আর আমার স্ত্রীকে বারবার করে বলেছে আমাকে যেন এক্ষুনি নিয়ে আসে ঢাকায়। আর তাদের মা তাদের মারলেই তারা হুমকি দেয়, তারা আমার কাছে চলে আসবে, আর কখনো মার কাছে ফিরে যাবে না। আর ভাতিজিকে তো আমি চোখেই দেখিনি, খালি ছবি দেখি আর হাসফাস করি, কবে যে দেশে যাবো।

আজকের লেখার সাথে অবশ্য এসবের কোন সম্পর্ক নেই, হাতে কিছু খুব বিরক্তিকর ছবি এসেছে, আমি দেখেই আক্কেলগুড়ুম, আমাদের লজ্জা শরম কমে যাচ্ছে দিনদিন, তাই বলে এভাবে জনসম্মুখ্যে অশ্লীলভাবে পাকিদের পশ্চাতদেশ চুম্বন করব, আগে ভাবিনি। আমার মনে পড়ে না আগে এরকম জিনিষ কেউ দেখেছেন। এই পাকির বাচ্চাদের সাহস কত বেড়ে গিয়েছে ছবিতে দেখুন। ছবিটা এবারের বানিজ্যমেলার। আমাদের দেশে এসে আমাদের মাটিতে নিজেদের কেতন উড়ায় খায়েস মিটে নাই, এবারে নিজেদের পাশে আমাদের লটকায় দিল কেন, সেটাই বুঝার চেষ্টা করছি, আর সেটা দেখেও আমাদের দেশের মানুষ হা করে তাকিয়ে দেখছে আর পাকিদের স্টলে গিয়ে হামলে পড়ছে পাকিদের বানানো দ্রব্য কাপড় চোপড় কেনার জন্যে। কেউ নিজের পায়ে এভাবে কুড়াল মারে কিভাবে, এভাবে পাকিদের নিজেদের উঠানে ঢুকতে দিচ্ছি কেন আমরা? পাকিদের স্টল আগেও হয়েছে, কিতু আগে তারা এভাবে নিজেদের পাশে আমাদের পতাকা উড়িয়েছে বলে মনে পড়ছে না। নাকি দেশ বদলে গেছে, মানুষ মুক্তিযুদ্ধের চেতনা, স্বাধীনতার চেতনাকে ভুলে গিয়ে পাকিদের আবার কাছে টেনেছে।

IMG_3713
এই ছবিটা দিলাম, ঘটনা কোথায় তা বুঝানোর জন্যে।

IMG_3708
এই দুঃসাহস এরা পায় কই?

পুরানো বিষয় নিয়ে আর আগেও অনেকবার কথা হয়েছে, কিন্তু ১-২ টা তথ্য আমি সবার সাথে ভাগ করার জন্যে আবারো এই ঘটনার উল্লেখ করছি। খোমাখাতায় আমার মেডিকেলের অনেককেই আমি সেধে সেধে বন্ধু হিসাবে যোগ করি, এতে অনেকে আমাকে লুলপুরুষ ভাবতে পারেন, তাতে আমার কিছু আসে যায় না। তবে, তার ফলস্রুতিতেই এই ঘটনার সুত্রপাত। সেই ছাগল আতিফ আসলাম ঢাকায় এসেছিল কনসার্ট করতে, শেরাটন বা সোনারগাঁয়ে, ঠিক মনে নেই, সেই কনসার্টের টিকিট ছিল প্রথমে ৩৫০০ টাকা। আমি তো এই কথা শুনেই থ’। কিছু এখানেই শেষ না, পরে এই টিকিট অতি উচ্চমূল্যে বিক্রি হয়েছিল তা জানতে পেরে লজ্জায় যেন আমার মাথা কাটা গেল। ২ মেয়ের কথোপকথন হচ্ছিল খোমাখাতার দেয়ালে, একজন বলছিল কিরে, তুই কত দিয়ে কাটলি, অন্যজন জবাব দিচ্ছে, বেশি না, মাত্র ৪,০০০ টাকা। অন্যজন বলছে, ইসস! আমি কেটেছি ৪২৫০ দিয়ে, ৩য়জন এসে বলছে, ধুর! আমি তো কেটেছি ৪,৮০০ টাকা দিয়ে। এইসব বাংপাকিদের পশ্চাতদিয়ে আমার দেওয়ার জন্যে আছে শুধুই বড়ই গাছের ডাল আর বাবলা কাটা। অথচ মনে পড়ছে না আমাদের দেশী কোন আর্টিস্টের টিকিট বিক্রি করতে গেলে ১,০০০ টাকা দাম ধার্য করা যায় না, সবাই নাক কুঁচকে বলেন, ইসস! এত দাম!

এসব দেখে বিরক্ত হয়ে তাদের দেওয়ালে গিয়ে লেখলাম, তোমরা ৪০০০ এর অধিক টাকা খরচ করে একটা পাকি কুত্তার ঘেউ ঘেউ শুনতে গেলা, তোমাদের একবারো বিবেকে বাধল না? এই সব নাযায়েজ বাংপাকির দল আমাকে বলে, হেট দ্যা ওয়ার, নট দ্যা পিপল! নাযায়েজ বলার জন্যে আমার ঘাড়ে এখনি লাফিয়ে উঠবেন অনেকে, তাই তাদের জ্ঞাতার্থে বলি রাখি, নাযায়েজ বা জারজ বলতে আমরা কি বুঝাই? যে নিজের পরিচয় জানেন না, আপনার কি মনে হয় এরা নিজের পরিচয় জানে? এমনকি বাংলায় জবাব দেবার মুরোদ নেই, বিদেশে বড় হয়েছে, সেখানে মেডিকেলের ভর্তির কম্পিটিশনে পেরে উঠতে না পেরে সুরসুর করে ফিরে এসেছে বাংলাদেশে, এসে আমার দেশের মাটিকে নোংরা করছে, এতই যখন পাকি ভালো লাগে, যা না তোরা তোদের প্রিয় পাকিদের কাছে, সেখানেই গিয়ে ভর্তি হ’ আর দেখ তোদের পাকির বাচ্চারা কি দৃষ্টিতে দেখে! তাই এদের আর বাড়তে দেওয়া যায় না, আর কত সহ্য করব এইসব বাংপাকিদের? আসেন আজ থেকেই যেখানে বাংপাকি দেখব, জোর গলায় বলব, যা বাংপাকি, তুই দূরে গিয়া মর!


মন্তব্য

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

যারা নিজেদের মূল্য বোঝেনা তারা কিভাবে অন্যদের সামনে নিজেদের তুলে ধরবে সেটাই আমি বুঝিনা। বিদেশী শিল্পী আসলেই এরকম হাজার হাজার টাকা খরচ করে লোকে গান শুনতে যায়, অথচ ভালো কোন উদ্যোগে এদের অনেককেই কাছে পাওয়া যায়না।

সাইফ তাহসিন এর ছবি

খুব খারাপ লাগে এমন ঘটনা যখন দেখি

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

শাফক্বাত এর ছবি

আসলেই এইবার বাণিজ্যমেলায় গিয়ে আমারো ব্যাপারটা খুব দৃষ্টিকটু লেগেছে। একটা দুইটা স্টল না, তারা রীতিমত একটা স্কোয়ার নিয়ে ফেলেছে। আমার সামনে একজন দেশী মহিলা (তথাকথিত স্মার্ট বেশ ও ভূষণে সজ্জিতা একজন) পাকিস্তানি স্টলের মাঝখানে গিয়ে রাস্তা হারিয়ে ফেল্লো এবং এক পাকিকে "উর্দু"তে জিজ্ঞাসা করলো ভিআইপি এক্সিট কোনদিক দিয়ে। তাদের উর্দুতে বাতচিত শুনে মেয়েটাকে থাপ্পড় মারতে ইচ্ছে করছিল। তুই "আমাকে" কিংবা কোনো বাংলাদেশী কে জিগাইতি? নাইলে ঐ উর্দুওয়ালারে "বাংলায়" জিগাইতি?? আমাদের দেশে এসে ওরা কই আমাদের মত কথা বলবে, তা'না বাঙ্গালী বিদেশি দেখলেই গ'লে গ'লে পড়ে।
গরররররররররররররররররররররর !!!! আপনি আমাকে সেইদিনের রাগটা মনে করিয়ে দিলেন আবার মন খারাপ

সাইফ তাহসিন এর ছবি

বুঝলে তাইলে শ্বাফকাত, আমার এধরনের অনেক রাগ জমা হতে হতে পাহাড়ের সমান হয়ে যাচ্ছে।

তুমি করি বলছি কারন এমি আমার স্ত্রী, তবে আপত্তি থাকলে এখনই বলে ফেলো, আপনি বলতে কোন সমস্যা নেই।
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

শাফক্বাত এর ছবি

ধুর, তুমি-তে আপত্তি করার প্রশ্নই আসেনা!! এমি তো খুব লক্ষীমেয়ে, মাশাল্লাহ আপনি খুব ভাগ্যবান! আপনার বৌএর চেয়ে আপনার শালীর সাথে সখ্যতা বেশী ছিল আমার। যদিও আমি ওর শিক্ষাদানে নিযুক্ত থাকায় সে আমাকে তেমন পছন্দ করতোনা হাসি
(ওর ব্যাচমেট হওয়ার কথা আপনার, যতদূর মনে পড়ে...আমিও তো তাহলে সম্বোধনে একধাপ নামতে পারি? না কি এখানেও সচলের সিনিয়রিটির কোনও থিওরি? চোখ টিপি )
==========================================
পরদেশী বঁধু, ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।
যদি গো নিশিথ জেগে ঘুমাইয়া থাকি,
ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।।

সাইফুল আকবর খান এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

ধূগো'র আবার এইটা মিস যায় কখনও?!
না ধূগো, আপ্নে আসোলেই একটা শালীশকুন! চোখ টিপি

___________
স্বাক্ষর?!
মাঝেসাঝে বুঝতে পাই- আমি
নিরক্ষর!

___________
সবকিছু নিয়ে এখন সত্যিই বেশ ত্রিধা'য় আছি

সাইফ তাহসিন এর ছবি

হাসি, আপনে আপনে করলে কইলাম খাপ খুইলা ঝাপায় পড়ুম, তুই তুকারি বেশি ভালু হয়, তাতে ব্লগের মজাটা বাড়ে চোখ টিপি সচলে সিনিয়রিটিতে আমি বোধহয় অনেক পিছায় পড়ব, আর এখানে সবাই সমান, জুনিয়র বলে কেউ নাই এইখানে। কাজেই 'আপনে' শুনলে কইলাম কোপায়া দিমু

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

ওয়াইল্ড-স্কোপ এর ছবি

খাপ খুইলা ঝাপায় পড়ুম

সাইব্বাই, রয়েসয়ে - দিনে দুপুরে খুন / রাহাজানি প্রভোক করতাসেন - সচলে আমার মতন কচি মনের পোলাপান তো কলুষিত হইয়া যাইব চোখ টিপি

সাবিহ ওমর এর ছবি

বাণিজ্য মেলায় এরকম স্টল নতুন কিছু না আর আমিও ছাগলটার গান অল্পবিস্তর ভাল পাই খাইছে, কিন্তু পয়সা খরচ কৈরা শুনবোনা...

অফ-টপিকঃ গতদিন আপনার পোস্ট পরে উত্তেজিত হয়ে ফেসবুকে চ্রম এন্টিপাকি স্ট্যাটাস দিসি একটা...আমার বোন সেটা পরে আমার মা'কে জানাইসে, আর আমার মা গিয়ে আব্বাকে বলসে যে ছেলে আম্রিকা পৌঁছেই কোন পাকির সাথে লাফড়া বাঁধাইসে। তারপর তো ফোনে আধা ঘণ্টা ধইরা উপদেশ, ইন্টার্নেশনাল কমিউনিটিতে থাকতে হলে ইত্যাদি ইত্যাদি। কিন্তু মনে হৈল না ওরা খুব একটা ব্যাজার হৈসে হাহাহা...

সাইফ তাহসিন এর ছবি

ওরে খাইসে, এক স্টাটাসের এত জোর? ডরাইছি, আমার লেখা কারো মনে দাগ কাটে এইটাই বিশ্বাস করতে কষ্ট হয়। যাউকগা বস, সাবধানে থাইক, পাকি আর বাংপাকিগো ঠাঙ্গানির আগে একটু চিন্তা ভাবনা কইরা নিও যেন নিজে বিপদে না পর।

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

ওয়াইল্ড-স্কোপ এর ছবি

আপনার ছবিতে বাংলায় পাকিস্তান লেখা বা পতাকা দেখে মেজাজ খারাপ হয়ে গেল। তবে বাংলাদেশ পাকিস্তান বানিজ্য সম্পর্ক অনেক আগে থেকেই আছে - এতে অবাক হবার কিছু নাই। অবাক হবার বিষয় বাঙালিদের মধ্যে পাকি-হুজুগ (আতিফ আসলাম একটা উদাহরণ)। ক্রিকেট খেলার সময় ব্যক্তিগতভাবে অনেক ফ্যানাটিকই পেয়ারা খেলোয়াড় নিয়া লুলগিরি করতে পারে - "ম্যারি মি আফ্রিদি", "উভি মুই তুমহারা প্রিন্সেস" লেইখা ছ্যাবলামি করতে পারে (ঘটক পাখি ভাই কি এদের কোনো ব্যবস্থা করতে পারে নাই?) - মাগার পাকি বা ইন্ডিয়ান পতাকা লইয়া যখন তুর্কি নাচন নাচে, গালের মধ্যে আঁকে, বা ঘরের উপরে টাঙ্গায় - তখন খুব খারাপ লাগে।
auto

সাইফ তাহসিন এর ছবি

হুমম, ঠিকই বুঝতে পারছেন কি কইতে চাইছি, কিন্তু কেমনে এইটা বন্ধ করা যায়, সেইটা নিয়া কিছু বুদ্ধি বাতলান।

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

অনিন্দ্য রহমান এর ছবি

১ তারা দিল কে? এবং কেন ?
: ::: ::: ::: ::: ::: ::: ::: ::: ::: ::: ::: ::: ::: ::: ::: :
'Cinema is over' - Master Godard


রাষ্ট্রায়াত্ত শিল্পের পূর্ণ বিকাশ ঘটুক

অনার্য সঙ্গীত এর ছবি

কারো বোধহয় পাকিবিদ্বেষ ভালুলাগেনা। সাইফ ভাইয়ের লেখা হয়তো তার মর্মপীড়ার কারণ হয়েছে... চোখ টিপি

(অফটপিক: আপনি আমি দুজনেই শত্রু বাড়ালাম নিশ্চিত। এখন থেকে আপনি আমিও একতারা খাব। দেঁতো হাসি তবে উনি সামনে আসবেন না। একাত্তরের পরে উনি সেই সাহস হারিয়েছেন। চোখ টিপি )

____________________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ !

______________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ!
অক্ষর যাপন

সাইফ তাহসিন এর ছবি

ওরে পাগলারে, তুমারে বিনা কারনে কেউ ১ ভুট দিবনা, দিলে তারে গিয়া জিগামুনে কেনু দিলেন? কেনু কেনু কেনু!
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

সাইফ তাহসিন এর ছবি

মূলোদা দিয়েছেন, লেখার মানের জন্যে দিয়েছেন। আবেগ আপ্লুত ছেড়াবেড়া লেখার জন্যে।
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

কুনু বাংপাকি সচল আছে নাকি?

সাইফ তাহসিন এর ছবি

থাকলেও এতক্ষনে পালায়া গেছে গড়াগড়ি দিয়া হাসি
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

তারানা_শব্দ এর ছবি

খেক খেক!!!

আতিফ আসলাম এর ঘেউ ঘেউ যারা শুনতে গেসিলো তাদের জন্য এক্স ( এক্স(
রেগে টং

"মান্ধাতারই আমল থেকে চলে আসছে এমনি রকম-
তোমারি কি এমন ভাগ্য বাঁচিয়ে যাবে সকল জখম!
মনেরে আজ কহ যে,
ভালো মন্দ যাহাই আসুক-
সত্যেরে লও সহজে।"

সাইফ তাহসিন এর ছবি

হা হা হা, ভালু কইছেন, এখনকার পুলাপাইনের একটা অংশ বুঝেই না কিসের বিনিময়ে আমাদের স্বাধীনতা আইছে, আর কাদের রক্তের বিনিময়ে আমরা বাংলায় কথা কই।

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

অনার্য সঙ্গীত এর ছবি

খালি 'নাপাক পাকি পতাকা' দিতে সাহস পাচ্ছিল না বোধহয়। তাই এই দেশের পতাকাটাও সংগে দিছে। হে হে দেঁতো হাসি । বেচারাদের জন্য আমার দুঃখ হয় চোখ টিপি

(অফটপিক: এই লেখাটা লিখে কারো মনে বোধহয় দুষ্কু দিলেন চোখ টিপি )
____________________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ !

______________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ!
অক্ষর যাপন

অনিকেত এর ছবি

বেশ কৌতুহলীদ্দিপক ঘটনা---
না না , লেখা নিয়ে কিছু বলছি না।
অনিন্দ্যের মত আমারও প্রশ্ন----এক ভোট কে দিলেন? কেন দিলেন???

সাইফ তাহসিন এর ছবি

গুরুদেব, ঘটনা দেখি সিরিয়াস, মার মার কাট কাট লেগে গেল প্রায় এই ভুটাভুটি নিয়া।
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি

বানিজ্যমেলায় আমার বউ প্রথমে একবার গিয়া রেকী মাইরা আইসা কইলো তার একটা জামা বেজায় পছন হইছে। আমি বললাম ভালু, ভালু, অত্যন্ত ভালু, কিন্তু জিনিশটা কুন ষ্টলে দেখছো? উত্তর আসলো - পাকি ষ্টলে। আমার সাফ উত্তর - জিন্দেগীতে ঐখানের মাল কিনি নাই, কিনবো না। এবং একদিন মা & বউ -এর সাথে নরক গুলজার কইরা গেলাম বানিজ্যতে ... ... মাগার যেইখানে গিয়া উপস্থিত হইলাম তা দেইখা পুরাই টাশকি, চারিদিকে খালি 'পাক সার জামিন' গো ষ্টল। মেজাজ চূড়ান্ত বিলা ছিলো হারাডা দিন। হালাগো জিনিশের চেয়ে আমাগো দেশী প্রোডাক্ট বহুত ভালো - এইটা সাফ সাফ বুঝলাম, কিন্তু উপস্থিত ভদ্র মহোদয়গন দেখলাম সব ভুইল্লা ঐখানে ভোমরার মতো ভোঁ ভোঁ লাগাইছে।

"খোমাখাতায় আমার মেডিকেলের অনেককেই আমি সেধে সেধে বন্ধু হিসাবে যোগ করি, এতে অনেকে আমাকে লুলপুরুষ ভাবতে পারেন, তাতে আমার কিছু আসে যায় না।" - আপনে তো মিয়া বহুত পুরানা লুল, এইটা আবার নতুন কইরা জানাইতে হয়??? আর এই লুলস্বর্গে আইসা ফেরেশতা সাইজা তো কুনু লাভ পাই না। তাই এই লুলস্বর্গের আমি নাম দিছি - লুচলায়তন ... হে ... হে ... হে ...

১ তারাডা দিলো কেডায়, ঝানতে মঞ্চায় ... !!!

===============================================
রাজাকার ইস্যুতে
'মানবতা' মুছে ফেলো
টয়লেট টিস্যুতে
(আকতার আহমেদ)

==========================================================
ফ্লিকারফেসবুক500 PX

সাইফ তাহসিন এর ছবি

বস, আপনার মন্তব্যটা পইড়াই মন ভালো হইয়া গেল, বাংপাকিগো তাফালং আর ভালো লাগে না।

আমার মত লুলদের জন্যে জাতীয় সঙ্গীত আছে বস, এইটা শুইনা দেখেন।

Get this widget | Track details | eSnips Social DNA

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

অনিন্দ্য এর ছবি

১। এরকম অন্ধ পাকিপ্রেম সমর্থন করা যায় না, কিন্তু আমরা অন্য যে কোন দেশের মানুষ দেখলেও অনেকটা এই ধরনের আচরণ করি। সম্ভবত বহু দিন ধরে নিজেদের দেশ সম্পর্কে বিভিন্ন নেতিবাচক কথা শুনতে শুনতে আমাদের মধ্যে কেমন যেন একটা হীনমন্যতা জন্মে গেছে। কায়কোবাদ স্যার তো এটা নিয়ে অনেক বার লিখেছেন,আরো অনেকেই বলেছেন এই কথা। এমন অবস্থা হয়েছে যে রুটি-পরোটা পর্যন্ত মালয়েশিয়া থেকে আমদানি করে খেতে আমাদের ব্যাপক আগ্রহ।

২। আতিফের গান আমার খারাপ লাগে না,কিন্তু তাই বলে ৪০০০ এর উপরে টাকা খরচ করে শুধু এক রাতের জন্য আতিফের গান শুনতে যাওয়া? কি জানি,কিছু মানুষের টাকার তো কোন অভাব নেই...।

৩। "হেট দ্যা ওয়ার, নট দ্যা পিপল!" হুমমম-কথাটা একদম ফালতু না। একেবারে সাধারণ মানুষকে একাধারে ঘৃণা করার ব্যাপারে আমার একটু আপত্তি আছে। কারণ তাদেরকে ঠিকমত জানতেই দেয়া হয় নি যে বাংলাদেশে কি ঘটছে। সাধারণ মানুষকে বোঝানো হয়েছিল সব ইন্ডিয়ার চক্রান্ত। তবে এখনকার জেনারেশন এর পাকিদের এই অজুহাত দেয়ার সুযোগ নেই। উইকি আছে,আরো অনেক সোর্স আছে। তাদের টেক্সট বুকে অবশ্য এখনো সেই সব অপপ্রচার পড়ানো হয়।

৪।তবে পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর সবাইকে আমি প্রচণ্ড রকম ঘৃণা করি। এরা মানুষ হতে পারে নি,পারবেওনা কোন দিন। সম্ভবত তাদের সেনাবাহিনীতে ঢুকার পরে সবাইকে বাধ্যতামূলকভাবে অমানুষ হবার ট্রেনিং নিতে হয়।

হিমু এর ছবি

আমি একজন পাকিস্তানী নাগরিকের সাথে এক অ্যাপার্টমেন্টে থাকি। আপনি যদি "সাধারণ পাকিস্তানী নাগরিক" হিসাবে পাকিদের মাফ করে দিতে চান, অনুরোধ থাকবে কোনো পাকির সাথে বছরখানেক এক ফ্ল্যাটে থেকে আসুন। তারপর কী বলবেন সেটা শোনার অপেক্ষায় থাকবো।



বুকে BOOK রেখে বন্ধু চলো আজ যাবো বরাহশিকারে মোরা ধার ধার ধার দিও বল্লমে ♪♫

অনিন্দ্য এর ছবি

"আমি একজন পাকিস্তানী নাগরিকের সাথে এক অ্যাপার্টমেন্টে থাকি।"-উনার মতামত কি ১৯৭১ সম্পর্কে? উনার কি ধারণা পুরাটাই ছিল ইন্ডিয়ার চক্রান্ত? এসব প্রশ্ন করেছেন তাকে? তার যদি মনে হয় পুরাটাই ছিল ইন্ডিয়ার চক্রান্ত, তাহলে অবশ্যই আমি তাকে ঘৃণা করবো। তাকে বলবো তাদের টেক্সট বুকে যা পড়ানো হয় সব মিথ্যা। অবশ্য খুব একটা লাভ হবে কিনা জানি না। সে হয়ত উলটা বলতে পারে,"তোমাদের টেক্সট বুকে যা পড়ানো হয় তা মিথ্যা" (ব্রেইনওইয়াশড মানুষ এভাবে কথা বলে, তবে তার সাথে কথা বলার আগে আমি বুঝবো কেমন করে সে ব্রেইনওইয়াশড কিনা?)। তখন উইকির রেফারেন্স দেয়া যেতে পারে। ব্রেইনওইয়াশড হলে উইকির রেফারেন্সেও কাজ হবে না বোধহয়।

"সাধারণ পাকিস্তানী নাগরিক" বলে কাউকেই আমি মাফ করে দিতে চাই না। আমার যদি কখনো "সাধারণ পাকিস্তানী নাগরিক" এর সাথে থাকতে বা কাজ করতে হয়,আমি তাকে উপরের প্রশ্ন দুটো করবো।এখন যদি সে বলে যে সে তার পূর্বপুরুষের কাজের জন্য লজ্জিত,তার পরও তাকে ঘৃণা করা ঠিক হবে কিনা বুঝতে পারছি না। আপনি কি ঘৃণা করবেন?

কিন্তু বাংলাদেশেই অনেকের কাছ থেকে যে সব কথা শুনি, মাঝে মধ্যে মনে হয় এরা পাকিদেরও অধম। সে দিন এক জন বলছিল,"৩০ লাখ মানুষ নাকি মারা যায় নি,আসলে আরো অনেক কম সংখ্যক মানুষ শহীদ হয়েছিলেন...এটা নাকি বানানো একটা ফিগার..."। এই সব কথা যারা বলে তারা কিন্তু ক্লাস ১-৭ পর্যন্ত বীরশ্রেষ্ঠদের জীবনী পড়েছে,আর অনেক সোর্স আছে জানার। এদেরকে কি বলবেন? বরাহশাবক বললেও তো কম বলা হয়,তাই না?

অফটপিকঃ অনেক আগে আপনার কোন একটা লেখায়/কমেন্টে পড়েছিলাম কিছু পাকি জানোয়ার শান্তি মিশনে বিদ্রোহীদের কাছে অস্ত্র বিক্রি করে দেয়, যে অস্ত্র পরে বাংলাদেশি সৈন্যদের মৃত্যুর কারণ হয়েছিল। এর পরে জাতিসংঘ কি পাকিদের বিরুদ্ধে কোন স্টেপ নিয়েছিল? বাংলাদেশের প্রতিক্রিয়াই বা কি ছিল?

হিমু এর ছবি

আমার ফ্ল্যাটমেট বালুচিস্তানের পাঠান, শোষণ-নিপীড়ন সম্পর্কে সচেতন এবং বাপচাচাদের সূত্রে বাংলাদেশের ঘটনাও সে জানে। তবে তাকে তার জন্যে "লজ্জিত" বলে মনে হয়নি, এ প্রসঙ্গ এড়িয়ে যেতে চেষ্টা করে সবসময়। তার পাঞ্জাবী ও সিন্ধি বন্ধুদের দেখেছি "অতীত ভুলে ভবিষ্যতের দিকে তাকাতে হবে" অ্যাটিচ্যুডের।

আমি আজ পর্যন্ত ৭১ নিয়ে লজ্জিত ও অনুতপ্ত পাকি দেখিনি। দেখলে বুঝতে পারবো ঘৃণা করবো কি করবো না। ধূসর গোধূলি এমন একজনকে চেনে। আপনি কি এমন কাউকে চেনেন? আমার মনে হয় আমরা চাইলে একটা ব্লগ খুলে এমন ব্যক্তিদের নাম পরিচয়ও লিস্ট করতে পারি। মনে হয় না লিস্টটা খুব বেশি বড় হবে।

বাংপাকিদের নিয়ে আমার তো কোনো কোমল অনুভূতি বা বক্তব্য নাই। বরাহশাবক বলতেও আমার আপত্তি নাই।

অফটপিকঃ ঐ ঘটনার কোনো ফলোআপ আর খুঁজে দেখা হয়নি। আপনিও খোঁজ করতে পারেন। জয় বাবা গুগলনাথ।



বুকে BOOK রেখে বন্ধু চলো আজ যাবো বরাহশিকারে মোরা ধার ধার ধার দিও বল্লমে ♪♫

সাইফ তাহসিন এর ছবি

অনুশোচনা পাকিদের কাছে থেকে আশা করাই বৃথা, এমন ভাব ধরে থাকে, এদের সাথে স্বাভাবিকভাবে কথা বলতেই মেজাজ খারাপ হয়ে যায়। কপালগুনে এখনো আমার কোন পাকি সহকর্মী নেই
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

শাফক্বাত এর ছবি

এই ব্রেইনওয়াশের ভিক্টিম আমার খুব নিকট একজন আত্মীয় হয়েছেন সম্প্রতি। আমরা ছোটবেলা থেকে মুক্তিযুদ্ধের কথা শুনে শুনে বড় হয়েছি, আমার আব্বু যুদ্ধ করে আহতও হয়েছিলেন, আমার মামা-চাচারা যুদ্ধ করেছিলেন। ওনাদের খুঁজতে এসে রাজাকার-রা না-পেয়ে আমার ক্লাস এইট পড়ুয়া ফুপাতো ভাইকে নৃশংসভাবে হত্যা করে। মুক্তিযুদ্ধে সামগ্রিকভাবে আমার বাবা-মা'র পরিবার ভীষণভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে, যেজন্য "শুনতে শুনতে" ১৯৭১ যেন আমাদের নিজচোখে দেখা ঘটনা...
কিন্তু, দুঃখের ব্যাপার, আমার শশুর একজন জামাতী। প্রচন্ড ধার্মিক হওয়ায় ওনাকে "ব্রেইনওয়াশ" করেছে মসজিদ-গামী লোকাল কিছু জামাতী। ওনার কাছে যখন মুক্তিযুদ্ধের "জামাতী ভার্সন" শুনি, চিৎকার করে পাগল হয়ে যেতে ইচ্ছে করে! শশুর হওয়া সত্ত্বেও বুঝাবার চেষ্টা করে করে হাল ছেড়ে দিয়েছি। মানুষের ধর্মীয় মানসিকতাকে পুঁজি করে এভাবে বাংলাদেশের মানুষের স্বকীয়তা নষ্ট করে দিচ্ছে এই ব্রেইনওয়াশ দিয়ে। আমার তো মনে হয় এটা ব্রেইনওয়াশের চেয়েও বেশী কিছু। হিপ্নটিজম বল্লেও হয়।
==========================================
পরদেশী বঁধু, ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।
যদি গো নিশিথ জেগে ঘুমাইয়া থাকি,
ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।।

অনিন্দ্য এর ছবি

এই অবস্থা কি শুধু উনার নাকি পরিবারের সবার? আপনার স্ত্রীও কি তার বাবার কথা শুনে একই ধারণা পোষণ করতেন/করেন? আমাদের সমাজে অনেক পরিবারেই বাবার মতাদর্শ গোটা পরিবারকে দারুণভাবে প্রভাবিত করে,তাই জানতে চাইলাম।

শাফক্বাত এর ছবি

দুঃখিত আমার স্ত্রী নেই, আছেন স্বামী হো হো হো
আমার শশুরের এই হাল গত একবছরে, ইতিমধ্যে বাসার সবাই স্বাবলম্বী এবং নিজ নিজ মতামত পোষণ করতে শিখেছেন।
ব্রেইনওয়াশের জোর চিন্তা করেন বাসার "সবাই" একদলে কিন্তু উনি আরেকদলে। সবাই ধার্মিক, নামাজ পড়ি। কিন্তু উনি ছাড়া বাকিরা সব এন্টি-জামাতী। তবুও, তবুও ওনাকে আমরা কেউ ওপথ থেকে সরাতে পারছিনা মন খারাপ
বুঝেন অবস্থা।
==========================================
পরদেশী বঁধু, ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।
যদি গো নিশিথ জেগে ঘুমাইয়া থাকি,
ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।।

অনিন্দ্য এর ছবি

"দুঃখিত আমার স্ত্রী নেই, আছেন স্বামী"- এটা আমি বুঝবো কি করে? মন খারাপ
আমার হয়তো স্পাউস লেখা উচিত ছিল। আমাকে বিভ্রান্ত করেছে আপনার এই লাইনগুলো :

"পরদেশী বঁধু, ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।
যদি গো নিশিথ জেগে ঘুমাইয়া থাকি,
ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।।"

বেইনওয়াশ খুবই খারাপ জিনিস। এটা থেকে কাউকে বের করে আনা খুব কঠিন। চেষ্টা করে যান। best of luck হাসি

সাইফ তাহসিন এর ছবি

অন্যদেশ আর পাকিস্তানকে এক কাতারে ফেলতেই আমার আপত্তি, আর কেন সেই আপত্তি, আমার গত লেখায় সেটা অল্পবিস্তর বলেছিলাম। যাক, পাকিরা যা খুশি করুক গিয়ে, কিন্তু আমরা আত্মসম্মানবোধ ভুলে গেলে কিভাবে হবে? আপনার মন্তব্যের ৩, ৪ পরে খুব ভালো লাগল।

আর ২ নম্বরে আমার মেসেজটা বুঝতে পেরেছেন বলে একটু দাঁত বের হল। আতিফের গান ভালো লাগলে শুনবে, তাইবলে এভাবে এত টাকা খরচ করবে কেউ, এটা গ্রহনযোগ্য নয়।
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

অনিন্দ্য এর ছবি

ধন্যবাদ।

জামাতিরা বাংপাকিদের সংখ্যা বাড়ানোয় খুব্ই মনোযোগী। ঢাকা শহরে একটা জিনিস আমার কাছে খুব দৃষ্টিকটু লাগে , খেয়াল করলে দেখবেন বেশির ভাগ মসজিদের কাছাকাছি/সংলগ্ন দেয়ালে "দৈনিক সংগ্রাম" লাগানো থাকে। নামায পরে বের হবার পরে অনেকেই একটু কি লেখা আছে পড়ার জন্য দাঁড়িয়ে যান। সেখানে অনেক সময় কিছু আলোচনাও চলে। আমার ধারণা এগুলো বেশ খারাপ প্রভাব ফেলে। দৈনিক সংগ্রামের কিছু লেখা যদি কেউ কিছু দিন পড়ে এবং সমমনা ১-২ জন মানুষ তাকে বুঝায়,তাহলে কিন্তু ব্রেইনওয়াশ শুরু হয়ে যায়। এখানে একটা ব্যাপার হলো যারা "সংগ্রাম" কি জিনিশ জানেন,তারা কিন্তু কখনোই পড়ার জন্য দাড়াবেন না। ফলে যারা ভুল বুঝেছেন/বোঝানো হচ্ছে, তাদেরকে ঠিক তখনই কেউ বলছে না যে এগুলো সব মিথ্যা,অপপ্রচার।

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

হা হা বেশ মজা পেলাম। প্রথম মন্তব্যটি করার সময় কোন তারা ছিলনা। আমি নিজেও তারা দেইনি। কারণ তারা দেয়ার মতো মনে হয়নি তাই দেইনি। একটু পরে দেখলাম কে যেন ১ তারা দাগিয়েছে। ১ তারা দিলেই সেই সচলকে কোন ব্রান্ডে ফেলে দেয়া ঠিক নয়। একেকজন একেক কারণে তারা দেয়। কেউ যদি ১ তারা দিয়ে থাকেন সেটার কারণ জানতে চাওয়াকে আমি দোষের বলছিনা।

লেখার একটু সমালোচনা করি। এই লেখাটা সাইফের আগের অনেক লেখার মত শক্ত হয়নি।

সাইফ তাহসিন এর ছবি

একমত পিপিদা, এই লেখাটা আমার আবেগের বশেই লেখা। আরো অনেক ভালো এবং গোছানো হতে পারত। তবে এসব ব্যাপার চোখে পড়লে আমার মাথা এমন গরম হয়ে যায় যে না লিখে মাথা ঠান্ডা করতে পারি না।
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

একটা নিতান্তই অফটপিক মন্তব্য হলো, আমি আতিফ আসলামের গান ভালু পাই দেঁতো হাসি তবে পয়সা খরচ কইর‌্যা রেডিসনে [সাইব্বাই, কন্সার্ট রেডিসনে হৈসিলো] কন্সার্ট দেকতে যাবো না... আজ পর্যন্ত কেবল মৌসুমী ভৌমিকের কন্সার্টে যাবার ইচ্ছা ছিলো, উনি যখন আসছিলেন গতবছর- কেন যানি যাওয়া হয় নাই...

_________________________________________

সেরিওজা

সাইফ তাহসিন এর ছবি

ভালু কইসো বস, কার কি ভালো লাগবে, তাতে আমার মন্তব্য করার অধিকার নাই, কিন্তু ভালোলাগাকে কতটা প্রশয় দেওয়া ঠিক, সেটা নিয়ে লিখতে চেয়েছিলাম, কোন গুছিয়ে বলতে পারি নাই কিছুই
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

মূলত পাঠক এর ছবি

আগেই বলা উচিত ছিলো হয়তো, কিন্তু এখন ফিরে এসে চোখে পড়লো মন্তব্যমালা। এক তারা আমি দিয়েছি। সেটা লেখার গুণগত কারণে। আমার ধারণা, সাইফ তাহসিন দ্রুত হাতে এবং আবেগের বশে লিখেছেন, হয়তো সে কারণেই লেখা অগোছালো হয়েছে ও অন্যান্য কিছু সমস্যাও রয়েছে। মনে হয় সাইফ নিজেও সেটা জানেন। কিন্তু কোনো লেখার স্রেফ বিষয়বস্তুর কারণে তার মান নিয়ে কথা তোলা যাবে না, এই যদি আমাদের আদর্শ হয় তো সেটা খুব স্বাস্থ্যকর কথা নয়। সেটা ভুললে সচলের আখেরে ক্ষতিই হবে।

অনার্য সঙ্গীত এর ছবি

আমি দেখেছি (একান্তই নিজস্ব পর্যবেক্ষণ) সচলে এমন দুয়েকজন আছেন যারা বিশেষ কিছু লেখকের লেখায় আগপাছ বিবেচনা না করেই একতারা দেন। এই একতারাটিও আমি তাদের কারো দেয়া ভেবেছি। আমার মন্তব্যের শ্লেষ কেবল তাদের জন্যই...

মুলো'দা, আপনি আমার অনেক প্রিয় একজন সচল। আমার মন্তব্যের জন্য আপনার কাছে ক্ষমা চেয়ে নিচ্ছি...

____________________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ !

______________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ!
অক্ষর যাপন

মূলত পাঠক এর ছবি

ক্ষমা চাইবার প্রয়োজন নেই, আপনাকে ও অন্য কেউ যদি মনে করেন তাঁদেরও বলি। এই ইস্যুতে বাংলাদেশী লেখক/পাঠকের নিরাবেগ হওয়া কঠিন সে কথা জানি। তাই বাইরে থেকে এই সব কথা বলার দায়িত্ব নিয়েছি নিজেই, যাতে অফ-ট্রাক না হয়ে যায় লেখালেখি সেই উদ্দেশ্যে। আশা করি বোঝাতে পারলাম।

সাইফ তাহসিন এর ছবি

ঠিক বলেছেন রাজর্ষিদা, লেখাটা আরো গুছিয়ে সময় নিয়ে লেখা উচিত ছিল
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

অতিথি লেখক এর ছবি

লেখা খুবই ভালো হয়েছে। সময়োপযোগী লেখা। আসলেই এদের ঘৃণা করা উচিত, রুখে দাঁড়ানো উচিত।

সাইফ ভাই আমার লেখায় তো মন্তব্য দেয়ার সময় ব্যঙ্গ-বিদ্রুপ কম করেন না, দেখেন তো নিজের বানান ও শব্দ চয়নটা কী ঠি আছে?

কারন না হয়ে কি কারণ হবে না?

ফলস্রুতিতেই না হয়ে কি ফলশ্রুতিতেই হবে না?

আমি দেখেই আক্কেলগুড়ুম এটা কি দেখেই আমার আক্কেলগুড়ুম হবে না?

ভুল বলে থাকলে ক্ষমা প্রার্থী। কারণ আমিতো ভুলের তিলক কলাপে নিয়েই সচলায়তনে সবাইকে বিরক্ত করে যাচ্ছি।
=========
কামরুজ্জামান স্বাধীন।

ওয়াইল্ড-স্কোপ এর ছবি

ঠিক এ কারণেই আমি মনে করি সচলায়তন অতিথিদের প্রতি খানিকটা অবিচার করে। অতিথিদের যে লিখতে দেয়া হয় তাই ঢের - এ যুক্তি যারা দেবেন তাদের আমার আর কিছু বলার নেই। ব্লগ লিখতে গিয়ে বানান ভুল হতেই পারে - অতিথিদের বানান ঠিক করার সুযোগটা দেয়া উচিত, যা পূর্ণ সচলরা পেয়ে থাকেন (সে সুযোগে অনেকে লেখার অনেক কিছুই পরিবর্তন করেন বা বর্ধিত করেন ক্ষেত্র বিশেষে)। সাপোর্টে ইমেইল করলে জবাব পাওয়া যায় না অনেক ক্ষেত্রেই, বা দেরী হয় - এতে মডুদের বাড়তি ঝামেলা হয়। কারো বিরুদ্ধে সে সুযোগ অপব্যবহার করে লেখা পুরাপুরি পাল্টানোর অভিযোগ থাকলে তাকে সায়েস্তা করার জন্য লেখা সরিয়ে দেয়া কঠিন কিছু হবার কথা না (আরো কঠিন কিছু করা যেতে পারে - যেমন সদস্যপদ বাতিলকরণ), অন্তত বেটা টেস্টিং হিসেবে এই সুযোগ সীমিতভাবে (যা এডিট করার তা পোস্ট প্রকাশের প্রথম ১ দিনের মধ্যেই করতে হবে) কিছুদিন অতিথিদের দিয়ে টেস্ট করে দেখা যেতে পারে ফলাফল কি হয়। বিবেচনা না করলে নাই - আপন মনে করেই আবারও আবদার করলাম।

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

একটু সাবধানে দুইবার পড়ে পোস্ট করলে কিন্তু বড়সর ভুলগুলো শোধরানো হয়ে যায়। প্রতিরোধ প্রতিকারের চেয়ে উত্তম নয় কি? হাসি

ওয়াইল্ড-স্কোপ এর ছবি

কথাটা কি আমারে বললেন না সাইব্বাইরে? খাইছে আমি বিশেষত সেইসব ভুলগুলির কথা বলেছি যা নিজের চোখে ধরা পড়ে না - কিন্তু পাঠক ফিডব্যাকে চলে আসে হাসি মনে রাখতে হবে অতিথিদের একটা বড় অংশ লেখালেখিতে অনভ্যস্ত (যার মধ্যে আমি তুমুলভাবে পড়ি) - তাদের নিজের ভুল বুঝতে পারার ক্ষমতাও সীমিত (সবার কথা বলছিনা, নিজেকে আদর্শ ধরেই বললাম)।

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

আমি নিজের লেখা দুইবার পড়তে বিরক্ত বোধ করি তো, তাই তোমাকে বলার মাধ্যমে আসলে নিজেকেই বললাম হাসি

শাফক্বাত এর ছবি

নতুনদের অনভ্যস্ততার কারণে ভুল বের করে পিছে লাগার মধ্যে নির্দয় একটা ব্যাপার আছে। এটা অনেকটা ফ্রেশারদেরকে সিনিয়রদের "র‌্যাগিং" মত...
==========================================
পরদেশী বঁধু, ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।
যদি গো নিশিথ জেগে ঘুমাইয়া থাকি,
ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।।

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

আমার মন্তব্যের জবাবে মন্তব্য করেছেন বলেই জানতে চাইছি--

অনভ্যস্ততা বলতে কি বোঝালেন তা বুঝি নাই; সঠিক বানানে লেখার অনভ্যস্ততা, নাকি লিখে রিভাইজ করতে অনভ্যস্ততা?

হাসি

ধুসর গোধূলি এর ছবি

নতুনদের অনভ্যস্ততার কারণে ভুল বের করে পিছে লাগার মধ্যে নির্দয় একটা ব্যাপার আছে। এটা অনেকটা ফ্রেশারদেরকে সিনিয়রদের "র‌্যাগিং" মত...
এভাবে ঋণাত্বক ভঙ্গিতে কেনো বলছেন শাফক্বাত, জানতে পারি?
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

শাফক্বাত এর ছবি

আসলে এই মন্তব্য এখানে করাটা প্রাসংগিক হচ্ছেনা; সাইফের কাছে তাই আগে থেকেই বিনীতভাবে বলছি আপনি এই মন্তব্যটা আপনার লেখার সাথে সম্পর্কিত করবেন না প্লীজ।
আমার নিজের বানান নিয়ে প্রায়ই সমস্যা হয়; তার চেয়ে বেশি সমস্যা হয় বাংলা টাইপ করতে গিয়ে। নতুন হিসেবে আমিও দু'বার ব্লান্ডার করেছিলাম, শোধরাতে পারিনি কারণ অতিথিরা তাদের লেখা এডিট করতে পারেনা। লিখছি আমি নতুন কিন্তু পড়ছি অনেকদিন থেকেই এবং এটাও দেখেছি পুরোনোরা মাঝে মাঝে পাঠকের মন্তব্যের ভিত্তিতে লেখা বদলেও থাকেন। এটা একজন নতুন কিভাবে করবে? তার তো সেই অধিকার নেই!!
ভুল ধরিয়ে দেওয়া কিন্তু ভাল, তাতে মানুষ নিজেকে উন্নততর করতে পারে। কিন্তু সেই ভুল ধরিয়ে দেওয়াতে যদি শ্লেষ মেশানো থাকে তবে সেটা নতুন একজনের পক্ষে মেনে নেওয়াটা কষ্টকর হয়না, আপনি বলেন? আরো ভেঙ্গে বলি, গতকাল এই স্বাধীন ভদ্রলোককে নিয়ে (আমার কিন্তু ওনাদের কারো প্রতি কোনও ব্যাক্তিগত পক্ষপাতিত্ব নেই) বেশ কয়েকজনের ব্যঙ্গোক্তি দেখে আমি নিজের স্বতঃস্ফুর্ততা অনেক খানি হারিয়ে ফেলেছি। মন্তব্যগুলো পড়ে আমার মনে হয়েছে সচলের নিজস্ব একটা লেখার ভঙ্গি আছে, তার বাইরে কেউ লিখলে বাঁশ খাওয়ার সম্ভাবনা। আমি সেখানে একটা কমেন্টও করে রেখে এসেছি, আপনি সেটা দেখতে পারেন।
এই কারণেই আমার মন্তব্যটা করা। আমি নিজে পার্সোনাল এটাক করিনা, অন্য কাউকে করতে দেখলে গুটিয়ে তো যাই-ঈ, রীতিমত ভয় পাই।
==========================================
পরদেশী বঁধু, ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।
যদি গো নিশিথ জেগে ঘুমাইয়া থাকি,
ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।।

সাইফ তাহসিন এর ছবি

দলছুট ভাইয়ের সাথে অন্যদের মিলায় উনারে অপমান কইরেন না, উনি অন্য লেভেলের ব্লগার, আমি হাজার বছর সাধনা করলেই সেই লেভেলে যাইতে পারব না, তাই হিংসা পরবশ হয়ে এমন করি :)। আর উনার সাথে অন্যদের মিথস্ক্রিয়া নিয়ে যদি মন্তব্য কর, তবে তার আগের লেখাগুলো পড়ে নিতে বলব। না পেলে জানিও, আমি লিংকগুলো দিয়ে দিব।
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

হিমু এর ছবি

"ভুল বের করা" এক জিনিস, আর "পিছে লাগা" অন্য জিনিস। ভুল বের করা হয় প্রায়ই, সেটাতে বোধহয় কেউ আপত্তি করেন না। পিছে লাগার ব্যাপারটা দুয়েকজনের ক্ষেত্রে সত্যি। যেমন এরকম একজন ভিক্টিম হচ্ছেন "ডি এম কামরুজ্জামান স্বাধীন"। কেন তার পিছে লোকে লাগে, সেটা বোঝার জন্যে তার লেখাও নিয়মিত পড়তে হবে। বিশেষ করে "প্রেমিকার লালা" বিষয়ক পোস্টগুলি হাসি



বুকে BOOK রেখে বন্ধু চলো আজ যাবো বরাহশিকারে মোরা ধার ধার ধার দিও বল্লমে ♪♫

শাফক্বাত এর ছবি

আমি বুঝতে পেরেছি আপনি কী বলতে চাইছেন। আমি নিজের লেখা বা মন্তব্য দেওয়ার সময় তো ভালই মডারেশন ফেইস করে থাকি। স্বাধীন সাহেবের ওসব লেখা আমি পড়িনি, জানতামও না সেসব। কিন্তু লেখা আপত্তিকর হলে তা ছাপানো হচ্ছে কেন তাহলে? মডারেশন সম্বন্ধে আমি এখন একটু কনফিউজড হয়ে গেলাম। একটা লেখা যদি কুরুচিকর হয় এবং এখানকার পাঠকদের সেটা পড়তে খারাপ লাগার মত হয় তবে সে লেখা প্রকাশ না-পেতে পারতো!!? আপনিই তো আমাকে বলেছিলেন একবার মডারেশনে লেখা বাদ-ও পড়ে যায়!
সে লেখা ছাপা না-হলে আজকে এমন পিছে লাগার ব্যাপার টা হতোনা। আমরা যারা কেবল একটা পোস্ট-ই পড়ি এবং ব্যাকগ্রাউন্ড না-দেখে কেবল এটাক গুলো-ই দেখি, তারা কী ভাবি বলেন? আমি কিন্তু ভয়-ই পেয়ে গিয়েছি সত্যি। নিজের একটা লেখা দিতে গেলে এখন একপা এগোই, দ'পা পিছাই। মনে হয় থাক বাবা, এত এক্সপার্টের মাঝে আমি এক এমেচার কী না কী লিখে বসি!
==========================================
পরদেশী বঁধু, ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।
যদি গো নিশিথ জেগে ঘুমাইয়া থাকি,
ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।।

হিমু এর ছবি

[একটা ছোটো নোট, "স্বাধীন" নিকটি একজন সচল ব্যবহার করেন। আপনি যার কথা বলছেন, তাঁকে সবাই দলছুট নামে চেনে।]

লেখা "কুরুচিকর" তো বলছি না। কিংবা "কুরুচিকর" বলে তার পিছে লাগে লোকে, সেটাও তো বলছি না। একটা লেখা সামগ্রিক বিচারে পাঠকের কী প্রতিক্রিয়া জাগাতে পারে, সেটা তো মডারেশনের আঁচ করা সম্ভব নয়। মডারেটররা মোটা দাগের জিনিসগুলো দেখে। বাকিটা বিচারের ভার পাঠকের হাতে। তারা যদি নির্মম হন, তাহলে একটা সীমা পর্যন্ত দেখে তাদেরও সতর্ক করা হয়। অতীতে হয়েছেও।

আর এই যে আপনি কুণ্ঠাবোধ করছেন লিখতে, এটার একটা ভালো দিকও তো আছে। আপনি হয়তো ভেবে, গুছিয়ে লিখবেন, এবং সেটা সুপাঠ্য হবে। অগোছালো লেখা লিখতে ভালো লাগে হয়তো, পড়তে একেবারেই ভালো লাগে না।

আপসোসের ব্যাপার হচ্ছে পাঠকের সমালোচনা দলছুট ভাইয়ের বর্মে এতটুকু আঁচড় কাটতে পারেনি মন খারাপ । উল্টো নতুন লেখকরা ঘাবড়ে গেছেন। এই ব্যাপারটা আমাদের সবারই বোধহয় বোঝা উচিত।

আপনার যুক্তি আমি মেনে নিচ্ছি, যিনি কেবল ঐটুকুই দেখেন, তার কাছে ব্যাপারটা অস্বস্তিকর ঠেকবে। কিন্তু ঐ অতটুকু দেখেই যাঁরা কর্তব্য স্থির করেন, তাঁদের শুধু অনুরোধ করা যায় আরেকটু দেখার।



বুকে BOOK রেখে বন্ধু চলো আজ যাবো বরাহশিকারে মোরা ধার ধার ধার দিও বল্লমে ♪♫

সাইফ তাহসিন এর ছবি

মন্তব্যে উত্তম জাঝা!
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

হিমু এর ছবি

"ফলশ্রুতিতে" শব্দটাই ভুল। আমরা বলতে চাই "ফলে"। ফলশ্রুতি মানে "ফল শোনার ঘটনা"।



বুকে BOOK রেখে বন্ধু চলো আজ যাবো বরাহশিকারে মোরা ধার ধার ধার দিও বল্লমে ♪♫

সাইফ তাহসিন এর ছবি

ধন্যবাদ বস!
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

সাইফ তাহসিন এর ছবি

ধন্যবাদ, ব্যঙ্গবিদ্রুপের কথা বলছেন, তার কিছুই আমি করিনি, আপনাকে তো ভালোভাবে বললে কোন লাভ হয়না, আপনার লেখায় তো দেই না এত বানান ভুল যে, সেগুলা এক করলে আরেকটা নতুন পোস্ট হয়ে যাবে বলে। আর আগেও বলেছি, আমার সাথে বেঞ্চমার্ক করলে নর্দমার তলায়ই পড়ে থাকবেন, ভালো কিছু লিখতে চাইলে ভালো কারো সাথে বেঞ্চমার্ক করেন, যেমন হিমুদা, লীলেনদা, অনিকেতদা।

আর যত যুক্তিই দেখান না কেন, কারো নামের বানান যদি ভুল করেন, আমি আবারো একই ভাবেই মন্তব্য করব।
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

রাহিন হায়দার এর ছবি

বাংপাকিদের উপরে থেকে আশা ছেড়ে দিসি ভাই। ওদের দেশের কোন এক দুর্গন্ধময় জায়গায় ছিটমহল বানায়ে ঢুকায়ে রাখতে পারলে ভালো হইত। সেটা তো আর সম্ভব না। প্রায়ই দীর্ঘশ্বাস ফেলি এদের দেখে।
________________________________
তবু ধুলোর সাথে মিশে যাওয়া মানা

________________________________
মা তোর মুখের বাণী আমার কানে লাগে সুধার মতো...

সাইফ তাহসিন এর ছবি

সমস্যা হইল যে এই বাংপাকিরা আমাদেরই লোকজন, এদের ফালাই কেমনে? কোন এক পন্থায় এদের লাইনে আনতে হবে, জানিনা যদিও কিভাবে সেটা সম্ভব। সম্ভবত এদের প্রত্যেকের সাথে একজন করে পাকিকে একটা স্থানে এক মাস আটকে রাখা যায়, ফলে তারা দেখতে পেতো তাদের পেয়ারের পাকিরা কেমন?
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- সাইব্বাই, লেখাটার উদ্দেশ্য বেশ গুরুত্বপূর্ণ হলেও লেখাটায় গভীরতা খুঁজতে ব্যর্থ হয়েছি আমি। আরেকটু গুছিয়ে লেখা যেতো বোধকরি। আপনার সেই ক্ষমতাও আছে। আরেকটু বিশদ খোঁজ খবর নিয়ে, বাণিজ্যমেলায় বিশাল একটা অংশ নিয়ে পাকিদের প্যাভেলিয়ন করার বিষয়গুলো নিয়েও লেখা যেতো। এই প্যাভেলিয়ন করার কারণটাও উঠে আসতে পারতো আপনার লেখায়। এদের টার্গেট কাস্টমার কারা! এই টার্গেট কাস্টমাররা কি "ম্যারী মি আফ্রিদি" কিংবা "আতেফ এসলাম ফ্যান ক্লাব"-এর জনগণ কিনা, সেটাও বেরিয়ে আসতো তা থেকে।

ঢাকার বাণিজ্যমেলা তো আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা। পাকিস্তানের কূটনীতিকে আমরা পুছি কি পুছি না সেইটা ভিন্ন ব্যাপার। কিন্তু এখন পর্যন্ত এরা বাণিজ্যিক সম্পর্কের ভিত্তিতে যদি ঢাকার আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় যোগ দিতে চায়, তাহলে আমরা সেটা আটকাতে পারি কি?

এরা বাণিজ্যমেলায় এসে (শুধু পাকি না, অন্য যে কেউ) মেলার কোনো নিয়ম ভঙ্গ করছে কিনা, এদেরকে কোনো রেসিডেন্ট প্রেমী আলাদা খাতির দিচ্ছে কিনা, সেটাই আসলে দেখার বিষয়। আপনার লেখায় সেই বিষয়গুলো উঠে আসলে ভালো লাগতো।

আর একতারা, দুইতারা'র ব্যাপারে প্রতিক্রিয়া এতো জোরালো, তীক্ষ্ণ হলে ক্যামনে! এই তারা মারার অধিকার তো কেবল আমাদের, সচলের পূর্ণসদস্যের জন্যই সংরক্ষিত। তারা একটা মারুক আর পাঁচটা, বুঝতে হবে এটা "আমাদের কেউ একজন"ই মেরেছে, এবং এর পেছনে অবশ্যই একটা যথাযথ কারণ আছে। এটা নিয়ে আক্রমনাত্বক কথা কি বলা ঠিক, নাকি বলতে হয়!

বাংপাকি, ডিজুস— এদের ব্যাপারে কিছু বলার নাই। অ্যায়াম ঠু ঠায়ার্ড...
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

সাইফ তাহসিন এর ছবি

আমার এই লেখাটার উদ্দেশ্য কিন্তু পাকিস্তানের সাথে আমাদের কূটনৈতিক সম্পর্ক সংক্রান্ত নয় বা তাদের উপস্থিতির গ্রহনযোগ্যতা নিয়ে নয়, আমার কথা হল যে, তারা আসুক, স্টল দেক, পারলে ১০ তালা বিল্ডিং তুলুক, তাতে আমার কি? কিন্তু, ছবিটা যদি দেখে থাকেন, নিজেদের পতাকা আর নামের পাশে আমাদের পতাকা কেন ঝুলাবে? আমরা কি পাকিস্তানের পিয়ারি দোস্ত নাকি? এর বাইরে যত ইস্যু আছে, সেগুলো নিয়ে লেখার মতন এলেম আমার নেই। তবে এটা ঠিক যে, মহিলা এবং যুবতী মহলে পাকি স্টলে গিয়ে জামা কেনার আগ্রহ চোখে পরার মত দৃষ্টিকটু। সেটা নিয়ে বিস্তারিত লেখতে গেলে সরেজমিনে পর্যবেক্ষন করার সময় আমার ছিল না। পুরো পোস্টের ফোকাস কিন্তু আমার ছবির দিকেই ছিল।

আর তারা কে দিল বা কাকে দিল, সেখানে আমার কোন মতামত দেখেছেন কি? একবার তারা নিয়ে রসিকতা করতে গিয়ে শিক্ষা হয়ে গেছে, আর খায়েশ নাই আমার তারা নিয়ে কথা বলে সময় নষ্ট করার। কাজেই আমাকে উদ্দেশ্য করে কেন বললেন কথাটা ঠিক বুঝতে পারলাম না। আগের ব্যাপারটা ভুলে গিয়ে থাকলে সবুজ বাঘের লেখা ঘাটতে পারেন।আমার তারা দেবার ক্ষমতা হওয়ার পর থেকে কাউকে তারা দিলে ঘোষনা দিয়েই তারা দেই। অন্য কেউ অভিযোগ করে থাকলে তাদের দায়ভার নিশ্চয় আমার ঘাড়ে বর্তায় না।

================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- না, কিছু ভুলি নাই বস।

সচলকে তো আমরা একটা পরিবার বলি। পরিবারের সদস্যদের যে কারো দায়ভার নিজের ঘাড়ে, কাঁধে নিয়ে নেয়াটা খারাপ কিছু না সাইব্বাই। আপনি না নিতে চান, অসুবিধা নাই। আমার কাঁধে দিয়ে দেন। যদিও সেখানে হাড্ডি বেশি, মাংসের পরিমান কম, তাতেও সমস্যা নাই। বসতে দায়ভার মিয়ার একটু কষ্ট হবে বটে!

একটা স্টলে মালিক দেশের পতাকার সাথে আয়োজক দেশের পতাকা টাঙ্গানোর আইনানুগ কোনো জটিলতা আছে কি নেই, সেই বিষয়ে আমার জ্ঞান নেই। কিন্তু এটা পিয়ারী দোস্তানির দাস্তান থেকে লাগানো হয়েছে নাকি কেবলই "অতিথি দেশ আর আয়োজক দেশ" হিসেবে লাগানো হয়েছে, কে বলবে! যদি দুস্তি প্রমাণ করার উদ্দেশ্য থেকেই লাগানো হয়ে থাকে তাহলে প্রবলেম অবশ্যই।

তবে আমি আবারও বলবো, লেখাটা আপনি আরও গুছিয়ে লিখতে পারতেন এবং এই দাবী থেকে সরে আসছি না আমি।
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

সাইফ তাহসিন এর ছবি

নিয়ে নেন, ভোট সংক্রান্ত ব্যাপারে আমি আর নাই, আগের তিক্ত অভিজ্ঞতাই যথেষ্ট, আপনার ক্ষমতা আছে, খুব ভালো কথা, আপনে নেন। তাদের অন্যান্য দায়ভার নিতে আমি রাজি আছি।

তবে, আপনার সাথে একমত, লেখার মান বা বিষয়বস্তু দুর্বল এবং অগোছালো। তার দায়ভার অবশ্যই আমার, তবে যারা অভিযোগ করেছেন, তারাও আবেগের বশেই করেছেন, তাদের পক্ষ থেকে নাহয় আমিই ক্ষমাপ্রার্থী। লিখেছি আমি, দোষতো আমারই। আপনার দাবী আমি অস্বীকারও কিন্তু করিনি!

আর পতাকার ব্যাপারটা যাই হোক, অতিথি দেশ হিসাবে অন্যরা তো লাগায়নি, শুধু পাকিদের আমাদের দেশের জন্যে দরদ উথলে উঠল!
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

ধ্রুব বর্ণন এর ছবি

আপনার লেখা আগে বেশি একটা পড়ি নি। কিছু কিছু মন্তব্য পড়ে আমার হৃদস্পন্দন বেড়ে গিয়েছিল। খাইছে এবার একটা গোটা লেখা পড়ে সেটা তুঙ্গে উঠে গেল। জানি না স্বদেশপ্রেম কি জিনে প্রোথিত কিনা। তবে আপনি সেটার বেশ চরম রূপটা টেনে তুলে আনলেন আমার ভিতর থেকে আপনার লেখা দিয়ে।

কিন্তু এরপর? কি করা দরকার এদের ব্যাপারে? সত্যি সত্যি এখন আমাদের বলা উচিত তাদের কাছে গিয়ে দূরে গিয়া মর? বা তাদের নাজায়েজ ডাকতে হবে? ভালো হয়ে যেতে বলতে হবে? নাকি আরো ভালো কোনো ব্যবস্থা আছে? সেগুলো আমরা জানি না, এখানে কেবল রাগ ঝাড়ার জন্য এগুলো বলা? লেখাটা কি শুধুই রাগ ঝাড়ার জন্যে দিলেন না সত্যিকারের দিক নির্দেশনা আছে আপনার কাছে, জানার ইচ্ছা রইলো।

----------------------------------
~জীবন অনেকটা জড়ই, কিন্তু অনন্য!~

সাইফ তাহসিন এর ছবি

সর্বনাশ, করেছেন কি? আমার লেখা পড়েই ফেললেন, চোখ টিপি রসিকতা করলাম একটু, মাইন্ড খাইয়েন না। অনেক ধন্যবাদ, দেশপ্রেম টেনে আনার মত লেখা এটা না, তার জন্যে মুস্তাফিজ ভাইয়ের ৭১ এর উপরে লেখাগুলো পড়েন, তাহলেই সব বের হয়ে আসবে।

এই ব্যাপারটা নিয়ে আলোচনা করতেই পোস্ট দিয়েছিলাম, কিন্তু দেখা গেলো একভোট আর দলছুটকে নিয়ে বেশ দৌড়ঝাপ লেগে গেছে। যাক, দেখি কতদূর কি করতে পারি। অন্য সবই তো চেষ্টা করলেন, কাজ হয়েছে, বাংপাকিরা কমেছে? নাযায়েজ নামটা শুনেও যদি কোন বিকার হয়। তবে, এগুলো কোন সমাধান না, আর শুধু রাগ ঝাড়ার জন্যেও পোস্ট দেওয়া না, গত বানিজ্য মেলায় নাকি প্রথম আলো বিশাল করে এটা নিয়ে ক্যাম্পেইন করেছিল, তাতেও কোন কাজ হয়নি। এক পর্যায়ে আমি কিছুটা হতাশ হয়ে পড়ি, তারপর আবার শুরু থেকে শুরু করি। চেষ্টা তো করতে হবে, কিভাবে জানবেন, কোন অষুধে কাজ হবে, যদি চেষ্টাই না করেন। আর রাগ ঝাড়ব কার উপরে, এইখানে তো কোন বাংপাকি নাই, থাকলে আসলেই ঝাড়তাম।
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

ধ্রুব বর্ণন এর ছবি

হে:হে: হাসি, মজার টোনটা ধরতে পারসেন মাইন্ড কেমনে খাই?

দেশকে আমি ভালবাসি, কিন্তু এ নিয়ে রক্ত গরম যে অবস্থাটা হয় এই উত্তেজক লেখাগুলো পড়লে, সেইটা আমি সহ্য করতে পারি না :)। মানে বলতে চাইতেসি, লেখার সার-বস্তুটা কিন্তু গুরুত্বপূর্ণ। এসব নিয়া কথা বলা জরুরি, জানাটা জরুরি, তর্ক-বিতর্ক জরুরি। কিন্তু তার সাথে আপনি লেখায় যে উত্তেজক ছিটায়া দেন, সেইটা লেখায় একটা অন্য লেভেলের মহিমা দেয় ঠিকই চোখ টিপি, কিন্তু বিষয়টা নিয়া আর আলাপ করাটা কঠিন হয়ে পরে বলে আমার কাছে ঠেকে। জানি না, এইটা আমার ভাবনা।

তয় আপনার কাছে আমার চাওয়া, লেখায় উত্তেজক পদার্থ কম ছিটাইলে, রক্ত গরম না কৈরাই পড়তে পারি আরকি (হাই-প্রেসার রোগীদের কথাটা চিন্তা করেন)। আপনে তো আপনার মত বুইঝাই লিখবেন, আপনারে ভালো পাইলাম, তাই আমার চাওয়াটা একটু পাইড়া দিলাম আরকি!

জিনিসটা নিয়া আলোচনায় আমি আগ্রহী। আমার দৃষ্টিকোণ ঠেকে শুরু করি। যেমন ধরেন, আমি যেখানে থাকি, এখানে অনেকে সানন্দে পাক-ভারতীদের সাথে হিন্দী-উর্দু চালায়, কিন্তু অনেকে আবার হিন্দীতে কাউরে কথা বলতে দেখলেই চেইতা যায়। আমার বাসায় কার্ডফোন সার্ভিসের ফোন আসে। নাম শুইনাই হিন্দী-উর্দু বলা শুরু কইরা দেয়। যদিও জানে বাঙালি। এখন, আমাদেরই লোকজন ওদের সাথে ওদের ভাষায় কথা না বললে ওরা নিশ্চয়ই এটাকে বাজারমূল্যসম্পন্ন মনে করত না। যারা এদের সাথে নির্দ্বিধায় ওদের ভাষায় কথা বলে, তাদের মনে হয় আপনে বাংপাকি বলতেসেন। ওদের আরো বৈশিষ্ট্য আসে ঠিকই, এইটা একটা। অন্যান্য হইলো, নিজের দেশের অস্তিত্ব না জানা কিন্তু কাছের দেশের পপুলার ইস্যুতে লাফানো।

এখন কথা হইলো করণীয়? আমার ব্যক্তিগত মত, জাতিভুক্তিতে মানুষ বাধ্য না। নিজের পরিচয় জানতেও মানুষ বাধ্য না। অর্থাৎ আপনার কথা মানলে আমি বলব, নাজায়েজ হবার অধিকার মানুষের আছে। আমি তাদের দোষী বলতে পারি না, কারণ একটা জিনিস আমি নিজে বিশ্বাস করতেসি এবং আমি ভাবতেসি তাদেরও করা উচিত। অর্থাৎ আমার একটা মতাদর্শ তাদের উপর চাপানোর চেষ্টা করতেসি। এইটা বরং তাদের দোষ ডেকে আনে না, বরং আমাদের দায়িত্ব ডেকে আনে। আমাদের মতাদর্শ যদি আমরা মনে করি ওদের বহন করা উচিত, তাহলে আমাদের দায়িত্ব সেই বার্তা তাদের কাছে পৌঁছাইয়া দেওয়া। আমি নিজেরে নিজের অনুভূতির কারণে একটা জাতিভুক্ত করি বৈলা সকল মানুষ জাতিভুক্ত হইতে বাধ্য, এমনটা আমি মানি না। মাইনষের আচার-ব্যবহার দেইখা গা-জ্বলাটাও ততক্ষণ অর্থহীন, যতক্ষণ এইটা আমার নিজের অধিকার বা প্রাপ্যতা কাইড়া না নেয়। এইটা আমার মত।

চান্স পাইলেই সামনে আপনের লেখা পড়ব। আপনারে আলোচনায় আনার চেষ্টা চালাইতে পারি।

----------------------------------
~জীবন অনেকটা জড়ই, কিন্তু অনন্য!~

হিমু এর ছবি

বাংলাদেশে একটা প্রবণতা বেড়ে গেছে। পাকিস্তানীরা বাংলাদেশে এসে বাংলাদেশী নাগরিকদের বিয়ে করে এদেশে আস্তানা গেড়ে বেআইনী কাজ [জঙ্গি সেইফ হাউস চালানো, জাল টাকার ব্যবসা, বিস্ফোরক দ্রব্য চালান] চালিয়ে যাচ্ছে। এটা সম্ভব হচ্ছে বাংপাকিদের জন্যেই।

কিছু বিচিত্র কারণে বাংলাদেশের আমলাতন্ত্রের পাকিস্তানপ্রীতিও চোখে লাগে। কিছুদিন আগে সরকার পরিকল্পনা করছিলো, বিনা ভিসায় দুই দেশের সরকারি কর্তারা একে অন্যের দেশে ভ্রমণ করতে পারবে। দেশের জন্যে এর সুফল কী, সেটা জনগণের কাছে তুলে ধরার প্রয়োজন বোধ করছেন না তারা।

বাংলাদেশে নাকি প্রায় লাখের ঘরে অবৈধভাবে বাস ও ব্যবসায় রত ভারতীয় ও পাকিস্তানী আছে [সংখ্যাটা শোনা কথা, কিন্তু কিছু নমুনা দেখে মনে হয়েছে মিথ্যা নয়]। টেক্সটাইল সেক্টরে ডায়িং সাবসেক্টরটা মোটামুটি কিছু পাকিস্তানীর ভালো দখলে। বিশেষ করে কেমিক্যালস সরবরাহ।

বাংলাদেশের অনেক মানুষের মধ্যে এক গভীর হীনমন্যতা বোধ কাজ করে। আমি জানি না কেন। আমি এক পাকির সাথে এক অ্যাপার্টমেন্টে বাস করি, আজ পর্যন্ত একটা উর্দু বাক্যবিনিময় হয়নি তার সাথে। পাকিস্তানী বা ভারতীয় দেখলেই গলে গিয়ে উর্দু বা হিন্দি বলার প্রবণতাটা আমার কাছে আত্মসম্মানের অভাব বলেই মনে হয়। এই ব্রন্টোসরাসের চামড়া গায়ে ছোটোলোকগুলির জন্য পাকিদের ধারণা, বাংলাদেশের সবাই উর্দু-হিন্দি জানে। কয়টা উর্দু বা হিন্দিভাষী বাংলাদেশে এসে বাংলা বলার চেষ্টা করে?

হিন্দি বা উর্দু জানাকে আমি ছোটো চোখে দেখবো না। কিন্তু নিজের দেশের মাটিতে অকারণে ভিন্ন ভাষায় কথা বলাটা ঐ ব্রন্টোসরাসের চামড়ার দিকেই নির্দেশ করে।



বুকে BOOK রেখে বন্ধু চলো আজ যাবো বরাহশিকারে মোরা ধার ধার ধার দিও বল্লমে ♪♫

অনিন্দ্য এর ছবি

"বাংলাদেশে নাকি প্রায় লাখের ঘরে অবৈধভাবে বাস ও ব্যবসায় রত ভারতীয় ও পাকিস্তানী আছে [সংখ্যাটা শোনা কথা, কিন্তু কিছু নমুনা দেখে মনে হয়েছে মিথ্যা নয়]।"-এটা তো খুব খারাপ কথা। সরকার তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা নেয় না কেন? কূটনৈতিক সম্পর্ক নষ্ট হবার ভয়ে নাকি অন্য কিছু? বেআইনী কোন কিছুর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিলে তো কূটনৈতিক সম্পর্ক নষ্ট হবার কথা না।

আমি আমার কমেন্টে এই হীনমন্যতার কথা বলেছি,আপনিও বলায় খুব ভাল লাগল। ছোটবেলা থেকেই অনেককে বলতে শুনেছি,"বাংলাদেশ তো চলে দাতা দেশগুলোর টাকায়...এই দেশের কিছু হবে না..."।এই ধরনের কথা যারা বেশি বেশি বলেন,তাদের মধ্যেই হীনমন্যতা খুব বেশি পরিমাণে দেখা যায়।

আশরাফ মাহমুদ এর ছবি

এই মন্তব্যে সমর্থন জানাই। এইরকম আমি প্রায় দেখেছি, অহরহ দেখি।
=======================

@ সাইফ ভাই,
পোস্টটা আবেগের বশে লিখেছেন বোঝা যায়। তবে আপনার কাছে আবেগের পাশাপাশি যুক্তির একটা ধারা পাওয়া যায়, সেটা অনুপস্থিত এই পোস্টে। আমি সাধারণত রেটিঙ করি না খুবই ভালো লেখা বা খুব বাজে লেখা না হলে। তবে আপনার পোস্টটি পাঠ করতে গিয়ে 'ট্যাগিং' করার প্রবণতাটা লক্ষ্য করলাম। এটা সচলে আশা করি না (উপরে লক্ষণীয়)।

=====================
বানানভুল আমি হরমেশাই করি। কেউ শুধরে দিলে খুব ভালো লাগে, নিবিষ্টপাঠের একটা ব্যাপার আছে। কিন্তু অমূলক 'পিছে লাগা-ও' চোখে পড়ে। সবাই তো চরম ভালো লিখবে না, কিন্তু সমালোচনার-ও একটি সুষ্ঠ স্রোত আছে।
ইদানীং, এই বিষয়টা বেশি।
======================

@ ধূগো ভাই,
শাফাক্বাত'কে করা আপনার মন্তব্যটি ভালো লাগে নি! উনার মন্তব্যটি মোটেই 'ঋণাত্মক' মনে হয় নি, বরং বাস্তববাদি মনে হয়েছে। 'অতিথি' বা আধাসচল লেখকদের নিজের পোস্ট সম্পাদনার সুযোগ দেয়া উচিত (ব্লগ-কাণ্ডারীর কাছে অনুরোধ রইল)।

==============================
ঢাকার মৌন ঘ্রাণে বকুলফুলের নাভি
==============================
হা-তে এ-ক প্র-স্থ জো-ছ-না পা-ড়ে-র ঘ্রা-ণ

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

উদ্ধৃতি

অমূলক 'পিছে লাগা-ও' চোখে পড়ে। সবাই তো চরম ভালো লিখবে না, কিন্তু সমালোচনার-ও একটি সুষ্ঠ স্রোত আছে। ইদানীং, এই বিষয়টা বেশি।

আশরাফ ভাই, উদাহরণ দিলে ভাল হয়।

আশরাফ মাহমুদ এর ছবি

শুভ ভাই,
স্বাধীন কামরুজ্জামান তো জলজ্যান্ত উদাহরণ। মানলাম, তার লেখা অনেকের চোখে লাগে, কিন্তু আমি ভাবি মদারেশনটা সচলের জন্য সম্মানজনক কিছু- একটা পোস্ট মদারেশনের সীমা পার হলে ধরে নেয়া যায় সেটি 'মানসম্মত'। নয় কি? নাহলে, সূচনাতেই ঘ্যাচাঙ করা হোক। কান্নাকাটি বা ভুল বোঝাবুঝি লোপ পাবে, নিদেনপক্ষে কম হবে।
'তিথীডোর'র একটা পোস্টে কে যেন মন্তব্য করেছিল 'ফালতু পোস্টে, হেন-তেন' বলে। এরকম মন্তব্য আশা করি না। আমি মজার পোস্ট-ও চাই, এলেবেলে পোস্ট-ও চাই, আবার আপনার 'ছফাগিরি' সিরিজের চুপচাপ পাঠক হতে চাই (ছফার দুয়েকটা লেখা ছাড়া আমি কিছু পড়ি নি! ফলে চুপ থাকি)। সমালোচনা আমি-ও করি অনেকের পোস্টে, সরাসরি- তবে তীর্যকতীরের মতো নয়। এটুকুই।

==============================
ঢাকার মৌন ঘ্রাণে বকুলফুলের নাভি
==============================
হা-তে এ-ক প্র-স্থ জো-ছ-না পা-ড়ে-র ঘ্রা-ণ

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

কারো লেখা পড়ে চেয়ার থেকে উপতা হয়ে আহত হবার সম্ভাবনা বাড়াতে মডুরামেরা এই শয়তানি করছে বলে আমার ধারণা। দেঁতো হাসি

শাফক্বাত এর ছবি

হা হা হা হাসি
আপনার কিন্তু বানান ভুল পেলাম "মদারেশন" হাসি
কী হবে এখন? যদি বাঁশ খান??
==========================================
পরদেশী বঁধু, ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।
যদি গো নিশিথ জেগে ঘুমাইয়া থাকি,
ঘুম ভাঙায়ো চুমি আঁখি।।

আশরাফ মাহমুদ [অতিথি] এর ছবি

ঘুমাতে যাচ্ছি, এই সময় আবার মন্তব্য! হা হা।
http://www.sachalayatan.com/chameleon/29523 এই পোস্টের মন্তব্যগুলো পড়লে টের পাবেন আশা করি। এটাকে বানানভুল না ধরে বানানের ভিন্নাঙ্গিক ধরতে পারেন। যেমন- সাদাকে অনেকে লেখে শাদা, হিসেবকে 'হিশেব' এরকম।

মামুন হক এর ছবি

বাংলাদেশে একটা প্রবণতা বেড়ে গেছে। পাকিস্তানীরা বাংলাদেশে এসে বাংলাদেশী নাগরিকদের বিয়ে করে এদেশে আস্তানা গেড়ে বেআইনী কাজ [জঙ্গি সেইফ হাউস চালানো, জাল টাকার ব্যবসা, বিস্ফোরক দ্রব্য চালান] চালিয়ে যাচ্ছে। এটা সম্ভব হচ্ছে বাংপাকিদের জন্যেই।

--নিজে প্রচণ্ড ব্যস্ততার মধ্যে আছি। কিন্তু হিমু ভাইয়ের এই কয়টা লাইন দেখে লগ ইন না করে পারলাম না। এই প্রবণতাটা শুরুর দিকের একজন ভুক্তভোগী সাক্ষী আমি নিজেই। বিস্তারিত ঘটনা শুনলে বুঝবেন পাকিস্তানি জঙ্গীবাদ কীভাবে সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা নিয়ে বাংলাদেশে ঘাঁটি গাড়ছে। একটু ঝামেলামুক্ত হয়ে এ বিষয়ে লিখবো আশাকরি।

শুধু লেখার টপিকের কারণেই পাঁচ তারা দিলাম সাইফ। তবে লেখার মান নিঃসন্দেহে আরও ভালো, আরও গোছালো হতে পারতো। সচল হয়ে তোমার দায়িত্ব কিন্তু অনেক বেড়ে গেছে , তড়িঘড়ি করে আবেগের বশে পোস্ট না দেয়াই ভালো।

সাইফ তাহসিন এর ছবি

ঠিক বলেছেন মামুন ভাই, সময় নিয়ে ধীরে সুস্থে লেখা উচিত ছিল লেখাটা। হুট করে লেখার ফল ভালো হয়নি, কিন্তু আমাকে তো চিনেন, মাথা গরম হলে ঠান্ডা করতে পারি না। আপনে কি দৌড়ের উপরে আছেন, আমি জানি, তারপরেও লেখা পড়েছেন বলে অসংখ্য ধন্যবাদ
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

তাসনীম এর ছবি

জাতি হিসাবে আমাদের আত্মসম্মানের একটু অভাব আছে। আমাদের মুক্তিযুদ্ধ আরো কয়েক বছর চললে হয়ত আমাদের একটা দৃঢ় জাতীয় চরিত্র তৈরি হোত। বিশ বছরের ইতিহাস বিকৃ্তিও কিছুটা দায়ী, তবে আমাদের আত্মসম্মান আরেকটু বেশি থাকলে আর আমরা একটু কম বিস্মৃতিপরায়ন হলে এটা সম্ভব হোত না।

পাকিস্তান নিয়ে কিছু লোকের উৎকট প্রীতি আজকে থেকে ২৫/৩০ বছর আগেও ছিল। আশির দশকেই আমি ঢাকা স্টেডিয়ামে পাকিস্তানী পতাকা নিয়ে দেশীয় তরুনদের লাফ ঝাঁপ দিতে দেখেছি। সেটা মনে হয় এখনো বহাল তবিয়তেই আছে, ইদানীং কিছু তরুনীরাও যোগ দিয়েছে এদের সাথে। অথচ ৩৯ বছর আগে এদের মা আর খালাদেরকেই হয়ত পালাতে হয়েছে পাকিস্তানিদের থাবা থেকে।

এই দীর্ঘ প্রবাস জীবনে একজনও পাকিস্তানি দেখিনি যারা ১৯৭১ নিয়ে লজ্জিত। বরং উর্দু বলা বাংপাকি দেখেছি অনেক।

ইতিহাস যেই জাতি ভুলে যায় তাদের ভব্যিষৎ মনেও হয় খুব ভালো হয় না।

+++++++++++++++++++++++++++++++++++++
মাঝে মাঝে তব দেখা পাই, চিরদিন কেন পাই না?

________________________________________
অন্ধকার শেষ হ'লে যেই স্তর জেগে ওঠে আলোর আবেগে...

সাইফ তাহসিন এর ছবি

ইতিহাস যেই জাতি ভুলে যায় তাদের ভব্যিষৎ মনেও হয় খুব ভালো হয় না।

চলুক
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

রাফি এর ছবি

এই বিষয় নিয়ে অনেকবার অনেকের সাথেই কথা কাটাকাটি হয়েছে; বিশেষ করে বাংপাকি ক্রিকেট সমর্থকদের সাথে।

এখন কোন বাংপাকি'কে আমি কিছুই বলি না। শুধু এইটুকু মনে করিয়ে দেই ৭১ এর কথা; এরপর তার রাস্তা সে মাপুক। কেউ নিজের ইচ্ছায় নর্দমায় ঝাপিয়ে পড়ে হাবুডুবু খেলে আমার কী করার আছে??

---------------------------------------
আমি সব দেবতারে ছেড়ে
আমার প্রাণের কাছে চলে আসি,
বলি আমি এই হৃদয়েরে;
সে কেন জলের মতন ঘুরে ঘুরে একা কথা কয়!

---------------------------------------
আমি সব দেবতারে ছেড়ে
আমার প্রাণের কাছে চলে আসি,
বলি আমি এই হৃদয়েরে;
সে কেন জলের মতন ঘুরে ঘুরে একা কথা কয়!

সাইফ তাহসিন এর ছবি

নিজেদের কেউ নর্দমায় ঝাপ দেয়, তখন কেন যেন তার হাত টেনে ধরতে ইচ্ছা করে, বোঝাতে ইচ্ছা করে, আমরা নর্দমায় থাকার জাতি না।
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

সাইফ ভাইয়ের লেখার সাথে আমার নিজের লেখার কোন মিল নাই। উনার লেখা আমি খুব একটা পছন্দ করি বা করতাম তা কিন্তু নয়। আমার সচলে চলাফেরা তিন মাসের কিছু বেশি। আস্তে আস্তে দেখলাম এই লোক অসম্ভব প্রাণবন্ত এবং সরল। মনে যা আসে না লুকিয়ে সরাসরি বলে ফেলেন। অনেকে সাম্ভালকে বলে উনার রাশ ধরে রাখতে চান। কিন্তু উনি বেরিয়ে পড়েন। সাইফ ভাই নিজেও বলেন উনি ভাল ব্লগার না। উনি মন্তব্যে খুশি লুকিয়ে রাখতে পারেন না। গুরু ইমোটিকন দেদারসে বিলান। সাথে সচল হবার পর ৫ তারা। উনার ভেতরের অফুরান প্রাণশক্তিকে আমি অনেক পছন্দ করি।

ফাকিদের ফাকতে যে কয়জন পারেন তাদের মধ্য সাইফ ভাই একজন। এইজন্য উনারে সেলাম।

আশরাফ মাহমুদ এর ছবি

পাংখা মন্তব্য হয়েছে। ৫ তারা দিলাম।

==============================
ঢাকার মৌন ঘ্রাণে বকুলফুলের নাভি
==============================
হা-তে এ-ক প্র-স্থ জো-ছ-না পা-ড়ে-র ঘ্রা-ণ

সাইফ তাহসিন এর ছবি

শুভাশীষদা, এমন খাপখোলা প্রশংসা দেখে ব্যাপক লজ্জা পাইলাম, আপনার ও কিন্তু এই ক্ষমতা আছে, লেখার ধারে কেটে ফেলেন সকল জঞ্জাল। ধন্যবাদ দিয়ে আপনাকে ছোট করব না।

আর হ্যাঁ ব্লগে এসে যদি ভাবি এক আর বলি এক, তাহলে কি সচলায়তনের সাথে প্রতারণা করা হয় না? কাজেই আমি যা মনে করি, তাই বলি, অন্যদের ভালো লাগুক বা না লাগুক। সত্য ভাড়ায়ে মিথ্যাও বলি না, নিজের অজ্ঞতা স্বীকার করতে পিছুপা হইনা। এই স্বভাব আমার জন্মদাত্রীর কাছ থেকে পাওয়া, হয়ত তার মত আমিও সকলের কাছে বিরক্তির পাত্র হব, কিন্তু তার জন্যে স্বভাব বদলাবো না।

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

মৃদুল আহমেদ এর ছবি

এরা নীরব রাজাকার। এই ইতিহাসহীন, শিকড়হীন এদেরকে আমি সবচে ভয় পাই।
আমি তো চারপাশে শুধু বাংপাখিই দেখি।
আমার জাতির এই মানুষগুলো এরকম কেন?
--------------------------------------------------------------------------------------------
বললুম, 'আমার মনের সব কপাট খোলা ভোজরাজজী। আমি হাঁচি-টিকটিকি-ভূত-প্রেত-দত্যি-দানো-বেদবেদান্ত-আইনস্টাইন-ফাইনস্টাইন সব মানি!'

--------------------------------------------------------------------------------------------
বললুম, 'আমার মনের সব কপাট খোলা ভোজরাজজী। আমি হাঁচি-টিকটিকি-ভূত-প্রেত-দত্যি-দানো-বেদবেদান্ত-আইনস্টাইন-ফাইনস্টাইন সব মানি!'

সাইফ তাহসিন এর ছবি

আমিও অনেক ডরাই বস এই বাংপাকিগো, আর ভালো লাগে না, মনে হয়, কম্পুর মত ফরম্যাট মাইরা নতুন অপারেটিং সিস্টেম ভরতে অথবা, ফার্মওইয়ার আপডেট করতে।
=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদ্বপি গরীয়সী

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

সাইফুল আকবর খান এর ছবি

হুউমমমমমমম।
পাকিদের সাথে বাণিজ্যসম্পর্ক থাকলে এইগুলা একদিক থেকে তো করোলারি-মাত্র।

দ্বিতীয় লক্ষণের ব্যাপারে বলি, হ্যাঁ, তার মধ্যেও কেউ কেউ মাত্রাতিরিক্তভাবে ওইসব প্রেম দেখায়। সেইটা খালি পাকিদের জন্য না, ভারতীয়-সহ আরো আরো বিভিন্ন প্রকারের জন্যই দেখায়। দৃষ্টিকটু তো বটেই। আমি অবাক হই বেশি, কৌতূহলী হই তাদের মাথা নিয়ে। বাংলাদেশে আমি কোনো শপিং সেন্টারে অচেনা কোনো ছেলেমেয়ের মুখে আগাগোড়া হিন্দি/উর্দু কথোপকথন শুনলে যেমন লাগে, ইংরেজি শুনলেও কিন্তু তার কাছাকাছিই লাগে। বিরক্ত তো হই-ই, অবাক আর নিস্ফল জিজ্ঞাসু হই বেশি।

___________
স্বাক্ষর?!
মাঝেসাঝে বুঝতে পাই- আমি
নিরক্ষর!

___________
সবকিছু নিয়ে এখন সত্যিই বেশ ত্রিধা'য় আছি

রেনেট এর ছবি

পোস্টের মান, আর কি কি করলে ভালো হত...ইত্যাদি আলোচনায় যাব না। পাকিবিরোধিতাই আমার জন্য পাঁচতারা দেয়ার জন্য যথেষ্ঠ।
---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

ওডিন এর ছবি

মিয়া এইবার আপনে আমার মুখের মন্তব্য কাইড়া নিলেন। দেঁতো হাসি
ঠিকাছে! চলুক

সাইফভাই- গুল্লি চলুক!
______________________________________
যুদ্ধ শেষ হয়নি, যুদ্ধ শেষ হয় না

ধ্রুব বর্ণন এর ছবি

কাল না পরশু আপনার "শিবিরের কুকর্মনামা" পড়লাম, আজকে পেপারে দেখি এই অবস্থা!

----------------------------------
~জীবন অনেকটা জড়ই, কিন্তু অনন্য!~

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।