প্রকাশিত হলো পহেলা বৈশাখের ই-বই: ‘ভ্রমণীয়’

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি
লিখেছেন যাযাবর ব্যাকপ্যাকার (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৪/০৪/২০১১ - ১২:১৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:


প্রস্তাবনাটা এসেছিল এই মাত্র সপ্তাহ দুয়েক আগেই সচল অমিত আহমেদের কাছ থেকে, যে এবারের পহেলা বৈশাখ ১৪১৮ তে অন্যান্য বারের মতোই সচলায়তন থেকে কোন ই-বই বের হবে কিনা। আসলেই, পহেলা বৈশাখের ই-বই বের করার প্রতিবারের ঐতিহ্য না ভেঙে বরং দ্রুত সিদ্ধান্ত হয় এবারের ই-বইয়ের বিষয়, লেখা জমা দেবার তারিখ এগুলো। এবারের বিষয় নির্ধারণ করা হয় ‘ভ্রমণ’। সম্পাদনা পরিষদ থেকে নজরুল ভাই পোস্ট দেন লেখা চেয়ে। সকলের কাছ থেকে চমৎকার সাড়া মেলায় শুরু হয় ই-বুকের কাজ।

আজকে পহেলা বৈশাখ, ১৪১৮ প্রকাশিত হচ্ছে সেই ই-বই – ভ্রমণীয়‘ভ্রমণীয়’ নববর্ষে সেজেছে নানান স্বাদের নানান রঙের ভ্রমণ কাহিনি নিয়ে। সচলায়তনের লেখকেরা যে আক্ষরিকই বেড়াতে অসম্ভব পছন্দ করেন, এত দ্রুত এত রকমারী লেখা দিয়ে ই-বই সাজিয়ে ফেলতে পারাতে তা আবারো প্রমাণিত। দেশে-বিদেশে মজার, গম্ভীর, হালকা, হাসির সবরকমের ভ্রমণ কাহিনিই যুক্ত হয়েছে ‘ভ্রমণীয়’তে। আশা করছি তা পাঠকদের মনোরঞ্জনে সফল হবে।

সচলায়তনের নতুন পুরনো সকল সদস্যের আন্তরিক সহযোগিতা না পেলে এত অল্প সময়ে একটি সর্বাঙ্গীন ই-বই প্রকাশ করা প্রায় অসম্ভব ছিল। ই-বইয়ের নাম প্রস্তাবনা করেন সচল সুহান রিজওয়াননজরুল ভাই মুস্তাফিজ ভাইকে ই-বই সম্পাদনার গুরু-দায়িত্বভার সামলাবার জন্যে ধন্যবাদ। বুনোহাঁসকে অনেক ধন্যবাদ চরম খাটুনির মাধ্যমে নির্ধারিত সময়ের মাঝে ই-বইটির সম্পাদনা ও টেকনিকাল কাজগুলো শেষ করে ফেলায়। বিভিন্ন সময়ে কারিগরী সহায়তা ও তাঁদের মূল্যবান পরামর্শ দিয়ে সহায়তা করার জন্যে এস এম মাহবুব মুর্শেদ ভাই, অমিত আহমেদ ও অন্যান্য সচলদেরকে অনেক ধন্যবাদ। আর একটা বড় ধন্যবাদ প্রাপ্য ধুসর গোধূলিদার, নিজের কাজ ফেলে রেখে আমাদের অনুরোধে শেষ মুহূর্তের টেকনিকাল কিছু জটিলতার সমাধানে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়ায়। নির্দিষ্ট সময়ের মাঝে যাতে বইটি প্রকাশ হতে পারে সে জন্যে সম্পাদক মণ্ডলী এবং সচলায়তনের অন্যান্য প্রতিটি সদস্যের আন্তরিকতা প্রশংসনীয়।

সম্পাদনা পরিষদের তিনজন সদস্যই আজকে বৈশাখের বিভিন্ন কার্যক্রমে ব্যস্ত... আসলে সত্যি কথা বলতে কি, বৈশাখের ছুটিতে তাঁরা প্রত্যেকেই বিভিন্ন জায়গায় টো টো করতে গিয়েছেন আবারো! কথা ছিল এই বৈশাখী ঘোরাঘুরির ফাঁকেই প্রকাশনা পোস্টটি লিখে ফেলবেন নজরুল ভাই। কিন্তু নেটওয়ার্কের সমস্যার কারণে সম্পাদকদের পক্ষ থেকে এই দায়িত্ব বর্তেছে অধমের উপরে।

টুকি টাকি ভুল-ত্রুটি রইতে পারে, তা ক্ষমাসুন্দর দৃষ্টিতে দেখার অনুরোধ রইল। পহেলা বৈশাখ ১৪১৮ –এর ই-বই ‘ভ্রমণীয়’ পড়বার জন্যে সবাইকে স্বাগত জানাই। আপনাদের প্রতিক্রিয়ার আশায় রইলাম, আপনাদেরকে আনন্দ দিতে পারলে, দেশের আনাচ-কানাচ বেড়াবার আগ্রহ তৈরি করতে পারলেই এই ই-বইয়ের সার্থকতা।
নতুন বছরে আরো অনেক অনেক চমৎকার সব ভ্রমণের গল্পে ভরে উঠুক সচলায়তনের পাতা। পহেলা বৈশাখের ই-বইয়ের হাত ধরে সচলায়তন প্রকাশনা থেকে আসুক আরো চমৎকার সব ই-বই । নতুন বছর হোক সুন্দর, সমৃদ্ধিময়।

শুভ নববর্ষ!

‘ভ্রমণীয়’: পিডিএফ ফাইল ডাউনলোড করুন।


মন্তব্য

পাগল মন এর ছবি

ডাউনলোড করলাম, সময় নিয়ে রসিয়ে রসিয়ে পড়তে হবে। দেঁতো হাসি

আপনাদের সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ এরকম একটি বই বের করার জন্য। আমিতো প্রচ্ছদ দেখেই পছন্দ করে ফেলেছি। হাসি

------------------------------------------
হায়রে মানুষ, রঙিন ফানুস, দম ফুরাইলে ঠুস
তবুও তো ভাই কারোরই নাই, একটুখানি হুঁশ।

সাফি এর ছবি

দারুন একটা কাজ হয়েছে। সংশ্লিষ্ঠ সবাইকে ধন্যবাদ, বানান টানান নিয়ে সম্পাদক মন্ডলীর কাউকে কি হাসপাতাল এ যেতে হয়েছে নাকি?

হাসিব এর ছবি

অভিবাদন ও শুভ নববর্ষের শুভেচ্ছা।

দ্রোহী এর ছবি

ডাউনলোড করলাম। এবার পড়ি।

সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা।

কৌস্তুভ এর ছবি

শুভ নববর্ষ সবাইকে।

ইবই চমৎকার হয়েছে। কালকে ক্লাসের ফাঁকে ফাঁকে পড়ব। ভ্রমণীয়র সঙ্গে জড়িত সবাইকেই ধন্যবাদ।

তবে আমার একটা গুরুতর খেদ আছে এইটা নিয়ে। লেখার সাথে সাথে একটা ভালো করে ছবিটবি-দেওয়া লেখক পরিচিতি দেওয়ার সুযোগ থাকা উচিত ছিল, বিবাহিত সচলদের বাদ্দিয়ে। বলা কি যায়, লেখাটা পড়তে পড়তে হয়ত কারো ওদিকে চোখ চলে গেল, কারো হয়ত একটু পছন্দও হয়ে গেল... লইজ্জা লাগে

আর ইয়ে, যাযাদি, তোমার কথা শুনে লেখা তো দিলাম, এইবার আমার পুরষ্কার কো?

সজল এর ছবি

অবিবাহিত যুবাদের নিয়াতো বড়ই বিপদ। খালি বিয়ের পাঁয়তারা!

---
মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়

অপছন্দনীয় এর ছবি

সর্বনাশ, আপনি সর্বক্ষেত্রে বিলাই পালনের উদ্দেশ্যে এগোচ্ছেন কেন?

রু (অতিথি)  এর ছবি

তাহলে বইয়ের নাম বদলে রাখতে হবে, 'ভ্রমণীয় এবং ঘটকিয়'।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

আর ইয়ে, যাযাদি, তোমার কথা শুনে লেখা তো দিলাম, এইবার আমার পুরষ্কার কো?

এই যে ঠিক সময়মতো চমৎকার একটা লেখা জমা দিয়েছ, সেই জন্যেই তোমার ঠ্যাঙ এখনো ভাঙে নাই, এটা কি কম বড় পুরস্কার?! শয়তানী হাসি

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

ফারুক হাসান এর ছবি

সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা।

ই-বই এর সাথে জড়িত সকলকে অভিনন্দন! চমৎকার কাজ হয়েছে। পড়ে বিস্তারিত মন্তব্য করবো।

রাতঃস্মরণীয় এর ছবি

আমার জন্যে দারুন একটা মিস। এতো বেশি ব্যাস্ততায় পড়ে গিয়েছিলাম যে নজরুল ভাইকে কথা দিয়েও শেষ অবধি লেখা পাঠাতে পারলাম না। মাফ করে দিয়েন নজরুল ভাই।

ডাউনলোড করলাম। রাতে বসে পড়বো, এক সিটিংয়ে। লেখকদের এবং এই উদ্যোগের সাথে জড়িত সবাইকে আমার ধন্যবাদ।

শুভ নববর্ষ।

------------------------------------------------
প্রেমিক তুমি হবা?
(আগে) চিনতে শেখো কোনটা গাঁদা, কোনটা রক্তজবা।
(আর) ঠিক করে নাও চুম্বন না দ্রোহের কথা কবা।
তুমি প্রেমিক তবেই হবা।

এস এম মাহবুব মুর্শেদ এর ছবি

অনেক অনেক শুভেচ্ছা বইটার কাজ শেষ করতে পারায়। ত্রিশিয়ার মাথা আরেকটু হলেই খারাপ হতে গিয়েছিলো আরকি। হাসি

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

বেড়াতে যাবার আগে ঘোষণা দিয়ে গেছে যে সে সবাইকে মাইর দিবে। এইযে আপনি তার নামের বানান ভুল করলেন, এর জন্যে শিওর এবার আপনিও মাইর খাবেন! দেঁতো হাসি

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

মন্তব্য লাফাং

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

মুস্তাফিজ ভাই, বুনোহাঁস, নজরুল ভাই, যাযাবর ব্যাকপ্যাকারকে বিশাল অভিনন্দন !!!!

একপলকে বইয়ের আকার এবং বিন্যাস দেখেই বোঝা যাচ্ছে, আপনাদের খাটুনির পরিমাণ কতটা ছিলো। বইটির প্রাথমিকটা প্রস্তাব দেবার জন্যে অমিত আহমেদ ভাইকেও ধন্যবাদ।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

আমি আবার কী কর‍্যাছিইই, আমাকে ক্যানে অভিনন্দন!! অ্যাঁ
জব্বর একখান নাম দিয়্যাছো বুলে তোমাকে ধন্যবাদ বরং। হাসি

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

সাফি এর ছবি

কি বুলতে কি বুলছেন, খ্যাল আছে তোওও?

সচল জাহিদ এর ছবি

প্রশংসনীয় উদ্যোগ। সময়ের অভাবে লেখা দিতে পারিনি। সংশ্লিষ্ট সবাইকে সাধুবাদ জানাই।


এ বিশ্বকে এ শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি, নবজাতকের কাছে এ আমার দৃঢ় অঙ্গীকার।
বিশ্ব পানি দিবসব্যক্তিগত ব্লগ। কৃতজ্ঞতা স্বীকারঃ অভ্র।

গৌতম এর ছবি

সংশ্লিষ্ট সবাইকে শুভেচ্ছা জানাই।

.............................................
আজকে ভোরের আলোয় উজ্জ্বল
এই জীবনের পদ্মপাতার জল - জীবনানন্দ দাশ

লুৎফর রহমান রিটন এর ছবি

ই-বইয়ের সঙ্গে সম্পৃক্ত সবাইকে-ই-অভিনিন্দন!

হাবু বেশ বড়সড়,গাবুটা তো পিচ্চি
হেরে গিয়ে হাবু বলে--উৎসাহ দিচ্ছি!

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

ইয়ে... 'নিন্দন' রিটন ভাই?! এইটা কি নিন্দা টিন্দা থেকে... হে হে হে।
পড়ে কেমন লাগলো অবশ্যই জানিয়েন! হাসি

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

লুৎফর রহমান রিটন এর ছবি

নিন্দা জানাতে গিয়ে ভুল করে অভিনন্দন বলে ফেলাকে 'অভিনিন্দন' বলে ইয়ে, মানে... চোখ টিপি শয়তানী হাসি

হাবু বেশ বড়সড়,গাবুটা তো পিচ্চি
হেরে গিয়ে হাবু বলে--উৎসাহ দিচ্ছি!

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

দেঁতো হাসি

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

মাহবুব রানা এর ছবি

সবাইকে অনেক অনেক অভিনন্‍দন।
আইপডে পড়ার জন্য তুলে রাখছি।

অপছন্দনীয় এর ছবি

দিব্যি সংকলন।

সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ হাসি

শুভ নববর্ষ।

রু (অতিথি)  এর ছবি

আপাতত দেখলাম শুধু, এখন পড়ার সময় হচ্ছে না। আপনাদের অনেক অভিনন্দন জানাই, সাথে নববর্ষের শুভেচ্ছা।

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

দুর্দান্তিস। আমার কাছ থেকে কেউ লেখা চায় না। মন খারাপ

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

মাইর খাবেন? বুনোহাঁসকে ডাকপো? চিন্তিত

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

নাশতারান এর ছবি

হ বুচ্ছি।

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

কি বুচ্ছেন? দেঁতো হাসি

নাশতারান এর ছবি

একে বলে কল্যাণাসুয়া।

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

তাসনীম এর ছবি

শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন। এটা দ্রুততম সময়ে শেষ হয়েছে।

________________________________________
অন্ধকার শেষ হ'লে যেই স্তর জেগে ওঠে আলোর আবেগে...

মেহবুবা জুবায়ের এর ছবি

ডাউন লোড এখনো করিনি। করবো। ইচ্ছে আছে ডোরাকে বিয়ে দিয়ে, ঘরে ঘরজামাই এনে, দুইটারে তার হাতে সম্পাদন করে, তারপর বসবো সচলে। পাটি বিছিয়ে, পানের বাটা নিয়ে। আহ রে কত কত লেখা! সময়ের অভাবে পড়তে পারি না।
মুস্তাফিজ, নজরুল, অমিত আহমেদ, মুর্শেদ, ধুগো, বুনোহাঁস আর যাযাবর ব্যাকপ্যাকারকে (তোমাকে একটু ছোট করে, এত বিশাল নিক টা লিখতে আমার খরব হয়ে যায়!) বিরাট বড় একটা অভিনন্দন।
আর সচলের সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা।

--------------------------------------------------------------------------------

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

ডোরা কি ঘরজামাই নেবেনি? মনে হয় আপনাকে এমনিতেই সচলায়তনে বসিয়ে দিয়ে নিজেই বাকিটা দেখভালের দায়িত্ব নিয়ে নেবে, মায়ের এহেন প্ল্যান শুনলে আমিতো তাই করতাম! আর 'যাযাব্যাক' কেমন হয়? চিন্তিত

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

আনন্দী কল্যাণ এর ছবি

উরে!!! দারুণ!!! এবার এক কাপ লেবু-চা হাতে নিয়ে বসে যাই হাসি

বিবাগিনী এর ছবি

বাহ! হাসি পড়া যাবে মজা করে। ধন্যবাদ আর অভিনন্দন।

‌‌::একাকিত্বের বিলাস আমার অনেকদিনের সাধ::

আসমা খান, অটোয়া। এর ছবি

শুভ নব বর্ষ, চমৎকার ই-বই, লেখক স্মপাদকের জন্য রইলো প্রান্ ঢালা শুভেচ্ছা।

অদ্রোহ এর ছবি

আগে বড় হয়ে নিই, তারপর আমিও ঠিকঠাক লেখা দেব দেঁতো হাসি

তবে ভ্রমণীয় দুর্দান্ত হয়েছে, বলতেই হবে। এই ঝটিকা প্রয়াসের সাথে সংশ্লিষ্ট(সম্পাদক, লেখক, পৃষ্ঠপোষক ও শুভানুধ্যায়ী...) সবাইকে আরেক দফা মোবারকবাদ।

--------------------------------------------
যদ্যপি আমার গুরু শুঁড়ি-বাড়ি যায়
তথাপি আমার গুরু নিত্যানন্দ রায়।

অমিত আহমেদ এর ছবি

দারুণ এই বইটির জন্য বুনোহাঁস, নজরুল ভাই, ও মুস্তাফিজ ভাইকে ধন্যবাদ। আর সুহানকে, চমৎকার নামটির জন্য।

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

বইটির লেখক, সম্পাদক, উদ্যোক্তা, কলাকুশলী সবাইকে অভিনন্দন। বই ডাউনলোড হতে দিয়েছি, সে ডাউনলোড হচ্ছে...হচ্ছে...হচ্ছে

অটঃ প্রস্তাব = Proposal, প্রস্তাবনা = Preface


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

পাণ্ডবদা ডাউনলোডে সমস্যা হলে জানান, মেইল করে দিচ্ছি।

অট: এখানে 'প্রস্তাবনা'কেও proposal বলছে। আমিও তাই জানতাম, ই-বইয়ের সম্পাদকীয়তেও তাই লেখা।
Preface-এর বাংলা তো মনে হয় 'ভুমিকা'।

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

রাতঃস্মরণীয় এর ছবি

মুখবন্ধ বলে একটা কথা পড়ে থাকি। ওটা কি প্রস্তাবনা বা ভুমিকা জাতীয় কিছু?

এটা বলেই আপাতত মুখ-বন্ধ রাখলাম।

------------------------------------------------
প্রেমিক তুমি হবা?
(আগে) চিনতে শেখো কোনটা গাঁদা, কোনটা রক্তজবা।
(আর) ঠিক করে নাও চুম্বন না দ্রোহের কথা কবা।
তুমি প্রেমিক তবেই হবা।

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

সংসদ বাংলা অভিধানে প্রস্তাবনা = প্রস্তাব দেয়া থাকলেও এটি সঠিক নয় বলে জানি। অন্য অভিধানগুলো একটু চেক করা প্রয়োজন। প্রস্তাব = Proposal, প্রস্তাবনা = Preface এটি আমি খোদ নরেন স্যারের (অধ্যাপক নরেন বিশ্বাস) মুখে শুনেছি।


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

ধ্রুব বর্ণন এর ছবি

বাংলা একাডেমীও বলছে proposal এর আরেক বাংলা হলো প্রস্তাবনাঃ

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

আচ্ছা, আমার মনে হচ্ছে যে preface এর বাংলা মুখবন্ধ, ভূমিকা এগুলোও ঠিক আছে, আর গবেষণা প্রবন্ধ জাতীয় জিনিসে 'প্রস্তাবনা'ও ঠিক আছে।
আর proposal হিসেবে মনে হয় ব্যবহারটা ক্রিয়া পদ ভিত্তিক, উদা: সে প্রস্তাব করলো, এই প্রস্তাবনা উত্থাপিত হলো, অমুক প্রস্তাবনা দেয়া হলো। তবে আমিই যে সঠিক তা নিশ্চিত নই।

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

ধ্রুব বর্ণন এর ছবি

হুমম। Preface যে প্রস্তাবনা, ওতে ভুল নাই।

আনোয়ার সাদাত শিমুল এর ছবি

চমৎকার ই-বুক। সংশ্লিষ্ট সবাইকে অভিনন্দন!

সুমিমা  ইয়াসমিন এর ছবি

চমৎকার!

প্রেমাংশু  এর ছবি

জোশ একটা ধারণা, বিষয়বস্তু রিচ (বাংলায় কি বলব মাথায় আসছে না) এবং মজা করে পড়ার মোক্ষম ও দুর্দান্ত সঙ্গী।

সংশ্লিষ্ট সবাইকে অনেক অনেক অভিনন্‍দন ।।

নিশাচর পার্থ

নাশতারান এর ছবি

রিচ=সমৃদ্ধ

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

নাশতারান এর ছবি

তোমাকে অনেক অনেক ধন্যবাদ "বিপদে মোদের রক্ষা" করার জন্য। সেই সাথে বিশাল ধন্যবাদ ধুগোদা আর মুর্শেদ ভাইকে।

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

স্পর্শ এর ছবি

অভিনন্দন সবাইকে!


ইচ্ছার আগুনে জ্বলছি...

মর্ম এর ছবি

এর মধ্যে বেশ ক'বার চেষ্টা করেও এখনো ডাউনলোড করতে পারলাম না, ব্যাপার তো বুঝতে পারছি না! ডাউনলোডন হলে না ভ্রমন্থনে ব্যস্ত হতে পারি! মন খারাপ

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

নীড় সন্ধানী এর ছবি

লবন চেখেই বুঝে গেলাম এটা নিযে এক নাগাড়ে বসতে হবে। এত বৈচিত্রময় ভ্রমণকাহিনীর সংকলন আমি আগে কখনো দেখেছি কিনা মন পড়ছে না। সচলের মানুষ দুনিয়ার এত বিচিত্র জায়গায় ঘুরেছে, আমার মনে হয় বছরে দুতিনটা ভ্রমণ ইবুক করা যাবে। আমারটা বাদ দিয়ে বাকি ষোলটা নিয়ে এটার মুদ্রিত ভার্সন বের করা যায়।

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

আমি গত দুইদিনে অর্ধেকটা পড়তে পেরেছি। আমি আসলে বেশ চমৎকৃত লেখাগুলো পড়ে! এখন পর্যন্ত যে কয়টা ভ্রমণ পড়লাম, দারুণ সংকলন মনে হচ্ছে! হাসিব ভাইয়ের গল্পটা পড়ে প্রথমে যা ভাবছিলাম মাঝামাঝি এসে বুঝতে পারলাম, আসলে একেবারেই ভিন্ন ঘটনা। জলিল ভাইয়ের ভীরাপ্পনের জঙ্গল, আর বাঘ দেখার গল্প! দময়ন্তীদির লেখাটা পড়ে আমি কিছুদিনের মাঝেই সব ছেড়েছুড়ে হিমালয় চলে যাবার চিন্তাটা মাথায় ঝালাই করে নিলাম আরেকবার। আর কৌস্তুভের লেখাটা আমার সত্যি খুবই ভালো লেগেছে, ওর বর্ণনা এত সাবলীল। মুস্তাফিজ ভাইয়ের চোখে (ক্যামেরা এবং বর্ণনা দুইয়ে মিলে অসামান্য) সুন্দরবন দেখার তো মজাই আলাদা!

দ্রোহীদার 'পেদা টিং টিং' অ্যাডভেঞ্চার আর নৈষাদদার 'রাইট' লন্ডন পড়ে হাসতে হাসতে... আর তীরন্দাজদার (আনিসুল হক) 'হুম'-এর ছবি দেখে আমি ঠিক করেছি, ঐ খানে আমি জীবনে একবার হলেও কিছুদিনের জন্যে বাস করবো। সম্ভব হলে, মানে সুযোগ থাকলে, আমি সেখানে মাঝে মাঝেই ডুব দিয়ে থাকতে চলে যাবো! কী অসাধারণ সুন্দর ছবিগুলো!

এখন আপনার লেখাটায় আসি, তিন বিঘা করিডর দেখতে যাবার ইচ্ছা কিন্তু এখনো যাওয়া হয়নি। আপনার বর্ণনা পড়ে মনে হলো চোখের সামনে দেখলাম আর শেষে এসে কষ্ট লাগলো। কিন্তু ঠিক করে বলেন তো, আপনি যেমন মজা করে কাল্পনিক লিখবেন বলেছিলেন, তাই ঘটলো, নাকি সত্যি কাউকে বিদায় জানিয়েছিলেন সীমান্তে!?! চিন্তিত

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

হাসিব এর ছবি

আমি একসময় আসলেই মাঝরাতে পোস্টার সাটাতাম, চিকা মারতাম। বহুকাল আগের কথা ঐসব।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

আমি ভাবছিলাম আপনার পুরানো বন্ধুর সাথে দেখা করতে গিয়েছেন। লেখাটা ভালো লেগেছে খুব। দুঃখিত যে লেখার শেষের লিঙ্কগুলো চোখ এড়িয়ে গিয়েছিল তাড়াহুড়োয়, নাহলে হাইপারলিঙ্ক করে দেবার অনুরোধ করতাম। খুব সম্ভবত প্রথমে হাইপারলিংক করাও ছিলো, কিন্তু পিডিএফ করার সময়ে কিছু একটা জটিলতা হয়, অন্যগুলো পরে নতুন করে করা হয়েছে আবার।

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

নীড় সন্ধানী এর ছবি

আসলে একটা পরিবারকে বিদায় দিতেই গিয়েছিলাম। আমার এক সংখ্যালঘু বন্ধুর পরিবারকে প্রায় জোর করে তাদের গ্রামের জমিজমাগুলো সস্তায় বিক্রি করতে বাধ্য করেছিল তখনকার সরকারের কিছু প্রভাবশালী নেতা। প্রাণনাশের হুমকিও ছিল সাথে। নিরুপায় হয়ে দেশ ত্যাগের সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ওরা।

তবে সেই সংযোজিত অংশটুকু অন্য জীবন থেকে ধার করা। খাইছে

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি

এই উদ্যোগের ভেতরে-বাইরে থেকে যারা সফলতা এনে দিয়েছেন তাদের আন্তরিক ধন্যবাদ। কারো নাম বলে খাঁটো করলাম না, কারণ তারা এমনিতেই লম্বা কিসিমের (অন্ততঃ আমার তুলনায়!!!)।

সংকলনটি বর্তমানে ডাউন লোডিত, চোখ বুলায়িত ও বেশ কিছুটা পঠিত। কিন্তু সবচেয়ে আশ্চর্য হলাম যে, আমার থেকে 'আলিশ্যা' আর কেউ নাই। আমার লেখাটাতো একেবারে টুনিটেক পর্যায়ের!!! প্রথমে ভেবেছিলাম ২০০ শব্দের লেখা। অনেক কষ্টে লেখা শেষ করে দেখলাম ৪০৭ শব্দ। বুনোকে ফোনে ঝাঁড়ি মারলাম - শোনো, এতো ছোটো লেখা দিতে পারবো না, ২০০ শব্দে লেখা হয়? আমার তো ৪০৭ শব্দ হয়ে গেছে। ওপার থেকে বুনোর আছাড় খাওয়া কন্ঠ - কি, ২০০ শব্দ? কি বলো? ১৫০০ থেকে ২০০০ শব্দের মধ্যে লিখতে হবে। আমি এবার চোখ পল্টি দিলাম - ধ্যাত, এতো বড় লিখতে পারবো না। ... আর তারপর আরো কিছু আব-জাব যোগ করে দিয়ে দিলাম।

কিন্তু, হায়! টুনিটেক তো আর বড় হইলো না!!!!

==========================================================
ফ্লিকারফেসবুক500 PX

নাশতারান এর ছবি

হো হো হো

এই সুযোগে বলে দিই, তোমার লেখায় বানানের ভুল বিস্ময়কর মাত্রায় কম ছিলো দেঁতো হাসি

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

আমার লেখায় টাইপো থেকে গেছে। মন খারাপ

যতদূর পড়া হয়েছে, মন্তব্য ততদূরের লেখা নিয়ে করেছি, অনুপমের লেখা পড়ে এসে মন্তব্য করবো। হাসি

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

অনুপম ত্রিবেদি এর ছবি

সবই মা বানান দেবীর কল্যান ... চোখ টিপি

==========================================================
ফ্লিকারফেসবুক500 PX

মুস্তাফিজ এর ছবি

ফাঁকি দিয়েছি আসলে আমি। লেখাটা তৈরি করেছিলাম সচলে পোস্ট দেবার জন্যে। ঠিক সেই সময় বইয়ের কথা উঠাতে সবার আগে সেখানেই জমা দিয়ে দিয়েছি।
আর আমার লেখাটাও বেশ ছোটই বলতে হবে।

...........................
Every Picture Tells a Story

নাশতারান এর ছবি

আপনার গাইডলাইন আর টিপসে খুব উপকার হয়েছে। না হলে আরো দেরি হতো। এই ই-বুক করতে গিয়েই অনেককিছু শিখেছি এবার। তার জন্য ধন্যবাদ।

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

সবুজ পাহাড়ের রাজা. এর ছবি

পড়ছি..........খুব ভাল হয়েছে..........

আয়নামতি1 এর ছবি

দারুণ হইছে ইবুক 'ভ্রমণীয়'! অভিনন্দন জড়িত সবার প্রতি। এসব ভ্রমণ কাহিনী পড়বার আগেই দেখি আমার ভেতরে কেউ আনচান করছে কোথাও বেড়িয়ে পড়বার জন্য.......আপাতত এই গানটা শুনতে থাকেন যাযাবরদি সহ বাকীরা। সবার জন্য নববর্ষের শুভেচ্ছা।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

যদিও ঠিক ভ্রমণের সাথে সংশ্লিষ্ট নয় গানটার মূল বক্তব্য, তবে আমার বেশ ভালো লাগলো। ধন্যবাদ আয়নামতি।

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

রাতঃস্মরণীয় এর ছবি

যাক, পড়ে শেষ করলাম অবশেষে। অসাধারণ একটা সংকলন হয়েছে। কারটা রেখে কারটার প্রশংসা করি। সবগুলোই অসাধারণ এবং জীবন থেকে নেয়া। সবাই তার নিজস্ব অভিজ্ঞতা থেকে লিখেছেন এবং নিজস্ব লেখার স্টাইলে লিখেছেন। তাই বৈচিত্র বা লেখনীর মান আমার কাছে বিবেচ্য নয়। অল আর গ্রেটস্‌!

সবাইকে আবারও ধন্যবাদ এবং কৃতজ্ঞতা।

------------------------------------------------
প্রেমিক তুমি হবা?
(আগে) চিনতে শেখো কোনটা গাঁদা, কোনটা রক্তজবা।
(আর) ঠিক করে নাও চুম্বন না দ্রোহের কথা কবা।
তুমি প্রেমিক তবেই হবা।

ফাহিম হাসান এর ছবি

এই চমৎকার উদ্যোগের সাথে যারা ছিলেন তদের সবাইকে আন্তরিক ধন্যবাদ। এক টানে পড়ে ফেললাম পুরোটাই।

খুব ইচ্ছা ছিল একটা লেখা দেওয়ার। পরীক্ষা চলছে তাই সময় করে উঠতে পারিনি। বর্ষা নিয়ে ই-বুক হলে নিয্যস দিমু।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

বর্ষা নিয়ে ই-বুকের আইডিয়াটা চমৎকার লাগছে। বর্ষা এলে মনে করিয়ে দিতে হবে! হাসি

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

নাশতারান এর ছবি

আমারো পছন্দ হয়েছে আইডিয়াটা। বর্ষার ছবি আর সাথে কিছু কবিতা জুড়ে ই-বুক করা যায়।

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

ফাহিম হাসান এর ছবি

গাইডলাইন ও টিপসগুলো কপিরাইটসমেত প্রকাশ করে দিন। টেকি কানাদের মঙ্গল হউক।

--------------------
সম্পাদনা: এই মন্তব্যটা উপরে বুনোদিকে করা। ৬৩ নং মন্তব্যের জবাবে...

নাশতারান এর ছবি

লোচন বকশীকে ধরেন।

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

সম্পাদনায় নিজের নাম দেখে লজ্জাই লাগছে, কিন্তু আসলে আমি একটুও কিছু করি নাই। অমিত প্রস্তাব করছে, সুহান নাম দিছে। আমি খালি একটা ইমেইল আইডি বানায়া পোস্ট ছেড়েই খালাস। যাযাব্যাক সবাইরে গুঁতায়ে লেখা আদায় করছে। একাধিকবার লেখাগুলো সম্পাদনা করছে বুনোহাঁস। লেআউট প্রচ্ছদ আর যাবতীয় এসব কাজ সামলাইছে মুস্তাফিজ ভাই আর বুনোহাঁস।

আমি রীতিমতো পায়ের উপর পা তুলে বসেছিলাম। কথা ছিলো বুনোহাঁস সব রেডি করে আমাকে পিডিএফটা পাঠালে আমি সেটা পোস্ট আকারে আপ করবো
কিন্তু বিধি বাম, মাঝরাতে আমি নিজেই ভ্রমণে বের হয়ে গেলাম। ল্যাপটপ আর মডেম নিয়েই গেলাম। বুনো পিডিএফ পাঠালেই আমি বাসে বসেই পোস্ট দিবো। পোস্ট লিখেও ফেললাম। কিন্তু শেষ মুহূর্তের কারিগরী জটিলতায় পিডিএফ আর পাঠায় না বুনো। জটিলতা নিরসনে এগিয়ে আসে এসএম মাহবুব মুর্শেদ আর ধূসর গোধূলী। শেষপর্যন্ত যখন পিডিএফ তৈরি তখন আমি চট্টগ্রামে। এবং পহেলা বৈশাখের সকালে সেখানে কিউবির মোডেম কাজ করতেছিলো না, একজনকে ফোন করে জুম আল্ট্রার মডেম আনলাম, সেটাও কাজ করলো না... এর মধ্যে বুনো আর মুস্তাফিজ ভাইও সিলেটের পথে। শেষ পর্যন্ত যাযাব্যাকই ভরসা

ফাঁকীবাজীর সবচেয়ে বড় কাজটা লেখা নিয়েই। ১৫ মিনিট বসলেই লেখাটা হয়ে যাবে কিন্তু এই বসাটাই হচ্ছিলো না। এমনকি শেষ পর্যন্তও সময়টা বের করতে পারলাম না মন খারাপ

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

নাশতারান এর ছবি

অমিত ভাইয়ের কথায় আর যাযাপুর খোঁচায় আমি লিখতে বসেছিলাম। আপনি লেখা দিলেন না দেখে শেষ করি নাই। অমিত ভাই বুদ্ধি দিয়েছেন এই অসম্পূর্ণ লেখাগুলো একসাথে নিয়ে একটা পোস্ট দিতে দেঁতো হাসি

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

তবে মজার কথা হলো ভ্রমণীয়র তিন সম্পাদকই যে ভ্রমণবিলাসী তা প্রমাণিত। পিডিএফ যাযাব্যাকের কাঁধে গছিয়ে তিনজনেই ভ্রমণের উদ্দেশ্যে দৌড়... হা হা হা হা...

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

আরিফ জেবতিক এর ছবি

আমি একটা ঘুমনীয় নামের ই-বুকের কথা ভাবছি। যারা ঘুরাঘুরি না করে আমার মতো, তাঁদের জন্য। ঝিমনীয় নামটাও বিবেচনায় আছে।

ধুসর গোধূলি এর ছবি
সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

বাহ্... এখুনি তো আমার বেশ ঘুম ঘুম পাচ্ছে... করে ফেলেন

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

আর যারা আমার মতো কামলাগিরি করতে করতে ঘুমাবার সুযোগ পায় না, তাদের কী হবে?? মন খারাপ

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

রাতঃস্মরণীয় এর ছবি

আপু, কামলার ঘুম কিন্তু যেটুকু হয়, দারুন গভীর হয়। আমি নিজেওতো এক কামলা তাই বেশ বুঝতে পারি।

------------------------------------------------
প্রেমিক তুমি হবা?
(আগে) চিনতে শেখো কোনটা গাঁদা, কোনটা রক্তজবা।
(আর) ঠিক করে নাও চুম্বন না দ্রোহের কথা কবা।
তুমি প্রেমিক তবেই হবা।

যাযাবর ব্যাকপ্যাকার এর ছবি

একটা ই-বই বের করা উচিত যেটা হবে 'ঘুমহীন'!

___________________
ঘুমের মাঝে স্বপ্ন দেখি না,
স্বপ্নরাই সব জাগিয়ে রাখে।

নাশতারান এর ছবি

বিনিদ্র বচন

_____________________

আমরা মানুষ, তোমরা মানুষ
তফাত শুধু শিরদাঁড়ায়।

সিরাত এর ছবি

নামালাম। সংশ্লিষ্টদের অনেক ধন্যবাদ!

তারেক অণু এর ছবি
ধৈবত(অতিথি) এর ছবি

নজরুল ভাইয়ের কাছে দাবি জানায়া গেলাম, অণু ভাইয়ের একটা 'ভ্রমনীয়' স্পেশাল পিডিএফ বানানো হোক।

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।