Archive - নভ 11, 2011

অলস

ত্রিমাত্রিক কবি এর ছবি
লিখেছেন ত্রিমাত্রিক কবি (তারিখ: শুক্র, ১১/১১/২০১১ - ৯:০৪অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[justify]জাকির মত অলস ছেলে আমি জীবনে দেখিনি। ভার্সিটি থেকে আসার সময় বাসস্ট্যান্ড পরে বাসার উল্টাদিকে। ওখান থেকে রাস্তা পার হতে হয় বাসায় আসার জন্যে। ওখানে ও বাস থেকে কখনও নামে না। বাস আরও প্রায় একঘন্টা ধরে চোদ্দ মুল্লুক ঘুরে ওর বাসার দিকের বাস স্টপেজে আসে। তখন ও নামে। প্রথম প্রথম গাঁইগুঁই করত, কিন্তু বাস ড্রাইভাররাও ওকে চিনে গেছে, পাগলা কিসিমের লোক ভাবে ওকে, কিছু বলে না। বাসে উঠেই ও একেবারে পেছনের সীটে চলে যায়, তারপর হালকা একটা ঘুম দেয়ার চেষ্টা করে, ঘুমানোর আগে সেলফোনে অ্যালার্ম দিয়ে রাখে, ভাইব্রেশান মোডে, মোটামুটি দেড় ঘন্টা, সময় হিসেব করা, পুরো রাস্তা ঘুরে বাসায় পৌছাতে এরকমই সময় লাগে।


উপপদ্য

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: শুক্র, ১১/১১/২০১১ - ৯:০১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

তেলের যদি দাম না বাড়ান স্যার
আপনারি তো রইলো না দাম আর!
আমরা এত তেল দিয়ে যাই তার
দাম দিলে তো আপনারি দাম স্যার!

হাবীব কাইউম


একলা দিনে একটু থেকো

রোমেল চৌধুরী এর ছবি
লিখেছেন রোমেল চৌধুরী [অতিথি] (তারিখ: শুক্র, ১১/১১/২০১১ - ৯:০১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

একটু থেকো একলা ক্ষণের পাশটি ঘেঁষে
রুগ্ন দিনের হলুদ পুঁজের বিকট ক্ষতে
সিরোসিসের কীট মেতে রয় মহোৎসবে
আমার সময় চিতার মতই হিংস্র কালো
তোমার ছোঁয়ায় শুদ্ধ না হোক তপ্ত হবে।


“আমনে আমাত্তে বেশি বুজেন?”

স্পর্শ এর ছবি
লিখেছেন স্পর্শ (তারিখ: শুক্র, ১১/১১/২০১১ - ১০:৩৭পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সবই তো বুঝলাম, কিন্তু...

  1. জাফর ইকবাল স্যারের গত দশ বছরে কোনো বৈজ্ঞানিক পাবলিকেশন নেই কেন?
  2. জাফর ইকবাল স্যার ভার্সিটি বন্ধ করিয়ে ছেলেমেয়েদের দুর্বিষহ সেশন জটের দিকে ঠেলে দিয়েছিলেন। এ অধিকার কি তিনি রাখেন?
  3. জাফর স্যার কেন অমুক বিষয়ে লিখলেন না, কেন পরিমলকে নিয়ে লিখলেন না? নিশ্চয়ই তিনি ওসব সাপোর্ট করেন।


মধ্যরাতের অতিথি

তুলিরেখা এর ছবি
লিখেছেন তুলিরেখা (তারিখ: শুক্র, ১১/১১/২০১১ - ৭:২১পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[i]ছুটে যাওয়া জানালার কাচে ঝাঁপিয়ে নেমে আসে তুমুল বৃষ্টির ঝরোখা। ভিতরের ঠান্ডা নিঝুম অন্ধকারে কুন্ডলী পাকিয়ে বসে চেয়ে থাকি ঐ ছুটন্ত চৌকো টুকরোটুকুর দিকে। বাইরের বৃষ্টিঝরোখা পার হয়ে দেখতে চেষ্টা করি পরপারে আছে কী বিস্ময়। জানালার কাচ বেয়ে গড়িয়ে যাওয়া বৃষ্টিধারার তরঙ্গিত লাবণ্য আমার চোখ টেনে রাখে, বাইরে সাদা হয়ে লেপেপুঁছে গেছে সবকিছু, মাটি থেকে আকাশ অবধি একটা সাদা পর্দা। ও পর্দা পার হবো কী করে?


অণুঃআতঙ্ক – ৪ । বিদায় হে পৃথিবী...

মন মাঝি এর ছবি
লিখেছেন মন মাঝি [অতিথি] (তারিখ: শুক্র, ১১/১১/২০১১ - ৪:৪২পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আকাশটা একটা মুখের মতই হা হয়ে গেল আর আমাকে গিলে ফেলল...
মনুষত্ব্যকে রেকর্ড করে ফেলতে পারে এমন - মুদ্রিত আলোকতরঙ্গ...
মহাবিশ্বের মহাকাশ ফেড়ে বিশ্বটা যখন উগরে বেরিয়ে যাচ্ছিল...
ডালে ডালে মানুষের আত্না ধরে আছে...
স্পেসটাইমের ফেনায়িত কৃষ্ণতাকে...
ইস্রাফিলের শিঙার মহাহুঙ্কার...
অশ্রুর মত রক্ত বর্ষন করে...


প্রসাধনী আয়না

জহিরুল ইসলাম নাদিম এর ছবি
লিখেছেন জহিরুল ইসলাম নাদিম [অতিথি] (তারিখ: শুক্র, ১১/১১/২০১১ - ১:২৬পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

দরজা খুলে অর্ণব অবাক হয়ে গেল। লম্বা, একহারা গড়নের একজন ভদ্রমহিলা দাঁড়িয়ে। অর্ণব তাঁকে কখনো
দেখেছে কি না মনে করার চেষ্টা করল। নাহ্ মনে করতে পারছে না। তাছাড়া ওঁর চেহারাও অর্ণবকে দারুণ ধাঁধায় ফেলে দিল। ভদ্রমহিলা বিদেশী! পাশ্চাত্যের অঙ্গে তাঁর প্রাচ্যের শাড়ী! অর্ণব অভিভূত হয়ে দেখতে লাগল।


কাঠবিড়ালির আমন্ত্রন

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: শুক্র, ১১/১১/২০১১ - ১:২৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

শেষ রাতের ট্রেনটিতেই ঠিক ফিরবো আমি।

কোন অপেক্ষায় থেকোনা। অপেক্ষার প্রহরের
রিক্ততা আমি ভালভাবেই জানি। আমন্ত্রনটি
ছিল বসন্তের কাঠবিড়ালিটার।তার সখ্যতায়
ঝাড় লেজ, অভ্যর্থনার বাধায় শুধু শীতটি।