Archive - সেপ 20, 2010 - ব্লগ

স্মৃতির শহর-১১: পরিসীমা

তাসনীম এর ছবি
লিখেছেন তাসনীম (তারিখ: সোম, ২০/০৯/২০১০ - ১০:৪০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সব মানুষেরই মনে হয় একটা পরিসীমা থাকে। আমাদের সকল দৈনন্দিন আর পার্থিব জগতের দূরত্বগুলো মাপার জন্য আছে নানান পরিমাপ, আছে নানান দ্রুতগামী আর শ্লথ সব বাহন। জাগতিক সবই কিছুই আমরা করি এক পরিসীমার ভেতরে থেকে। শুধু স্মৃতির শহরেই এসব কিছুর বালাই নেই, সেখানে স্থান-কাল-পাত্র সবকিছুই অর্থহীন, পার্থিব সবই মূল্যহীন। একটা মিমি চকোলেটের জন্য আক্ষেপও শেয়ার মার্কেটে কোটি টাকার হারানোর বেদনা ...


একটি টিজিং পোস্ট

ফারুক হাসান এর ছবি
লিখেছেন ফারুক হাসান (তারিখ: সোম, ২০/০৯/২০১০ - ১০:২০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

'১২ বছরের একটা মেয়ে, আমার ছোট্ট মা। চোখে স্বপ্ন, দিগন্ত ছাড়িয়ে যায় মাঝে মাঝে। অনেক কিছুই তার বোধশক্তিতে আসেনি এখনো অথচ এই ছোট্ট মা আমার স্কুলে প্রতিদিন যাওয়া-আসার মাঝে বাজে ইঙ্গিত আর বাজে কথার (ভদ্রলোকেরা এইটারে বলে “ইভ টিজিং”) মুখোমুখি হচ্ছে হারামিদের কাছ থেকে। এই হারামিদের কোন শাস্তি হয় না, এরা প্রতিনিয়ত এই ছোট্ট মায়ের স্বপ্নে দানব হয়ে আসছে, এদের বিরুদ্ধে দাঁড়াতে পারি না, ভ ...


মৃত্যুর কিংবা অবসাদের দিন

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: সোম, ২০/০৯/২০১০ - ৪:৪৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

একটি বৃক্ষ বলে আমায়, মৃত্যু হয়েছে আমার।
আসলেই।
আত্মীয়েরা নাম নেয়, সেখানে আমি নেই।
বন্ধুরা চায় কিনা, বৃক্ষে শুধাই;
সে দোয়েলের গল্প বলে, বলে প্রজাপতির।

নিজস্ব নামহীনতায় ফিরে আসি হেমন্তের বিকেলের কাছে।
আহা, হেমন্তের বিকেল -
আমায় নিয়ে চল তোমার স্নিগ্ধ বাতাসে,
বুক ভরে নেই হিমেল হাওয়া সজল -
প্রজন্মের ভ্রান্তির ক্লান্তি মুছে যাক, যাক অবসাদ -
দু’য়েকটা পেঁচা কেবল করুক চিৎক ...


বৃষ্টির দিনে এমন মর্মগ্রহণ

সৈয়দ আফসার এর ছবি
লিখেছেন সৈয়দ আফসার (তারিখ: সোম, ২০/০৯/২০১০ - ৪:৪৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এমন দিনে মর্মগ্রহণ, তপ্তসন্তরণ
বহুদূরে তখন ঝরছিল বৃষ্টিফুল
নিকটবর্তী জলানুভব, ভেজাচুল
ছুঁলেই উদ্দেশ্যহীন তুমি; কারণ—

করতলে খুঁজে পাই না রাশিফল
মৃদুকৌশলে ন্যস্ত করো আর্শিবাদ
পঞ্চাঙুলিতে লুফে নাও অমৃতস্বাদ
অপেক্ষা সে-তো গ্রহণের পূর্ণফল

একেলা ভিজো অঝোর বৃষ্টিতে
একেলা জাগাও পুরো বর্ষাকাল
কোন অর্থে তবে উথালপাথাল?
তাহারে ডাকি আমি প্রিয়মুহূর্তে

দাঁড়িয়ে থাকি, পুনরায় দেখি
...


কর্তামশাই

নাশতারান এর ছবি
লিখেছেন নাশতারান (তারিখ: সোম, ২০/০৯/২০১০ - ১:৪০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

মূল গল্প: আন্তন চেখভের দি হেড অফ দ্য ফ্যামিলি

জুয়ায় হেরে অথবা পাল্লা দিয়ে মদ গিলে পেটের বারোটা বাজিয়ে থমথমে গুমোট মেজাজে দিন শুরু করাটা স্তেপান স্তেপানিক জিলিনের রীতিমতো নিয়মে দাঁড়িয়ে গেছে। সকাল থেকেই একটা তেতো রঙ চেপে বসে থাকে তার খিটখিটে, আলুথালু, তোবড়ানো ফ্যাকাশে চেহারায়। খুব ধীরে ধীরে সে কাপড় পরে, ঝলমলে ফরাসি জলে ছোট ছোট চুমুক দেয়, তারপর বাড়িময় পায়চারি করে বেড়ায়।
“কোন জ্ ...


অচিন চীন দেখা (ছবি ব্লগ – পর্ব-৩)

কাজী মামুন এর ছবি
লিখেছেন কাজী মামুন (তারিখ: সোম, ২০/০৯/২০১০ - ১:৫৯পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

চা-আড্ডা শেষে, আমি আর ইকো, দুজন নদীর পাশ ধরে হাঁটতে হাঁটতে গেলাম শিচুয়ান বিশ্ববিদ্যালয়ে, ইকো’রা যেখানে পড়ছে। গল্প আর আড্ডার বিষয়বস্তু সম্পর্কে কেউ কেউ জানতে চাচ্ছিলেন, মূল বিষয়বস্তু চীন, বাংলাদেশ, কোরিয়া, ভ্রমন, ভালো লাগা, মন্দ লাগার মতো সাধারণ বিষয়গুলোও।

মাঝখানে কিছুক্ষন চললো ভাষা শেখার এবং শেখানোর চেষ্টা। আমি ‘শুভ সকাল’, ‘কেমন আছেন?’ ইত্যাদি প্রাথমিক কিছু বাংলা শেখালাম, শি ...


আকশাক্ষনবাসজচব

সাবিহ ওমর এর ছবি
লিখেছেন সাবিহ ওমর [অতিথি] (তারিখ: সোম, ২০/০৯/২০১০ - ১:৫৮পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সবাই যার যার বন্ধুদের খবর নাও
দেখে নাও কেমন আছে
নীলনদের পাড়ে মাছির ভনভন শুনে শুনে
আকাশে ওড়ার পুরোন সময়
অথবা হাতের তেলোয় চক্ষুন্নি মাছের ব্যর্থ লাফঝাপ
আর যত পুরোন প্রেয়সীরা
এখনো কি আলতা পায়ে পুকুরের ঘাটে যায়?
এখনো কি বিকালের আলো তাদের চিবুক ছুঁয়ে
ক্রমশ আরও গভীর কমলা হয়ে যায়?

আমার মাছি এখন আর ভনভন করে না
চক্ষুন্নি মাছেরা মরে পড়ে থাকে ধানক্ষেতের আলে
বিকেলগুলো কেমন পাংশুটে আর
...


গালিবী শের –তৃতীয় পর্ব

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: সোম, ২০/০৯/২০১০ - ১২:৩১পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

- অনন্ত আত্মা

গালিবী শের
গালিবী শের –দ্বিতীয় পর্ব

[পুরো নাম আসাদুল্লাহ্ খাঁ গালিব হলেও গালিব নামে তিনি সমাধিক পরিচিত। গালিবের মৃত্যুর পর প্রায় দেড়শো বছর অতিক্রান্ত হয়ে গেলেও এখনও গালিব অমর হয়ে আছেন তাঁর রচিত গজল এবং শের এর জন্য। গজল হচ্ছে পাঁচ-সাতটি বা পনের-কুড়িটি শের এর সমষ্টি; সেই অর্থে গজল যদি ‘পূর্ণ বাক্য’ হয় তাহলে শের হচ্ছে এক-এ ...


উড়াউড়ি

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: সোম, ২০/০৯/২০১০ - ১২:৩১পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

তেলাপোকাদের উপর বিরক্তি ধরে যায় টিকুর; এত নোংরা হয় এরা? আরে বেটি টিকটিকি হয়ে দেখতিঃ জীবন কারে কয়, যৌবনের স্বাদ কি। ত্বকটা আবার খসখসে হয়ে গেছে, ফেসিয়াল নিতে হবে। মিস টিনার কথা মনে পড়ে যায় তার, আহ! পেপের পাতার মত সূক্ষ্ম ও যৌগিক তার হাত, বডি তে যখন ফেসিয়াল করে নিজেকে আমাজনের টিকটিকি মনে হয় টিকুর। গত পরশু গিয়েছিল টিকু, মেটি(লেডিস টিকটিকি) টার চোখে স্পষ্ট আমন্ত্রণ দেখেছে। কিভাবে খেলিয় ...