Warning: Creating default object from empty value in i18ntaxonomy_term_page() (line 34 of /var/www/sachalayatan/s6/sites/all/modules/i18n/i18ntaxonomy/i18ntaxonomy.pages.inc).

বাংলাদেশ

ঢাকা থেকে ৪: যানজট-আর-আড্ডা

অমিত আহমেদ এর ছবি
লিখেছেন অমিত আহমেদ (তারিখ: মঙ্গল, ১৪/০৭/২০০৯ - ১১:১৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এক

একটা সময় নর্থ সাউথ আমার দ্বিতীয় বাসা ছিলো। খুব বেশি দিন ছিলাম না অবশ্য; তবে যে ক'দিন ছিলাম আমাকে অবধারিত ভাবেই বিটিএ কিংবা এসপিযি দালানের সামনের টঙ দোকানগুলোতে পাওয়া যেতো। বন্ধু-বান্ধব যারা দেখা করতে আসতো তাদেরকে বলা থাকতো তারা যেনো এসে যে কোনো টঙে অথবা পিচ্চিদের কাছে আমার খোঁজ করে। ওরাই দেখিয়ে দিতো আমি কোথায় আছি।

এহেন আড্ডার কারণ ছিলো কয়েকটা। প্রথমত, আমার দোস্ত সমাজের বাস...


উটপাখি এবং খাল কাটা ঊষরতা

মামুন হক এর ছবি
লিখেছেন মামুন হক (তারিখ: মঙ্গল, ১৪/০৭/২০০৯ - ২:১০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এই লেখাটি লিখতে গিয়ে কঠিন যন্ত্রণায় ভুগলাম কয়েকদিন। যেহেতু বিষয়টা দরকারী হলেও বেশ কাঠ খোট্টা, তাই একবার লিখলাম গল্পের ছলে, নিজের কাছেই ভালো লাগেনি, মুছে দিয়ে আবার সিরিয়াস টোনে লিখলাম টমাস আলভা এডিসনের উদ্ধৃতি দিয়ে- এটাও দুই এক প্যারা পরেই কেমন যেন বিস্বাদ লাগতে লাগল। অলেখক বা কুলেখকের রাইটার্স ব্লকেজ কথাটা বড়ই হাস্যকর শোনায়, তাই কাদায় গেড়ে যাওয়া মহিষের গাড়ির চাক্কা ঘোড়াতে প্র...


ঢাকা থেকে ৩: দিনান্ত ভালো থাকা

অমিত আহমেদ এর ছবি
লিখেছেন অমিত আহমেদ (তারিখ: সোম, ১৩/০৭/২০০৯ - ১১:৩০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এক

গতকাল ছিলো জাতীয় জাদুঘর মিলনায়তনে সঙ্গীতানুষ্ঠান। মুক্তিযোদ্ধা এস এম খালেদ-এর চিকিৎসার্থে অর্থ সংগ্রহের অনেক উদ্যোগের একটি হিসেবে। জাদুঘরের সামনে যেতেই বাহিরে লোহার দেয়ালে ছোট পোস্টার দেখতে পাই। "যিনি লড়েছেন দেশের জন্য আমরা লড়ছি তাঁর জন্য।"

জানতাম ভেতরে ঢুকলেই অনেক ব্লগারের সাথে প্রথমবারের মতো দেখা হবে। এই অভিজ্ঞতার একটা আলাদা আবেদন আছে। তাই একটু সময় নিয়েই, সবাইকে...


ঢাকা থেকে ২: হ্যালো ঢাকা

অমিত আহমেদ এর ছবি
লিখেছেন অমিত আহমেদ (তারিখ: রবি, ১২/০৭/২০০৯ - ১০:৪১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এক

প্রচন্ড গরম। যাকেই এ কথা বলি সেই খ্যা-খ্যা করে হাসে। বলে, "মামা, আর কদ্দিন আগে আইলে গরম কী ও কতো প্রকার বুঝতা!" আমার বোঝার তেমন আগ্রহ হয় না। এমনিতেই বাইরে গেলে জামা ঘামে ভিজে শরীরে লেপ্টে থাকে; শরীর চিটচিটে হয়ে আসে।

গতবছর ফেব্রুয়ারিতে ঢাকা এসেছিলাম। এই দেড় বছরে ঢাকার চকচকে ভাবটা কেমন যেনো মলিন হয়ে গেছে বলে মনে হয়। রাস্তা-ঘাট ভাঙা। দেয়াল ভর্তি আজে বাজে বিজ্ঞাপন। হাঁটা রাস্তা...


আজ ঘোষণা দিয়ে আমি দালাল হলাম ...

রাগিব এর ছবি
লিখেছেন রাগিব (তারিখ: বুধ, ০৮/০৭/২০০৯ - ৬:৫৬পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

ছেলে বেলা থেকেই মিছিলে শ্লোগানে "দালাল" শব্দটির প্রতি বাঙালির আকর্ষণ দেখে এসেছি। আশির দশকে শুনতাম, কিংবা দেয়ালের চিকায় দেখতাম,

রুশ-ভারতের দালালেরা, হুঁশিয়ার-সাবধান।

কিংবা, বামপন্থীদের মিছিলে,

সাম্রাজ্যবাদের দালালেরা, হুঁশিয়ার-সাবধান।

আশি-নব্বইয়ের দশক পেরিয়ে গেছে, হাজারী-শূন্যের দশকও শেষ প্রায়, কিন্তু দালাল-শব্দটির প্রতি বাঙালির আকর্ষণ আর কমেনি। পাক-বাহিনীর দ...


বাংলাদেশে সৌরতাপশক্তি - সম্ভাবনার নতুন দুয়ার

দিগন্ত এর ছবি
লিখেছেন দিগন্ত (তারিখ: মঙ্গল, ০৭/০৭/২০০৯ - ৩:০০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বাংলাদেশে কোনো বিকল্প শক্তির সৌরবিদ্যুতের মত সম্ভাবনা তাত্বিকভাবে অন্তত নেই। বাংলাদেশে গড়ে বছরে ২৫০-৩০০ দিন সূর্যালোক আসে, বর্ষার তিনমাস বাদ দিয়ে বাকি সময়ে সূর্যালোক যথেষ্ট নিরবিচ্ছিন্ন ও প্রখর। প্রতিদিনে গড়ে ৫ কিলোওয়াট-ঘন্টা শক্তি বাংলাদেশের প্রতি বর্গমিটার জমিতে আছড়ে পড়ে।(সূত্র) ভূপতিত এই সৌরশক্তির মাত্র ০.০৭% বিদ্যুতশক্তিতে রূপান্তর করা গেলেই বা...


ক্ষুদ্র ব্লগ: বাংলাদেশ

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি
লিখেছেন প্রকৃতিপ্রেমিক (তারিখ: শুক্র, ২৯/০৫/২০০৯ - ৭:২০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

গতকাল ফোনে মেয়ে বলছিল, "বাংলাদেশটা একদম নষ্ট হয়ে গেছে। খুব ময়লা। ক্লিন করতে হবে।"

চিন্তিত

(এটি দ্রোহী-টাইপের মাইক্রো ব্লগ।)


কোথায ফিরবো আমি ? কার কাছে ?

উজানগাঁ এর ছবি
লিখেছেন উজানগাঁ (তারিখ: বিষ্যুদ, ১৪/০৫/২০০৯ - ৪:১৫অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

চাঁদের সাথে হেঁটে বেড়ানোর সেই রাত্রে বাবা শহর হতে ফিরলেন । ইলিশ মাছের পেটের মতো ঐদিন সারা গ্রাম চকচক করছিলো জোছনায়। বাড়ির পেছনের হাওড় জুড়ে থৈ-থৈ করছিল পানি। ঢেউগুলো বার-বার এসে আছড়ে পড়ছিলো রান্নাঘরের পেছনের নারিকেল গাছগুলোর গোড়ায় ।

রান্নাঘরে খেতে বসে বাবা বললেন দু-একদিনের মধ্যে আমাদের সবাইকে নিয়ে শহরে চলে যাবেন। পরদিন থেকেই টের পেলাম আসলেই আমরা গ্রাম ছেড়ে চলে যাচ্ছি।

বাই...


সেই বাংলাদেশ

পলাশ দত্ত এর ছবি
লিখেছেন পলাশ দত্ত (তারিখ: শুক্র, ০৮/০৫/২০০৯ - ৯:৩৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

প্রকাণ্ড চর- ধূ ধূ করছে- কোথাও শেষ দেখা যায় না-...। হঠাৎ পশ্চিমে মুখ ফেরাবামাত্র দেখা যায় স্রোতোহীন ছোটো নদীর কোল, ও পারে উঁচু পাড়, গাছপালা, কুটির, সন্ধ্যাসূর্যালোকে আশ্চর্য স্বপ্নের মতো।

================================

বাঙালি যা চিরকাল দেখে এসেছে তাই দিয়ে শুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের এই বইখানি! রবীন্দ্রনাথ তখন বন্দোরা সমুদ্রের তীরে : “ভারি বৃষ্টি আরম্ভ হয়েছে। এক সপ্তাহ ধরে ক্রমাগত বৃষ্টি হচ্ছে...


সেই সিরাপ খেয়ে জিরাফ হল বেগুনি আতাগাছ

কারুবাসনা এর ছবি
লিখেছেন কারুবাসনা (তারিখ: মঙ্গল, ০৫/০৫/২০০৯ - ১২:২৭পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

পাতা নং-০৬

ধর্ম পুড়তে পুড়তে বেগুনি হয়ে যাচ্ছ যাচ্ছেতাই, আর মরে যাওয়া সিগন্যালের মত এক বিষন্ন বিস্তারিত আতাগাছের তলায় পুলিশেরা টাকা কেড়ে নিয়ে ডাইলের বোতল দেয়। সবাই খুশি তাই নদী হয় কেউ, রাত বাড়লে ঢেউ।
জিরাফজিরাফ
পাতা নং-৫৮

আমি পায়ে টের পাচ্ছি অদৃশ্য ঘুঙুরের, আমার মুখময় রঙ। আমার যেন আতাগাছ হওয়ার কথা ছিল আজ রাতে। যেভাবে পানি সামান্য আলোয় চিকচিক করে ওঠে অপর...