একটু ফেসবুক আর আমি

তানবীরা এর ছবি
লিখেছেন তানবীরা (তারিখ: শনি, ১১/০৭/২০০৯ - ৪:১৩পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

একটু ফেসবুক আর আমি

না, এটা হৈমন্তী শুক্লার গানের কোন নতুন রিমিক্স ভার্সন নয়। আমার সুদীর্ঘ প্রায় দুই বছর ফেসবুক জীবনের সংক্ষিপ্ত ইতি কথা। আমি তখন অনেকদিন গড়িমসি এবং বিশ্রাম নেয়ার পর সবে আবার চাকুরীতে ঢুকেছি। গায়ে কাজ গছে না, সারাক্ষন বিরক্ত, ক্লান্ত। মেয়ের স্কুল, অফিস এবং সংসার সব মিলিয়ে ত্রাহি ত্রাহি অবস্থা। আর অফিস দেখলেও মরে যেতে ইচ্ছে করে। কাহা ফিলিপস এর শান শওকত আর কিধার এই ফকিরা ডি।এইচ।এল। জিদ ধইরা যে আবার ঠকা খাইলাম সেইটার পস্তানীও হচ্ছে মনে মনে। তাও প্রথমে ছয় মাসের প্রভিশন পিরিয়ডে আছি তখন। আমি মনোযোগের ভাওতা দেখাইয়া পার্মানেন্ট এর ধান্ধায় আছি। ফকিরা অফিসে কচকচানি লাইগাই থাকে প্রাইভেট ইন্টারনেট ইউজ এর উপরে। প্রায়শই কমন মেইল আসে, ইন্টারনেট এর ইউজ বিজনেস পারপাজ হওয়াই ভালো, প্রাইভেট ইউজের জন্য দেয়া না ইত্যাদি প্রভৃতি। কেউ এর মধ্যে গান পাঠাইলে ডিলিট মারি শোনার সময় নাই, জোকস পাঠাইলেও মোটামুটি ওপেন না কইরাই ডিলিট। সবচেয়ে জ্বালায় বেশি মামুন। তিনি পি।এইচ।ডি করতেছেন, বিদ্বান ব্যাক্তি, প্রায়শই একটা লিঙ্ক পাঠাবে, ষোল পৃষ্ঠার ইংলিশে একখানা জ্ঞানগর্ভ আর্টিকেল, এটা পড়ো, হেভী ইন্টারেষ্টিং টাইপ লিখখা। আরে টমাস হার্ডি কিংবা জন স্ট্যাইনবেক হইলেও এক কথা না রিচার্ড ডকিন্স কিংবা পল কার্জ এর লেখা পাঠায়। ওরা ইন্টারেষ্টিং এর জানেটা কি? আমিও ফিরা মেইল দেই, নিজে পড়ো আর বিদ্বান হও, আমারে টানবা না।

এভাবেই কালাতিবাহিত হচ্ছিল। এর বহু কাল আগে থেকেই হাই ফাইভ কিংবা মাই স্পেস এর কুত কুত ছিল। প্রায়ই দাওয়াতী মেইল আসতো বন্ধুদের প্রোফাইল ভিজিট করার জন্য। আমার যেহেতু কুত কুত খেলার কোন সময় নাই হয়তবা ইচ্ছাও নাই তাই আমি জীবনেও কারো প্রোফাইল ভিজিট করতে যাই নাই। এর অবশ্য গুরুতর কারন হইলো প্রোফাইল ভিজিট করার প্রথম শর্ত, নিজে প্রোফাইল বানাও। এই বানানোর আলসেমিতেই আসলে হয় নাই। যদিও ততোদিনে অর্কুটে কুট কুট করি। আমার আশে পাশে যারা আছেন তারা রোজই কুট কুট করেন, প্রায়শই শুনি, ফটো দেখলাম অর্কুটে কি দারুন দেখাচ্ছে তোকে, কিংবা ওর স্ক্যাপটা দেখলি, কি লিখেছে ওসব। আমিতো থাকি ওদের সাথে, তাই যোগাযোগ আর পি।এন।পি।সি এর সুবিধার্থে আমিও কুট কুট করি। এবার শুরু হইলো ফেসবুকের ইনভাইট পাওয়া, আসো প্রোফাইল ভিজিট করো। ভাইবোনেরা সব্বাই প্রোফাইল বানিয়ে ওয়ালে লেখালেখি, ফটো আপলোডা লোডি চলতেছে। কে কি কমেন্ট করলো, কার প্রোফাইল পিক্স ঝাক্কাস হইলো ইত্যাদি ইত্যাদি। আমি তখনও নিবিষ্ট মনে অফিস, জি টক আর মুক্তমনা, প্রথম আলো, আমাদের সময়, বাসভূমি, সাতরং, এনওয়াই বাংলা আর খবর ডট কম এর মধ্যে আছি। মাঝে মাঝে নুরুজ্জামান তার সচল ব্লগ এর লিঙ্ক আমারে পাঠায়। আমি লেখা আর কমেন্ট পড়ে ভাবি, কিছু আজাইরা লোকজন আছে যারা সারাদিন এখানে লেখাপড়া করে সময় কাটায়, আহা কতো সুখ তাহাদের জীবনে। পোলাপাইনের কাম কাজে আমি নাই। যদিও মামুন প্রায়ই বলে ফেসবুকে প্রোফাইল বানাও। তোমার মতো বুড়া লোকও আছে। অনেক ভালো ভালো লোকের দেখা পাবা কিন্তু আমি নাই......।

ভাইয়া তখন উচ্চ শিক্ষার্থে বিদেশে। প্রায়ই ভাইয়ার এদিক সেদিক ট্যুর থাকে। ভাইয়া তার ছবি সব ফেসবুকে আপলোড করে। যদিও আমাকে পিকাসো এ্যালবামের লিঙ্ক পাঠায় কিন্তু স্কাইপেতে যখন ভাইয়া আমি আর বোনেরা সব কনফারেন্স চ্যাট করি তখন দেখি ওরা অন্যদের কমেন্ট নিয়া, ভাইয়ার ফেসবুকের ঘোমটাওয়ালী বোরকাওয়ালী বান্ধবী নিয়া অনেক কথা বলে, হাসাহাসি করে যেগুলোতে আমি মিসিং। ভাইয়া যে মাইয়ারে এ্যাড করে পরদিন নাকি ভাবী তারে ইনভাইট পাঠায়। টম এন্ড জেরী গেমস হচ্ছে। আর এদিকে মামুনতো তিন দিন পর পর ওর প্রোফাইল ভিজিটের দাওয়াত পাঠাচ্ছেই। সে সময় কোন এক স্মরনীয় দিনের সকালে অফিসে বসে প্রোফাইল বানিয়ে ফেসবুকে ঢুকলাম, আমার যাত্রা হলো শুরু। প্রথমে আমি আগা মাথা কিছুই বুঝি না। ধুন পুন সব এ্যাপ্লিকেশন, দেখতে গেলেই বলে প্রথমে নিজের প্রোফাইলে এ্যাড করো। কয়দিন পর আমি সব্বাইরে বল্লাম ঐ আমারে ঐসব ফালতু জিনিসের দাওয়াত দিবি না। আমার অবস্থা তখন ক্যামেলিয়া আপুর মতোন। ফেসবুকে সার্চ দিয়া বন্ধু খোঁজাতো দূরে থাক, কাউরে ইনভাইট ক্যামনে করতে হয়, এসব আমি কিছুই জানি না। এদিকে আমারে যে ইনভাইট পাঠায় আমি তারেই এক্সেপ্ট করি, আমি ভাবি যে আমারে ইনভাইট পাঠাচ্ছে সে নিশ্চয়ই আমারে চিনে, জেনে, বুঝে নিজ দ্বায়িত্বে পাঠাচ্ছে। এরমধ্যে অন্য কিছু থাকতে পারে আমার কোন ধারনাই ছিল না। আমারে খামোখা কেন কেউ এ্যাড করবে সেটাও আমার মাথায় নেই।

সেই আদিম সময় এক স্যুটেড বুটেড জ্ঞানী ইডিয়েট আমারে ইনভাইট পাঠায়। আমি যথারীতি তারে এক্সেপ্ট করি। তার মিনিট দশেকের মধ্যেই দেখলাম জিমেইলে ম্যাসেজ।

আপনার সাথে বন্ধুত্ব করতে পেরে আমি আনন্দিত, গর্বিত ইত্যাদি ইত্যাদি ইত্যাদি।
আমি আগা মাথা না বুইঝ্যা বল্লাম,
“সেইম হিয়ার”।
আবারো দশ মিনিটের মধ্যে রিপ্লাই,
আপনার মোবাইল নাম্বারটা পেতে পারি? আমি পুরা টাশকি। আমি ভালো কইরা তার প্রোফাইল চেক কইরা মনে করতেই পারলাম না স্কুলে, কলেজে, ইউনি, কোচিং, পাড়া, স্যারের বাসা কোথাও এই মুখ কোনদিন দেখছি।
ভনিতা না করেই বল্লাম, আমার মোবাইল নাই। শুধু ফেসবুক আছে।
এই উত্তর পাইয়া ব্যাটা আমারে পুরা আধা এ ফোর লিখখা পাঠাইলো, তাকে আমি যা ভাবছি আসলে সে তা না। তার লন্ডনে বাড়ি আছে, গুলশানে বাড়ি আছে, প্রতি অল্টারনেট উইকে সে একবার লন্ডন আসে, একটেইলে বিরাট জব করে, লন্ডনে পড়াশুনা করছে ইত্যাদি ইত্যাদি। এ গল্পটা একদিন কোন এক ফেসবুকীয় কারনেই নজরুল ভাইয়ের সাথে জিটকে করছিলাম। এইটুকু বলার পরই নজরুল ভাই বললো, আপনে কইলেন না কেন, ব্যাটা আমার মোবাইল নাই, আমারে তুই মোবাইল কিন্যা দে। যাহোক, আমিও বেকায়দায় পইড়া রিপ্লাই দিলাম,
ভাই আপ্নেরে আমি কিছুই ভাবি নাই কিন্তু আসলেই আমার মোবাইল নাই।
তারপর দুপুরের দিকে দেখি আবার ম্যাসেজ দিছে,
আপনি কি বিবাহিতা?
আমি চরম বিরক্তি নিয়ে উত্তর দিলাম, আমি শুধু বিবাহিতই না, পাঁচ বাচ্চার মা, চল্লিশোর্ধ। আমার প্রোফাইল দেখেন। আপনি কি ফেসবুকে পাত্রী খুঁজতে আইছেন? আর জায়গা নাই পাত্রী খোজার?
ব্যাটা কইল, আই সী।
ওইযে সী কইরা তিনি ভাগলেন আর আসিলেন না। পুরা বছর অপেক্ষায় আছি। উনি বোধ হয় আমার জীবনের সবচেয়ে সংক্ষিপ্ত সময়ের ফেসবুক বন্ধু।

তখন ভাইয়া প্রবাস জীবনে কাহিল। যদিও সারাজীবন পড়াশুনা সব প্রবাসেই করেছেন কিন্তু বহুদিন বাদে আবার প্রবাসে, স্ত্রী কন্যা দেশে রেখে, মানসিক কষ্টে আছেন। সারাদিন নেটে থাকেন। চব্বিশ ঘন্টা অন লাইন। আমি ব্যস্ত বলে হল্যান্ড টাইম রাত নয়টার পর আমার স্কাইপেতে কু কু করে, আমাকে ডাকেন। কি খাইছো, পড়া কেমন চলছে, কে রানছে তুমি না রুমমেট এসবের পর শুরু হয় আজাইরা কথা। আমি ভাইয়াকে বল্লাম দুপুরের হিরোর কথা। ভাইয়া খুবই বিরক্ত হয়ে আমারে বকলো, তুই ক্যান না বুইঝা লোকজন এ্যাড করিস। ফেসবুক একটা খুবই ব্যাক্তিগত ব্যাপার। আমি যে না বুইঝা যে কয় রাম, তার সাথেই যাম, অবস্থায় আছি, দেখলাম ভাইয়া সেটা আগেই লক্ষ্য করেছে। আমি বল্লাম আমি ক্যামনে জানি? আমারে কিভাবে খুঁজে পায়? ভাইয়া বলল সিকিউরিটি দে যাতে সব্বাই তোর প্রোফাইলে না ঢুকতে পারে। আমি বল্লাম এসব আমি খুঁজতে পারবো না, এই আমার পাসওয়ার্ড, তুমি আমার সিকিউরিটি বানাইয়া দাও। ভাইয়া গুটুর মুটুর কইরা বললো ঠিক আছে, এখন তুই পাসওয়ার্ড বদলা। আমি বল্লাম, থাক তুমি লিখে রাখো, টাইম টু টাইম আপ টু ডেট কইরা দিও আমার ফেসবুক। তারপর ভাইয়া তার স্বভাব গার্ম্ভীযে আমাদের চারবোনকে এবং সাথে ভাবীকে একটা কমবাইন্ড মেইল পাঠাইলেন, ফেসবুক জিনিসটা ভালো কিন্তু এর অনেক খারাপ ব্যবহার থাকতে পারে সো সাধু সাবধান। যারে তারে এ্যাড করা থেকে বিরত থাকো। অবশ্য মামুনও আমার ফ্রেন্ড সংখ্যা বাড়ার হার দেখে ভাই সুলভ স্নেহ নিয়ে বার বার বলেছে, তুমি চিনো যাদেরকে এ্যাড করছো? সবাধান।

আমি একটু সাবধান হলাম। কিছু ঝেটে দিলাম লিষ্ট থেকে আর সিকিউরড প্রোফাইলের কারনে নতুন দাওয়াতের সংখ্যাও এখন নগন্য। তার থেকেও আমি বুঝে সুঝে এ্যাড করি। সে সময় আমি দেশে। একদিন দেখলাম দাওয়াত দিয়েছেন একজন আঙ্কেল। আমি ম্যাসেজ দিলাম, আঙ্কেল আপনেরে কি আমি চিনি? তিনি বিরাট উত্তর লিখলেন। আমার রবীন্দ্রনাথ ও কাদম্বরী সিরিজ পড়ে তিনি মহামুগ্ধ। তিনি যেহেতু ঘটি আমার নাম দেখে বুঝতেই পারেন নাই যে আমি রমনী। তারপর এখন ফেসবুকে আমাকে দেখে উনি ফিট যে আমি এত্তো অল্প বয়সী রমনী। উনি ভেবেছিলেন এত্তো যার জ্ঞান তিনি নিশ্চয়ই কোন প্রৌঢ় হবেন। উনি নিজে অন লাইনে একখানা ম্যাগাজিন চালান। তার লিঙ্ক দিলেন। ম্যাসেজ পইড়া আমিতো চারোখানে চিত। সাথে সাথে আমার ফ্যানরে এ্যাডাইলাম। একদিন সকালে বাসায় কেউ নাই, কিছু করার নাই, আমি ভাবলাম যাই একটু মেইল ফেইল চেক করি। আঙ্কেল আমারে ফেসবুকে ম্যাসেজ দিলেন। সাধারন সৌজন্যমূলক কথা বার্তা। ঢাকা উনার অনেক ভালো লাগে, ঢাকার মানুষ অনেক ওয়ার্ম ইত্যাদি ইত্যাদি।
তারপর বললেন, আমাকে তুমি বলতে পারেন কি না?
ফেসবুকের প্রোফাইলের ছবি দেইখ্যা আমার মনে হইল আব্বুর পিঠাপিঠি হবে,
বল্লাম, জ্বী পারেন।
তারপর আঙ্কেল আমারে কয় তিনি আমারে এখন থেইক্যা “তনু” বইল্যা ডাকবেন।
আমি পুরা হাফসোল, ব্যাটা কয় কি? যা কয় তাতেই আমি রাজি দেইখ্যা ব্যাটারতো অবস্থাতো খারাপ। আমি আমার তানবীরা খোলস ছেড়ে পুরাই নিজের মূর্তিতে আত্মপ্রকাশ করলাম।
বল্লাম, ক্যান আপনে আমারে তনু কইবেন ক্যান?
আঙ্কেল এদিকে পিছলায় ঐদিকে পিছলায়। উত্তর খুজে পায় না।
পরে বলে না তানবীরা নামটা বড়োতো তাই।
বড়তো আপনার কি হইছে? আপনেরতো দরকার নাই প্রত্যেকবার আমার নাম লেখার। সামিয়ার সাথে তখন আমার বসুন্ধরা যাওয়ার কথা।
সে আইসা বিরক্ত গলায় আমারে বলতেছে তুমি এখনো কম্পিউটারে বসে আছো। যাবা না? আমি বল্লাম যাওয়া যাওয়ি নাই, আগে শালা মাপ চাইবো, তারপর ছাড়বো।
সামিয়া মাথা উঁকি দিয়া চ্যাট পেইজ পইড়া হাসতে হাসতে মাটিতে গড়াগড়ি। তার দামড়ি বড়বোনরে তার থেকেও দামড়া কেউ তনু বইল্যা ডাকার প্রস্তাব দিতে পারে, সে হতভম্ভ। কাউরে বলতেও পারছে না কারন কেউ নাই বাসায়। হাসতে হাসতে সে ব্যাকা হইয়া গ্যালো।

এসব কারনে আমি ফেসবুকে সাবধান। মাঝখানে আবার হিমুর লেখা জেসমিন জোয়ার্দারের গল্প পড়ে আরো ভাবনায় পড়ে গেলাম। এরমাঝেই একদিন একটা ম্যাসেজ আসলো

“নৈতিকতা নিয়ে আমার ভাবনাগুলো” লেখাটা যে লিখছেন আপনি কি সেই তানবীরা তালুকদার? যদি আপনে সেই হন তাহলে আমারে এ্যাড করেন।
এখনো ঠিকমতো মোচ গজাই নাই, অন্তত ফেসবুক প্রোফাইল পিক্স তাই বলে আমারে এই ম্যাসেজ দিয়েছে।
আমি বল্লাম হ্যা আমিই সেই পাপিষ্ঠা, কিন্তু আপনারে এ্যাড করতে হবে ক্যান?

আপনার লেখাটায় অনেক ভুল আছে, অত্যন্ত একপেশে চিন্তা ভাবনা আপনার। সেইগুলা নিয়া আপনার সাথে আমার আলোচনা করা দরকার। আপনার চিন্তার পরিবর্তন আনতে হবে।
আমিও আমার শিং তেড়ে বল্লাম, আলোচনা করবেনতো এখানে কি? যেখানে লেখছি সেখানে আসেন।
না ঐখানে আসা যাবে না। আমি আপনার সাথে ওয়ান টু ওয়ান আলোচনা চাই। অন্য মানুষ আমাদের মাঝে কথা বলুক সেটা হবে না।
আমি বল্লাম, অসুবিধা নাই। সিনেমায় নায়ক - ভিলেন মারামারির সময় যেমন অনেক সময় হাত দিয়া পাশের বাহিনীরে দেখায়, তোরা কেউ আসবি না, আমরা আমরা লাগতেছি, তেমনি আমি বলে দিবো সব্বাইকে শুধু আমরা আমরা। কেউ আসবে না।

পোলা এখন অন্য পথ ধরলো। আপনার মনে করছিলাম সৎ সাহস আছে। এখনতো দেখি আপনি আস্তা কা-নারী। এসব আর্টিকেল লেখেন আবার এ্যাড করতে ভয় পান। ছিঃ।

আমি হিমুরে নাম ঠিকানা দেখাইয়া বল্লাম, চিনো? উনাকে? হিমু বল্ল না চিনি না, আপ্নেরও দরকার নাই চিনার। আলোচনা করতে চাইলে এখানেই আসবে। এই পর্ব ওখানেই সমাপ্ত হইল।

এর মাঝে আবার আট ঘাট বাধাও অনেকে থাকেন। ঝড়বৃষ্টি নিকে আমাকে প্রায়ই একজন দাওয়াত পাঠাতেন। আমি দেখি ওর প্রোফাইলে কোন ইনর্ফেশন নাই, কোন বন্ধু নাই, আমি ইগনোর করি। সে প্রায় নিয়ম করে তিন দিন পর পর আমাকে দাওয়াত পাঠায়। আমি ইগনোর করি, মজার খেলা। কয়দিন পর দেখি আমার লিষ্টে আছে এমন কয়েকজনকে সে এ্যাড করেছে। আমি ভাবলাম ভুল কি তাহলে আমারই ছিলো নাকি? একজন আমার খুব ভালো বন্ধুকে ম্যাসেজ দিলাম,
ঝড়বৃষ্টিকে, তুমি চিনো?
সে বল্ল, এইটা আবার কে?
আমি বল্লাম তোমার লিষ্টে আছে।
সে উত্তর দিলো, আছে নাকি? ও
বুঝলাম উনি আমার প্রাথমিক অবস্থায় আছেন। তারপর ঝড়বৃষ্টি ভাই অথবা বোন, জানা যায়নি কে বল্লাম, আপনাকে কি আমি চিনি?
তিনি বল্লেন, আপনারে আমি চিনি, আপনার লেখা আমি খুবই ভালো পাই। আপনার সাথে লেখা নিয়ে আলুচনা কত্তাম চাই।
আমি বল্লাম ভালু কতা, আলুচনার জইন্য ব্লগ আছে, ফেসবুক আলুচনার জায়গা না।
উনি খুবই মনক্ষুন্ন হইয়া বললেন, আফনের যা ইচ্ছা।
আমি বল্লাম, খুদাপেজ।
এখন দেখি ঐ এ্যাকাউন্টই আর নাই।

তারপর আসলো আমার ফেসবুকীয়ও জীবনের স্মরনীয় সেই রাত। আমি বহুদিন পর বইসা বইসা সচলাইতেছি। হঠাৎ আমার মেইল বক্সে দেখি দাওয়াত। “হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ” আমার বন্ধু হইতে চায়। আমার অত্যন্ত আনন্দ বেদনার মুহূর্তে কেউ আমার কাছে থাকে না। দুর্ভাগ্য। আমার হাত পা কেমন যেনো করতে লাগলো, বুক ঢিপ ঢিপ, নিঃশ্বাস - প্রশ্বাস বন্ধ হইবার উপক্রম যাকে বলে। আমি কাঁপা কাঁপা হাতে ক্লিক করিয়া দেখি, যাহা ভাবি নাই তাহাই, এশু দাদু আমার দিকে তাকিয়ে হাসতেছে। কারে বলি এই আনন্দের - সম্মানের সংবাদ? কয়েকজনকে মেইলটা দ্রুত গতিতে ফরোয়ার্ড করলাম। প্রথমেই শিমুল উত্তর দিল। আমারে বলে,
এ্যাড করেন প্রথেম, তারপর সচলে আনেন। কবিতা লিখতে কন, সচল জমবো ভালো।
আমি লজ্জা পাইয়া কইলাম, তার থেকে তুমি মেয়ের প্রোফাইল বানাও, আমি তোমারে ভালো ভালো ছবি যোগাড় কইরা দেই, তুমি এ্যাড করো, কবিতা কি? ভালোমতো তুমি ঢং ঢাং করো, উপন্যাসও লিখতে পারে।
সেই সময় ক্লান্ত বিধ্বস্ত আমার উনি বাসায় ঢুকলেন। আমি দন্তবিকশিত হাসি দিয়া এটা দেখাতেই, উনি তিক্ত গলায় মুখ খিচাইয়া বললেন, বুইড়া, লুচ্চা, বদমাইশ, বাটপাড়।
আমি হাসি গিলে ফেললাম। আমার উনির এই সমস্যা, যাহাতে আমার আনন্দ তাহাতেই উনার বিরক্তি। কতো সম্মানের কথা, না দিলো গালি।
আমার দুঃখ দেখে শিমুল বললো, যান ওয়ালে লেখে দিয়ে আসেন, ওই পাপিষ্ঠ, আমারে এ্যাড করছিস ক্যান?
আমি কইলাম, থাক শিমুল, মাথাটা জানি কেমন কেমন করতেছে, যাইয়া ঘুমাইগা। ফিচলা হাসি দিয়া শিমুল কইলো,
ঐ পাপিষ্ঠের কারনে আপনের আজকের ঘুম বরবাদ।

আনন্দের সময়ই বোঝা যায়, কে কার প্রকৃত বন্ধু। নুরুজ্জামান হিংসায় হিংসিত হইয়া কইলো, ঐটা ফেইক। হুহ, আমারে বেক্কল পাইছো? আমি আর বুঝি না, তোমারেতো এ্যাড করে নাই, হিংসুট। মামুন বললো, বিদিশা নাই, বিদেশীই সই। মনে মনে কই, তোর কি হিংসুট? তাহমিনা, সামিয়া হাসতে হাসতে গড়াইতেছে, উঠে নাকি বসতে পারছে না। ভাইয়া, তার মমতা মাখা হাতে আবার গুট গুট মেইল পাঠায়, ধান্ধাবাজে ভরে গেছে দেশ, সব ফেইক তুই সাবধান। কিন্তু চোরে না শুনে ধর্মের কাহিনী। আমি দাদুরে ম্যাসেজ পাঠিয়েছি, “আপনে কেডা দাদু”? কোন উত্তর নেই। অপেক্ষায় আছি। তোমাকে উত্তর দিতেই হবে ...............

আমি পুলকিত। একটু পর পর যাইয়া প্রোফাইলটা দেখে আসি। ১৯৩০ সালে জন্ম, জাতীয় পার্টির প্রেসিডেন্ট, বর্তমান সংসদ সদস্য। দাদুই আমার ফেসবুকের প্রথম ফেসবুকীয় ব্যক্তি যিনি এখনো এক্সেপ্ট বা ইগনোরড হন নাই। ঝুলে আছেন রিকোয়েষ্ট লিষ্টে। সাধারনতঃ আমি দাওয়াত দেখা মাত্র খোঁজ খবর করে ফলাফল নির্ধারন করে ফেলি। বলতে দ্বিধা নাই
দিন দিন ফেসবুক বেশ আকর্ষনীয় হয়ে উঠছে আমার কাছে। এখন বারাক ওবামার দাওয়াতের অপেক্ষায় আছি............

সর্বশেষে একখানা ছড়া আর একখানা প্রশ্ন

ভুত আমার পুত
পেত্নী আমার ঝি
এরশাদ যদি বন্ধু হয়
এখন ক্যাম্নে কি?

হে সম্মানিত সচলগন, এশু দাদু কি আমার বন্ধু হতে পারেন? আপনারাই নির্ধারন করুন। আপনাদের মতামতের উপরই নির্ভর করছে দাদুর ভবিষ্যত।

তানবীরা
১০.০৭.০৯


মন্তব্য

সাইফ তাহসিন এর ছবি

আমি চরম বিরক্তি নিয়ে উত্তর দিলাম, আমি শুধু বিবাহিতই না, পাঁচ বাচ্চার মা, চল্লিশোর্ধ

গড়াগড়ি দিয়া হাসি না হে, টাংকি মারার তাল আমিও করতাছিলাম খাইছে

জটিল লেখা, গড়াগড়ি দিয়া হাসি

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

তানবীরা এর ছবি

এই স্বাস্থ্য নিয়ে আর কুচিন্তা কইরেন না, আবার টিকিট খাইবেন তাহলে
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

সাইফ তাহসিন এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

কিংকর্তব্যবিমূঢ় এর ছবি

হো হো হো গড়াগড়ি দিয়া হাসি
................................................................................................
খাদে নামতে আজ ভয় করে, নেই যে কেউ আর হাতটাকে ধরা ...

তানবীরা এর ছবি

হাসলে হবে? দাদুর কি করবো, তার উত্তরতো দিলা না
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

রেনেট এর ছবি

আহারে...মেয়েদের কত্ত মজা! দুইদিন পরপর বন্ধুত্বের নেমতন্ন পায় মন খারাপ
আমারে হালায় জীবনে কুনুদিন কুনু মেয়ে রিকুয়েস্ট পাঠাইলো না মন খারাপ

তবে কথা হইলো, আমি আপনারে এখন থেকে তনু বলে ডাকবো দেঁতো হাসি

লেখায় পাঁচতারা।
---------------------------------------------------------------------------
No one can save me
The damage is done

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

তানবীরা এর ছবি

রেগে টং x
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

স্বপ্নহারা এর ছবি

হ...হইতে পারে। দাদু যখন আপনাকে ইনভাইট করছে তখন বন্ধু বানাই লন...তেড়িবেড়ি করলে খেদাই দিলেই হইব। তয় অইটা ফেইক হওয়ার সম্ভাবিলিটি ৯৯%...দেঁতো হাসি

হতাশাবাদীর হতাশাব্যঞ্জক হতশ্বাস!

-------------------------------------------------------------
জীবন অর্থহীন, শোন হে অর্বাচীন...

তানবীরা এর ছবি

ফেইক হইলে আর ক্যামনে কি?
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

স্নিগ্ধা এর ছবি

মা তনু, দাদুকে এ্যাড করুন!!!!!

তানবীরা এর ছবি

ঈমানে কইতাছেন ?
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

হিমু এর ছবি
তানবীরা এর ছবি

আমার হইলো জীবন মরন সমস্যা
আর তুমি আছো সামান্য খাওয়া নিয়া
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

বিপ্রতীপ এর ছবি

'তনু' নামটা খ্রাপ ছিল না... খাইছে
~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~~
ব্যাক্তিগত ব্লগ | আমার ছবিঘর

তানবীরা এর ছবি

রেগে টং
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

অছ্যুৎ বলাই এর ছবি

হা হা হা। ফেসবুক ব্যাপক মজার যায়গা। তয় তনু আপা, আপনি মানুষটা ত্যান্দোড় হইলেও পোস্ট গুল্লি লিখছেন।

---------
চাবি থাকনই শেষ কথা নয়; তালার হদিস রাখতে হইবো

তানবীরা এর ছবি

আমারে আপনে শেষ পর্যন্ত ত্যান্দোড় কইলেন ?

---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

ধুসর গোধূলি এর ছবি

- এই হালার ব্যাটা হালা দাদু আমার লিস্টেও দিনাকয়েক ঝুইলা ছিলো। তারপর কোনো এক শুভ বিকেলে ঝাইড়া সাফা করতে গিয়া দিছি হালার্পুতেরেও ডিলিটাইয়া। যাহ, দূরে গিয়া মর!

এখন অবস্থা দেখে মনে হৈতেছে বেশি দূরে হালায় যাইতে পারে নাই, পাশের দেশেই গিয়া মরছে। হাসি

ওবামা কিন্তু আমার লিস্টে আছে। প্রায়ই ডেখি কোনো একটা স্ট্যাটাস বা কিছু একটা লেখার সঙ্গে সঙ্গে দুই হাজারের বেশি কমেন্ট আর 'পছন্দ হয়েছে' টিবি চইলা আসে। দুনিয়াটা, মানে ফেসবুকের দুনিয়াটা বড়ই টেরেজেটির জায়গা!

দুঃখের কথা হইলো, রিকোয়েষ্ট জমায়া রাখি আমি সাধারণতঃ। চিনপরিচিত হইলে ডাইরেক্ট এ্যাডাই। নাইলে আল্লার নামে ফালাইয়া রাখি। এইটা অবশ্য আগে ছিলো না। যখন থাইকা ফেসবুকে প্রতিনিয়ত হলাম, তখন থাইকা এই পদ্ধতি। তো সপ্তাহ খানেক আগে দেখি এক মেসেজ, "অই মাঙ্গের নাতি, রিকোয়েস্ট এ্যাক্সেপ্ট করোস না ক্যান?" বুঝলাম কিছু একটা গরবর হৈয়া গেছে। ভালো কইরা তাকাইয়া দেখি আমার এক ইয়ার দোস্তরে ওয়েটিং লিস্টে ঝুলাইয়া রাখছি কয়েক মাস যাবৎ। গাইল খাইয়া লগে লগে এ্যাড কইরা দাঁত বাইর কইরা একটা চান্দা ভেটকি দিয়া জিগাইলাম, "তোর বউ কেমন আছে? ফটুক দে দেখি।" ঐ ব্যাটা লগে লগে আগের চাইতেও কুৎসিত ভাষায় কইলো, এতোদিনে যাও লিস্টিতে যোগ করলি, আমার কথা না জিগাইয়া জিগাস আমার বউয়ের কথা...!
___________
চাপা মারা চলিবে
কিন্তু চাপায় মারা বিপজ্জনক

তানবীরা এর ছবি

বন্ধুত্বের এই সম্বোধন? শত্রুদের কি বলে ডাকো?
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

মামুন হক এর ছবি

তণু আফা, দাদুরে অ্যাড করেন, মজা হবে দেঁতো হাসি

তানবীরা এর ছবি

কি মজা ?
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

ইশতিয়াক রউফ এর ছবি

তনু আপু, মোস্তফা জব্বার অ্যাড করে নাই ফেসবুকে? এই ব্যাক্তি তো আমার চেনা-জানা সব অল্পবয়সী মেয়েকে বন্ধুত্বের দাওয়াত দিয়েছিলো! দেঁতো হাসি

তানবীরা এর ছবি

না করে নাই, তো। অপমানিত বোধ করতেছি চোখ টিপি
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

দ্রোহী এর ছবি

লেখাটা পুরা গুল্লি হইছে।

হ্যাঁ গো তনু। আমিতো তোমার ফেসবুক বন্ধু। এই লেখাটা নিয়েই না হয় কথা হবে ফেসবুকে। দুজনাতে। এক কোনাতে। মুখোমুখি।

দেঁতো হাসি দেঁতো হাসি দেঁতো হাসি দেঁতো হাসি দেঁতো হাসি দেঁতো হাসি দেঁতো হাসি

কী কপাল আমার! এখন পর্যন্ত কোন মেয়ে আগ বাড়িয়ে আমার বন্ধু হতে চাইলো না!

কিংকর্তব্যবিমূঢ় এর ছবি

এইদিক দিয়ে আমার কপাল ভালো দেখা যাচ্ছে চোখ টিপি
................................................................................................
খাদে নামতে আজ ভয় করে, নেই যে কেউ আর হাতটাকে ধরা ...

দ্রোহী এর ছবি

বদ পোলাপাইন সবসময়ই রাজকপালী হয়।

কিংকর্তব্যবিমূঢ় এর ছবি

এখনো সময় আছে, ভালুমানুষী ভাব বাদ্দিয়া বদ হয়া যান দেঁতো হাসি.
...............................................................................................
খাদে নামতে আজ ভয় করে, নেই যে কেউ আর হাতটাকে ধরা ...

তানবীরা এর ছবি

হ আইসেন কোনায়, আছি আমি অপেক্ষায় চোখ টিপি
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

রণদীপম বসু এর ছবি

আহারে ! কেউ আইজ পর্যন্ত আমারে জিগাইলো না- আপনি কি বিবাহিত ?

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

-------------------------------------------
‘চিন্তারাজিকে লুকিয়ে রাখার মধ্যে কোন মাহাত্ম্য নেই।’

ইশতিয়াক রউফ এর ছবি

আমার কপাল আরও খারাপ, রণদা। ইদানীং দু'চার জন নারী ফেসবুকে অ্যাড রিকোয়েস্ট পাঠিয়েছেন। সকলেই বিবাহিতা। সকলেরই আমার বাচ্চার ছবি ভালো লেগেছে দেখে অ্যাড রিকোয়েস্ট পাঠিয়েছেন। অ্যাড না করলেও চলবে, শুধু বাবুটার ছবি তাদের পাঠালেই খুশি। এই হলো কপাল!

আমি বিনীত ভাবে বলি, শিশুটি আমার না, ধার করা। খাইছে এরপর বাচ্চার একটা ছবি পাঠিয়ে দেই আর কি। মন খারাপ

তানবীরা এর ছবি

আপনার ছেলে প্রান্তিক খুবই মিষ্টি , রনদা আপনি কি বিবাহিত?
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি

তাতা নামটাতে বড়ই অসুবিধা। "তনু" নামটা ব্যাফক সৈন্দর্য।

দাদুর রিকোয়েস্টটা কোনভাবে আমার ফেসবুকে পাঠাইতে পারেন কিনা দেখেন। তার জন্য প্রথমে আপনি তারে অ্যাড করেন, তারপর আমারে সাজেশন পাঠান। আমার লক্ষ্য দাদুর বান্ধবীকুল। দাদুর ফ্রেন্ড হইলে তার বান্ধবীকুলের নাগাল পাওয়া যাবে।

এমন ঘটনায় আমরা আপনার কাছ থেকে অবশ্যই খাওয়া পাওনা হই। দিশা বলল, "তনুরে কও দ্যাশে আসলে আমাগো রাইন্ধা খাওয়াইতে"।



তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।


তোমার সঞ্চয়
দিনান্তে নিশান্তে শুধু পথপ্রান্তে ফেলে যেতে হয়।

তানবীরা এর ছবি

লিঙ্ক পাঠাইয়া দিছি আপনার ফেসবুকে।

দিশার থেকে এইটা আশা করি নাই। দিশা হল্যান্ড আসলে আমি কোনদিনও বলব না আমাকে রাইন্ধা খাওয়াও, হ।
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

নজরুল ইসলাম এর ছবি

১.
এই পোস্ট পূর্ববর্তীকালে আপনে ছিলেন তানবীরা। আজকে থেকে সচলের কেউ আর আপনাকে সেই নামে ডাকবে বলে মনে হয় না। আমি তো তনু ছাড়া আর কিছু ডাকবোই না। নামটা ব্যাফক ফছন্দ হইছে...

অ তনু... কেরম আছো? গড়াগড়ি দিয়া হাসি

২.
ফেইসবুকে তো আমিও আপনের লগে কতো কতো টাঙ্কি মারি... চোখ টিপি আপনের প্রোফাইল পিক্স দেইখা আমিও তো ভাবছিলাম আপনের বয়স ২৩/২৪ হো হো হো

৩.
ফেইসবুক আমার কাছে দারুণ মজার এক জায়গা। কৌতুক একটা। তবে অনেক কাজেরও। আমি বাছবিচার করি না তেমন। আমার বন্ধুত্বের দ্বার অবারিত। এমনকি আমার লিস্টে ৩টা গে পর্যন্ত আছে। চোখ টিপি

৪.
ফেইসবুকের বন্ধুভাগ্য আমার খুবই ভালো। আমিও কিংকং-এর মতোই চরম সৌভাগ্যবান। সুন্দরীরা প্রায়শই আমারে এ্যাড করে। স্বল্পবসনারাও।
তবে সেজন্য না। ফেইসবুক মারফত আমার কিছু একেবারে নতুন বন্ধুত্বও তৈরি হইছে। খুব ভালো বন্ধুত্ব। ভালো লাগে আমার।
ফেইসবুক থেকে আমি এখনো কোনো জ্বালা পাই নাই।

৫.
এরশাদের একাউন্ট ভূয়া নাও হইতে পারে... তার এসব কুড়কুড়ানি থাকতেই পারে... এ্যাড করে দেখতে পারেন কয়দিনের জন্য।

৬.
শোনেন, ফেইসবুকে অনেক পদ্ধতি আছে। ধরেন আমি আপনের বন্ধু হইলেও আপনে যদি আমারে ছবি ভিডিও এগুলা শেয়ার না করতে চান সেই ব্যবস্থাও আছে।
এরশাদের মতো এরকম কিছু যারা আছে তাদের বন্ধু বানায়ে রাখেন, কিন্তু বার্তা ছাড়া অন্য সবকিছুতে ব্লক। ছবি ভিডিও এগুলা কিছুই দেখতে পাবে না। আপনে না চাইলে চ্যাটও করতে পারবো না।
______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

তানবীরা এর ছবি

আপনের প্রোফাইল পিক্স দেইখা আমিও তো ভাবছিলাম আপনের বয়স ২৩/২৪ রেগে টং

ছয় নম্বর নিয়া আপনার সাথে জিটকে আলাপ করবো।

---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

জি.এম.তানিম এর ছবি


আমার অত্যন্ত আনন্দ বেদনার মুহূর্তে কেউ আমার কাছে থাকে না। দুর্ভাগ্য। আমার হাত পা কেমন যেনো করতে লাগলো, বুক ঢিপ ঢিপ, নিঃশ্বাস - প্রশ্বাস বন্ধ হইবার উপক্রম যাকে বলে। আমি কাঁপা কাঁপা হাতে ক্লিক করিয়া দেখি, যাহা ভাবি নাই তাহাই

দাদুর রিকোয়েস্ট পাওয়ার যে বর্ণনা দিলেন তনু আপা (খাইছে)

অনবদ্য!!!!
-----------------------------------------------------------------
কাচের জগে, বালতি-মগে, চায়ের কাপে ছাই,
অন্ধকারে ভূতের কোরাস, “মুন্ডু কেটে খাই” ।

-----------------------------------------------------------------
কাচের জগে, বালতি-মগে, চায়ের কাপে ছাই,
অন্ধকারে ভূতের কোরাস, “মুন্ডু কেটে খাই” ।

তানবীরা এর ছবি

লইজ্জা লাগে
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

তনু আফামণি, দাদুরে এডান- তাঁরপর খানাপিনার এন্তেজাম করেন।
লেখা চ্রম হৈলো...
তয় বেশী মজা পাইলাম

আমি লজ্জা পাইয়া কইলাম, তার থেকে তুমি মেয়ের প্রোফাইল বানাও, আমি তোমারে ভালো ভালো ছবি যোগাড় কইরা দেই,

এইডা পইড়া ...।!!!!!!!!!!
---------------------------------------------------------------------------
- আমি ভালোবাসি মেঘ। যে মেঘেরা উড়ে যায় এই ওখানে- ওই সেখানে।সত্যি, কী বিস্ময়কর ওই মেঘদল !!!

_________________________________________

সেরিওজার গল্প

তানবীরা এর ছবি

আমিই এ্যাডামু আবার আমিই খাওয়াবো, তো আপনে কি করবেন?
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

হাসিব এর ছবি

ফেসলুলেরা ব্যাপক ত্যক্তকর বস্তু । আমারে এ্যাড করে (পরিচিতরাই, নাম বললে আবার উনারা মাইন্ডাবেন) । তারপর আমার জার্মান, ফ্রেঞ্চ, ডাচ বান্ধবীদের এ্যাডানো শুরু করে । হেরা আবার আমারে ফুন্দিয়া কয় আমার ফ্রেন্ড নাকি তাগোরে এ্যাডাইতে চায় । কই যে যাই সেইটাই ভাবি মাঝে মাঝে ।

রেজওয়ান এর ছবি

এই এডানোটা অনেক সময় অটোমেটিক হয়। কেউ একসেপ্ট করলে এরপর একটি অপশন আশে (আগে অটোমেটিক হতো অনিচ্ছা সত্বেও) যে কাকে রেফার করা যায়। না বুঝে অনেকেই তাতে সম্মতি দেয়। আমি দু একবার বিব্রত হওয়ার পর প্রতিবার খেয়াল রাখি ফেসবুক যাতে বেয়াদবী না করতে পারে।

পৃথিবী কথা বলছে আপনি কি শুনছেন?

তানবীরা এর ছবি

হো হো হো, এরমধ্যে ধূগো আছে ?
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

সামিয়া এর ছবি

“হুসাইন মুহাম্মদ এরশাদ” আমার বন্ধু হইতে চায়। আমার অত্যন্ত আনন্দ বেদনার মুহূর্তে কেউ আমার কাছে থাকে না। দুর্ভাগ্য। আমার হাত পা কেমন যেনো করতে লাগলো, বুক ঢিপ ঢিপ, নিঃশ্বাস - প্রশ্বাস বন্ধ হইবার উপক্রম যাকে বলে। আমি কাঁপা কাঁপা হাতে ক্লিক করিয়া দেখি, যাহা ভাবি নাই তাহাই, এশু দাদু আমার দিকে তাকিয়ে হাসতেছে।
হি হি হা হা। হাসতে হাসতে গড়াগড়ি। আবার ও ব্যাকা হইয়া গ্যলাম।

বিদিশার যে বই তুমি পাঠাতে বলছ সেটা ত আমি খুজে পাইনি। তুমি বরং এশু দাদু কে বল জগার করে দিতে।। কাজের কাজ হবে। হা হা

তানবীরা এর ছবি

হো হো হো
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

ভূঁতের বাচ্চা এর ছবি

তাতাপুর লেখাটা পইড়া চরম মজা পাইলাম। আর ভাবতেসি 'তনু' ছাড়া আর কি কি ডাকনাম আছে তাতাপুর ?
---------------------------------------------------------

--------------------------------------------------------

তানবীরা এর ছবি

ভাইব্বা কি পাইলেন, আমারে জানাইয়েন...............অপেক্ষায় থাকলাম।
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

ভূঁতের বাচ্চা এর ছবি

আজকে আরেকটা জানসি। স্বাতী নাকি আপনার ডাকনাম ! আগে আমি জানতাম না কিন্তু !
---------------------------------------------------------

--------------------------------------------------------

নীড় সন্ধানী এর ছবি

‍‌ভাবছিলাম আজকে টাইম নাই, মেলা কাজ পড়ে আছে শুক্কুরবারের, ব্লগে ঢুকবোই না। কিন্তু আপনার ফেসবুক অভিজ্ঞতার পড়তে শুরু করে শেষ না করে উঠতে পারলাম না। ব্যাপক শিক্ষনীয় বিষয় হলেও হাসতে হাসতে পেট ব্যাথা হয়ে গেছে।

এশুদাদুকে এড করে যদি তার ৪র্থ বিয়ার খবর কনফার্ম করা যায়, একটা মরনোত্তর বিবাহের ব্যবস্থা করতাম। পাত্রী আছে হাতে। হাসি

-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-
সেই সুদুরের সীমানাটা যদি উল্টে দেখা যেত!

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

তানবীরা এর ছবি

পাত্রী তোমার হাতে, বিয়ে করবে দাদু, কনফার্ম করবো আমি? জটিল সমীকরন

---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

কনফুসিয়াস এর ছবি

তনু আপা,
ব্যাপক মজা পাইলাম লেখাটা পইড়া! হাসি

-----------------------------------
আমার ইচ্ছে হলো বাজাতে গীটার, মন আমার, মন আমার, মন আমার-

তানবীরা এর ছবি

মজা পাইছেন জেনে ভালো লাগলো। ইয়ে, মানে...
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

সুমন চৌধুরী এর ছবি
তানবীরা এর ছবি

চিন্তিত
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

দময়ন্তী এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি
"তনু'?? খাইসে রে!!
আরে ঝটপট য়্যাডিয়ে ফেলো৷

আমার ফেসবুক নাই, তবে অর্কুটেও এরকম রঙ্গ বেশ দেখা যায়৷ অর্কুট, ফেসবুকেরও আগে, সেই ২০০৩ - ০৪ এ আমারে এক ৭০ বছুইর‌্যা বুড়া ধরছিল "তোমার একটা স্পষ্ট ও পরিস্কার ছবি পাঠাও'৷ উফ্ কি যন্ত্রণা!! আমি তারে কইলাম আমি তো খুউব মোটা, তাই একটা ফ্রেমে আঁটে না৷ এইজন্য আমার কোন ছবি নাই৷ সে কিসুতেই শুনে না৷ তারপর তারে কইলাম খবরের কাগজ থেইক্যা "জয়ললিতা আম্মা'র দুইখান ছবি নিয়া পাশাপাশি রাইখ্যা দেখতে, তাইলেই আমারে দেখা হইব৷ তাও মানে না৷ তখন তারে ব্লক কইর‌্যা দিয়া শান্তি৷

----------------------------------------------------
"নিভন্ত এই চুল্লিতে মা
একটু আগুন দে
আরেকটু কাল বেঁচেই থাকি
বাঁচার আনন্দে৷'

-----------------------------------------------------
"চিলেকোঠার দরজা ভাঙা, পাল্লা উধাও
রোদ ঢুকেছে চোরের মত, গঞ্জনা দাও'

তানবীরা এর ছবি

আপনের ভক্ত আছিলো মনে হচ্ছে ............
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

সুলতানা পারভীন শিমুল এর ছবি

হা হা হা হো হো হো
সারাদিনের বিষন্ন ভাবটা ফুঁ দিয়া উড়াইয়া দিলেন গো, তনু আফা।
অতো চিন্তাভাবনা না কইরা দাদুরে অ্যাড করেন।
কয়দিন পরপর আপডেটাইয়েন। চোখ টিপি

...........................

সংশোধনহীন স্বপ্ন দেখার স্বপ্ন দেখি একদিন

...........................

একটি নিমেষ ধরতে চেয়ে আমার এমন কাঙালপনা

তানবীরা এর ছবি

কইতাছেন তাইলে
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

ভুতুম এর ছবি

অ্যাডটা কইরাই ফালান তনু আপু। এরপর ডিলিট মারেন। আপ্নেরে কনফুশনে ফালানোর শাস্তি হিসাবে।

-----------------------------------------------------------------------------
সোনা কাঠির পাশে রুপো কাঠি
পকেটে নিয়ে আমি পথ হাঁটি

-----------------------------------------------------------------------------
সোনা কাঠির পাশে রুপো কাঠি
পকেটে নিয়ে আমি পথ হাঁটি

তানবীরা এর ছবি

এইটা হইলো লাখ টাকার কথা হাসি
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

বৃত্ত [অতিথি] এর ছবি

আসল কথাটা হচ্ছে , (১)ছেলেরা মাইয়ার ধান্দা ছারবে না, মেয়েরা ( যারা মজা পাবে) এগুলারে ধরবে, তারপর খেলা হবে, তারপর আবার , ১ নং এ যাও

তানবীরা এর ছবি

১ নং টা কি ভাইয়া ?
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

আনোয়ার সাদাত শিমুল এর ছবি

প্রায়ই শুনি - ফেসবুকে মানুষ পুরনো বন্ধুকে খুঁজে পায়। আমি অন্ততঃ ৩ জন মানুষকে গত ১ বছর তন্ন তন্ন করে খুঁজলাম। পেলাম না।

আপনার ফেসবুক জীবন নির্ঝঞ্ঝাট হোক। লোল্পুরুষদের নজর থেকে আপনি মুক্ত থাকুন..., এই কামনা করি।
____________
অল্পকথা গল্পকথা

তানবীরা এর ছবি

ঠিকমতো হয়তো খোজো নাই, খোঁজার মতো খুজলে নাকি আল্লাহও দিতে বাধ্য থাকে হাসি

শুম্মা আমিন
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

নিবিড় এর ছবি

আফা এ্যাড করে ফেলান দেঁতো হাসি আপনার নতুন নামটাও ব্যাপক পছন্দ হইছে হাসি


মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড় ।

তানবীরা এর ছবি

কস্কি মমিন!

---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

শাহেনশাহ সিমন [অতিথি] এর ছবি

তনু আপার সাথে এরশাদ দাদু'র বন্ধুত্ব জমার ঘটনা পড়বার অপেক্ষায় রইলাম দেঁতো হাসি

তানবীরা এর ছবি

বন্ধুত্ব মিষ্টি দই কিংবা পুডিং কোনটাই না, তাই জমবে না
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

রেনেট এর ছবি

ও তনু...ভালা আছ নি দেঁতো হাসি

(পোয়েটিক তুমি তুমি)
---------------------------------------------------------------------------
No one can save me
The damage is done

---------------------------------------------------------------------------
একা একা লাগে

তানবীরা এর ছবি

ম্যাঁও
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

সুমন চৌধুরী এর ছবি

নেটের রাজ্যে পৃথিবী লুল্ময়.........



অজ্ঞাতবাস

তানবীরা এর ছবি

এমুন কইরা কইয়েন না বদ্দা, নিজেরে খারাপ মুনে অয় তাইলে
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

মণিকা রশিদ এর ছবি

তনু!
দারুণ লাগলো লেখা। জটিল আনন্দ পাইলাম। আমার ফেসবুক অভিজ্ঞতা ৫ মাস আগে থেকে শুরু। এরকম অনেক যন্ত্রণার ভেতর দিয়া যাইতে হইছ।

নজরুল ভাই," এমনকি আমার লিস্টে ৩টা গে পর্যন্ত আছে। " ঘটনা কি ভাই?
আমার যাদবপুর জীবনের ২ টা খুব ভালো বন্ধুই লেসবিয়ান, আমার কিন্তুক মনে হয় নাই ওরা অন্য কারোর থেকে মানুষ হিসেবে আলাদা।

......................................
......সবটুকু বুঝতে কে চায়!

----------------------------------------------
We all have reason
for moving
I move
to keep things whole.
-Mark Strand

তানবীরা এর ছবি

মনু, সুন্দরী মেয়েদের পদে পদে যন্ত্রনা চোখ টিপি
তোমার যন্ত্রনার কথা গুলো জানতে চাই চাল্লু
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

মাহবুব লীলেন এর ছবি

হে সম্মানিত সচলগন, এশু দাদু কি আমার বন্ধু হতে পারেন? আপনারাই নির্ধারন করুন। আপনাদের মতামতের উপরই নির্ভর করছে দাদুর ভবিষ্যত।

আর যাই হোক এরশাদ চাচা নারী চিনতে ভুল করেন না
অভিনন্দন তাতা আন্টি
পরের ইলেকশনে চাচারে কইয়া আমারে একটা সিটের ব্যবস্থা কইরা দিয়েন

তানবীরা এর ছবি

পরের ইলেকশনে চাচারে কইয়া আমারে একটা সিটের ব্যবস্থা কইরা দিয়েন

দাদু পুরুষ চিনতেও ভুল করেন না, সেই আশার গুড়ে কাদা মাটি
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

পারভেজ আহমেদ এর ছবি

আর আমারে কোন মেয়ে এডানোতো দূরে থাক, আমি যে সব মেয়েরে এড করছি দেখি সবগুলাই ফেক একাউন্ট!! আফসোস ফালাই কই?! লেখা খুবই সুন্দর হইছে, তনু নামের চেয়েও সুন্দর খাইছে

তনু (নামটা যেহেতু সৌন্দর্য) আপু (আমার বড় আপুর বয়সও ৪০, তাই আর দাদী বলে ডাকলাম না), আর কেউ না পারুক, দাদুর কাছে কিন্তু বয়স লুকাইতে পারেন নাই... দাদু ঠিক চিনতে পারছে। এডান, কি মজা যে হবে ওটা নিয়ে না হয় আরো দুই-তিন এ-ফোর লিখে ফেলবেন দেঁতো হাসি

তানবীরা এর ছবি

দাদুর কাছে কিন্তু বয়স লুকাইতে পারেন নাই... দাদু ঠিক চিনতে পারছে।

তাই না ?

---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

পান্থ, সচলাসক্তি কাটাতে আজকাল লগায় না এর ছবি

তনু নামে আমার এক বান্ধবী ছিল। একদা তার প্রেমে ব্যাপক হাবুডুবু খাইছিলাম। তার জন্য এখনো দীর্ঘশ্বাস জমে আছে। তাতাপু'র নাম তনু বলে সচলে প্রতিষ্ঠিত হইলে তো সারাক্ষণ তনু চোখের সামনে ভাসবো। পুরানো প্রেমবোধগুলো ফিরে এসে আমাকে না ...! (দীর্ঘশ্বাস)

তানবীরা এর ছবি

আমি পান্থ'র দাবী জোর গলায় সমর্থন করি। পান্থরে কষ্ট দেয়া চলবে না, চলবে না
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

তাহমিনা এর ছবি

লেখা সুপার ডুপার হোয়েছে, তবে ওবামা কেনু, তুমি কি কিলনটন দাদা না লিখে ভুলবশত ওবামা লিখেছ? এশু কে addকরা ২০০% উচিত হবে! অন্ততঃ আরেকটা এমন লেখাত পাব!

@ ধু গো-এশু যে ছেলেদের কে add request পাঠাচেছ তাতে মনে হচেছ এটা confirm fake profile! হাসি
***************************************************

When I'm right nobody remembers; when I'm wrong nobody forgets!

When I'm right nobody remembers; when I'm wrong nobody forgets!

তানবীরা এর ছবি

ক্লিনটন কি এখন প্রেসিডেন্ট আছে? যে কারনে দাদু বাদ - সেই কারনেই কাদু বাদ চাল্লু
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

নুরুজ্জামান মানিক এর ছবি

পোষ্ট হয়েছে রে তনু ।

নুরুজ্জামান মানিক
*******************************************
বলে এক আর করে আর এক যারা
তারাই প্রচণ্ড বাঁচা বেঁচে আছে দাপটে হরষে
এই প্রতারক কালে (মুজিব মেহদী)

নুরুজ্জামান মানিক
*******************************************
বলে এক আর করে আর এক যারা
তারাই প্রচণ্ড বাঁচা বেঁচে আছে দাপটে হরষে
এই প্রতারক কালে (মুজিব মেহদী)

সিরাত এর ছবি

আপনে আছেন আপনার উল্কি-আঁকা হাত আর ব্রাশফায়ার নিয়া! চান্স পাইলেই ঢুকায় দেন।

কি আনন্দজনক! মন খারাপ

তানবীরা এর ছবি

তুইও ব্রুটাস
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

সিরাত এর ছবি

লিখা মজা লাগছে! খুদাপেজ। দেঁতো হাসি

তানবীরা এর ছবি

জাযাকুল্লাহ খাইরুন
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

সাইফ তাহসিন এর ছবি

লেখাটা আবার পড়লাম, আবার হাসতে হাসতে শেষ হবার অবস্থা, এখনও অ্যাড করেন নাই দাদুরে? আপডেট দেন গো তনুপু

=================================
বাংলাদেশই আমার ভূ-স্বর্গ, জননী জন্মভূমিশ্চ স্বর্গাদপি গরিয়সী

তানবীরা এর ছবি

তুমি লুক খ্রাপ ভাইজান, মাইনষের দুঃখে হাসো

আরে না এ্যাড করলেইতো করলাম, থাকুক চাঙ্গে ঝুইল্যা
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

পরিবর্তনশীল এর ছবি

মন খারাপ
---------------------------------
ছেঁড়া স্যান্ডেল

---------------------------------
ছেঁড়া স্যান্ডেল

তানবীরা এর ছবি

মন খারাপ
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

অতন্দ্র প্রহরী এর ছবি

লেখাটা সেই বহুতকাল আগেই পড়সিলাম অফলাইনে। চ্রম হাসি যা দিছিলাম না পড়ার পর! হো হো হো

তানবীরাপু'র পায়ের পাশাপাশি হাতও চলে দুর্দান্ত! হাসি

তানবীরা এর ছবি

পা চালানোর খবর কেমনে জানলো? চিন্তার বিষয় !!!!
---------------------------------------------------------
রাত্রে যদি সূর্যশোকে ঝরে অশ্রুধারা
সূর্য নাহি ফেরে শুধু ব্যর্থ হয় তারা

*******************************************
পদে পদে ভুলভ্রান্তি অথচ জীবন তারচেয়ে বড় ঢের ঢের বড়

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।
Image CAPTCHA