ফিফা প্রেসিডেন্ট সেপ ব্ল্যাটারের পদত্যাগ এবং নেপথ্যের ঘটনা

নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী এর ছবি
লিখেছেন নিয়াজ মোর্শেদ চৌধুরী (তারিখ: বুধ, ০৩/০৬/২০১৫ - ৩:১৩পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

100x
(ছবির ক্রেডিট লেখকের। ২০১৪ সনে জুরিখের ফিফা হেডকোয়ার্টার থেকে তোলা।)

ফিফার প্রেসিডেন্ট ৭৯ বছর বয়সী সুইস নাগরিক সেপ ব্ল্যাটার আজ ঘণ্টা-খানেক আগে মিডিয়াকে জানিয়েছেন তিনি পদত্যাগ করতে যাচ্ছেন। যদিও সাম্প্রতিক ঘটনা বিবেচনায় এই পদত্যাগের ঘটনাই স্বাভাবিক বলে প্রতীয়মান হতো, কিন্তু বাস্তবে এই পদত্যাগের সিদ্ধান্ত অনেকের কাছেই বিস্ময়ের ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। এর অন্যতম কারণ মাত্রই এক সপ্তাহ আগে ব্ল্যাটার পঞ্চম বারের মত ফিফা প্রেসিডেন্ট হিসেবে নির্বাচিত হয়েছে। নির্বাচনের ঠিক আগ মুহূর্তে ফিফার শীর্ষ কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ উঠায় কেঁপে ওঠে ফুটবল বিশ্ব। সুইজারল্যান্ডের জুরিখে ফিফার হেডকোয়ার্টার থেকে গ্রেফতার হয় ভাইস প্রেসিডেন্ট সহ ১৪ জন। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ইউরোপের ফুটবল ফেডারেশন তথা উয়েফার প্রেসিডেন্ট মিশেল প্লাতিনি নির্বাচনের দুই দিন আগে ব্ল্যাটারকে অনুরোধ করে যেন এবার আর তিনি নির্বাচনে না দাঁড়ান। একই অনুরোধ কিছুটা দাবীর সুরে উচ্চারিত হয় ইংল্যান্ডের ফুটবল এ্যাসোসিয়েশন থেকেও। অথচ তখন ব্ল্যাটার ঠিকই একরোখা মনোভাব দেখিয়ে নির্বাচন থেকে সরে না দাঁড়ানোর ঘোষণা দেন এবং দুইদিন পর নির্বাচিতও হন। কিন্তু সপ্তাহ ঘুরতেই ব্ল্যাটার কেন তাহলে মত পরিবর্তন করলেন? এই লেখায় নেপথ্যের ঘটনা পর্যালোচনা করার চেষ্টা করা হলো।


অতঃপর বোবা তরুদের দেশে

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: মঙ্গল, ০২/০৬/২০১৫ - ৯:৫৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[justify]মাঠের বিস্তীর্ণ সবুজ ঘাস দেখলেই তার ইচ্ছে করে সেখানে চিৎ হয়ে শুয়ে আকাশ দেখতে। এভাবে আকাশ দেখতে দেখতেই তার ভেতর মানুষ হয়ে জন্ম নেবার আক্ষেপটা প্রকট হয়ে ওঠে। সে ভাবে এরকম দু’পেয়ে মানুষ হবার চেয়ে বরং সে যদি গাছের সবুজ কচি পাতা হয়ে বছরান্তে একবার জন্ম নিতো আবার ঝরে যেতো। এই বারবার জন্ম নেওয়া এবং ঝরে পড়ার নিষ্পাপ পৌনঃপুনিক প্রাকৃতিক ক্রীড়াচক্র অনাবিল প্রশান্তিতে বুক ভরে দেয়। এই জনাকীর্ণ রেসকোর


ভাতফুল

সুলতানা সাদিয়া এর ছবি
লিখেছেন সুলতানা সাদিয়া [অতিথি] (তারিখ: মঙ্গল, ০২/০৬/২০১৫ - ২:৫৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

উঠানের একপাশে রেবেকার লাশ রাখা। দু'টো ভারি বিছানার চাদর দিয়ে লাশের খাটিয়া ঘিরে দেওয়া হয়েছে। লাশের মাথার কাছে রাখা চেয়ারে একজন বয়স্কা মহিলা বসা। মহিলার হাতে লাল দানার সুন্দর একটা তজবিহ। মহিলা তজবিহ জপছেন আর মাঝে মাঝে বলছেন, ‘মুদ্দার গোছল সারা হইছে, আপনারা সবাই দূর থেইকা দোয়া করেন, ম্যায়া মুদ্দারে পুরুষমানুষ দ্যাখতে পারবো না।’ নারী-পুরুষ নির্বিশেষে কারো মধ্যে লাশ দেখবার কোনো আগ্রহ আছে বলে মনে হচ্ছে


তান্ত্রিক

খেকশিয়াল এর ছবি
লিখেছেন খেকশিয়াল (তারিখ: সোম, ০১/০৬/২০১৫ - ৫:০৭পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

"মন্ত্র কী জানো তো?"

"না, কী?"

জটাধারী মাটিতে আঁক কষতে কষতে মুখ টিপে হাসলেন আর গুনগুনিয়ে গাইতে শুরু করলেন। ঘুরঘুট্টি অমাবস্যায় মশালের আগুনে তার ব্যস্ত হাত মাটিতে চক্রাকারে কী যেন এঁকে চলেছে। জটাধারী গাইছেন,

"স্বপন পাড়ের ডাক শুনেছি, হু হুম হু হু হু হুম ..
কেউ কখনো খুঁজে কি পায়.. হু হুম হু হুম হুম"


ক্ষুদে ব্যাঙের আস্তানায়

আব্দুল গাফফার রনি এর ছবি
লিখেছেন আব্দুল গাফফার রনি [অতিথি] (তারিখ: রবি, ৩১/০৫/২০১৫ - ৬:৩২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

IMG_1901
এক পা করে এগোই ওই ছোট ছোট ঘাসের ফাঁক দিয়ে কী যেন উচ্চিংড়ের মতো লাফিয়ে পালিয়ে যায়। খেয়াল করে দেখি উচ্চিংড়ে নয়। ছোট্ট ছোট্ট ব্যাঙ। এতদিনে আবার দেখা। পারভেজকে বললাম, ‘থাম, ছবি তুলব।’
তুললাম ও। কিন্তু এই ছবি দেখালে কেউ বিশ্বাস করবে না এগুলো এত ছোট। অতএব একটা ধরে হাতে তুলে নিলাম।


ওয়েস্টমিনষ্টার স্টাইল: মান-অভিমান, বৈষম্য, সহনশীলতা আর উদার গণতন্ত্রের গ্রেট বৃটেইন।

থার্ড আই এর ছবি
লিখেছেন থার্ড আই (তারিখ: শনি, ৩০/০৫/২০১৫ - ১:৩৯পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

তানভীর আহমেদ।

২৭ মে ভাষণ প্রদানকালে বৃটেনের রাণী


'ফার্স্ট পার্সন' এবং ঋতুপর্ণ ঘোষ

আয়নামতি এর ছবি
লিখেছেন আয়নামতি [অতিথি] (তারিখ: শুক্র, ২৯/০৫/২০১৫ - ১১:২০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

কমলকুমার মজুমদারের উপন্যাসটা অর্ধেক পড়ে সেই যে কেজো অকেজো বিষয়ের পিছু ধাওয়া করে মেলা ইতং বিতং কাজকম্মের চিপায় খাবি খাচ্ছিলাম তো খেয়েই যাচ্ছিলাম। সেখান থেকে নিজস্ব আরাম কেদারায় ফেরার তাগিদ এবং তারপর ধপাস। হাতে অতি অবশ্যই একখানা বই। খুব পছন্দের একজন বইখানা নিয়ে বসতে বাধ্য করেছেন। তিনি ঋতুপর্ণ। দ্য ঋতুপর্ণ ঘোষ। কাকতলীয়ভাবে কমলকুমার মজুমদার যার স্কুলবেলার ক্রাফট্ টিচার। যে মাস্টার মশাইয়ের ' কী হচ্ছেট


কলঙ্কিত ভাবমূর্তি

জিপসি এর ছবি
লিখেছেন জিপসি [অতিথি] (তারিখ: শুক্র, ২৯/০৫/২০১৫ - ৪:২৯অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

ব্লগরব্লগর টাইপের এই লেখার শিরোনাম কি দিব তা নিয়ে বেশ দোটানায় ছিলাম। অনুভুতিকাতর বাঙালির আত্মসম্মানে বিন্দুমাত্র আঘাত দিয়ে মনঃকষ্টে ভোগার ঝামেলা এড়াতে তাই প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্বের আশ্রয় নিতে হল। জানিনা কতটুকু ক্ষোভমিশ্রিত হৃদয় নিয়ে উনি অবৈধভাবে বিদেশগমনেচ্ছু বাংলাদেশীদের ‘মানসিক সুস্থতা’ নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। বিগত কয়েক মাসে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যমে ‘বাংলাদেশ’ আর ‘বাংলাদেশী-বংশোদ্ভূত’ শব্দ দুটি নিয়ে বেশ মাতামাতি হচ্ছে। জলপ্লাবন আর সাইক্লোনের দেশ নতুন করে বিশ্বমণ্ডলে রাতারাতি পরিচিতি পাচ্ছে ‘অবৈধ’ আর ‘জালিয়াতি’ শব্দযুগলের শিরোনামে। দুর্নীতির শীর্ষস্থান আমাদের হাতছাড়া হয়েছে ঠিকই কিন্তু নৈতিক অবক্ষয়ের কালিমা মুছেনি আজও।


গিরিগিটি জীবন

নীড় সন্ধানী এর ছবি
লিখেছেন নীড় সন্ধানী (তারিখ: শুক্র, ২৯/০৫/২০১৫ - ৩:৫৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

প্রথম জীবন.
প্রথম জীবনটা দারিদ্রক্লিষ্ট। খুব কষ্ট করে পড়াশোনা, তীব্র অভাব আর টানাটানি। টিউশানি করে পড়ার খরচ, একাংশ সংসারেও যায়। সমাজ ভাঙার স্বপ্ন দুচোখে। পড়াশোনার সাথে সমাজতান্ত্রিক ব্যবস্থার আন্দোলনে। নতুন সমাজ গড়ে তোলার আকাংখা। দেয়ালে দেয়ালে পোস্টার ছেয়ে যায় স্বপ্ন শ্লোগানে। সারা রাত চিকা মেরে ভোরবেলা ঘুম। উই শ্যাল ওভার কাম, উই শ্যাল ওভার কাম সাম ডে.... নতুন দিন একদিন আসবেই। পূর্ব দিগন্তে নতুন সূর্য।


লজ্জা

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: শুক্র, ২৯/০৫/২০১৫ - ১২:৩২পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১)