Archive - সেপ 2010 - ব্লগ

September 6th

চিলের হাতে বিপন্ন কান, আর বিশ্ববিদ্যালয়ের র‌্যাংকিং নিয়ে বিভ্রান্তি

রাগিব এর ছবি
লিখেছেন রাগিব (তারিখ: সোম, ০৬/০৯/২০১০ - ১:০৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

small

চিলে কান নিয়েছে, এই শুনে চিলের পেছনে দৌড়ানোটা আমাদের অনেকের প্রিয় স্বভাব। আর সেই চিল যদি বিদেশী চিল হয়, তবে তো কথাই নেই। ইন্টারনেট থেকে প্রাপ্ত বিদেশী চিল হলে তো সোনায় সোহাগা। সম্প্রতি বাংলাদেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর র‌্যাংকিং নিয়ে বাংলাদেশের পত্রপত্রিকায় তোলপাড় শুরু হয়েছে, এমনকি খোদ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের কাছেও ...


একটি মৃত্যু সংবাদ

লুৎফর রহমান রিটন এর ছবি
লিখেছেন লুৎফর রহমান রিটন (তারিখ: সোম, ০৬/০৯/২০১০ - ১:০২পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আমাদের সাহিত্যের কীর্তিমান পুরুষ আবদুল মান্নান সৈয়দ আর নেই। তাঁর সান্নিধ্যের অতিসাম্প্রতিক স্মৃতিগুলো বার বার ভেসে উঠছে চোখের সামনে।

আমার সম্পাদিত ছোটদের কাগজে তিনি কয়েকটি ছড়াও লিখেছিলেন। এবার ঢাকায় গিয়ে অসাধারণ একটি সন্ধ্যা আমি আর আহমাদ মাযহার কাটিয়েছিলাম তাঁর বাড়িতে। সেই প্রথম এবং শেষ, মান্নান ভাইয়ের বাড়িতে যাওয়া। এর আগে কোনোদিন যাওয়া হয়নি তাঁর বাড়িতে।

বাংলা সাহি ...


জিএম ফসল ভাবনা ২

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: রবি, ০৫/০৯/২০১০ - ৭:২২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আরিফিন সন্ধি
স্টকহোম বিশ্ববিদ্যালয়, সুইডেন

প্রথম পর্বের পরে অনেকেই আমার কাছে অভিযোগ করেছেন লেখাটির পরিমাণ এত কম কেন? সবার জন্য জানাচ্ছি আমার এই হাতদুটো এখনো বাংলা লিখতে (কম্পিউটারের কি বোর্ডে অতটা সচল হতে পারিনি)। তবে কথা দিচ্ছি, যতটা সম্ভব বড় করবো।

এখন কথা হলো এই কীট প্রতিরোধী জিএম পণ্যের দরকারটা শুরু হলো কখন থেকে। সত্তরের দশকে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার এক গবেষণা জরিপে দেখা ...


September 5th

পায়ের তলায় সর্ষে- ঠিকানা ক্যাজুরিনা

শ্যাজা এর ছবি
লিখেছেন শ্যাজা (তারিখ: রবি, ০৫/০৯/২০১০ - ৪:২১অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সাদাটে গোল সূর্যটা এক টকটকে লাল বলয়ে ঘেরা

সামনে আদিগন্ত সমুদ্র। বঙ্গপোসাগর। অবিশ্রাম ঢেউ এসে আছড়ে ভাঙছে বোল্ডারে, পান্থবিলাসের নিজস্ব বালুকাবেলায় আর বনবিভাগের এই বাংলোটির বীচের উপর দাঁড়িয়ে থাকা লাল, হলুদ, সাদা রং করা কাঠের রেলিঙে ঘেরা ছোট্ট কাঠের ডেকের তলায়। ঢেউ ভাঙে এক পায়ে ঠায় দাঁড়িয়ে থাকা ঝাউগাছগুলোর গোড়ায়। যদিও আকাশের রং ধূসর, কুয়াশা আর মে ...


তারেক দি পোয়েট

পান্থ রহমান রেজা এর ছবি
লিখেছেন পান্থ রহমান রেজা (তারিখ: রবি, ০৫/০৯/২০১০ - ১১:৩৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

তারেককে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না।
চিন্তায় পড়ে গেছে তারেকের বন্ধু বণিক।
অনেকবার মোবাইল করেছে। দ্য ডায়াল নম্বর কারেন্টলি আনরিচেবল। সুরেলা কণ্ঠে যান্ত্রিক মেয়ে বলে গেছে ক্লান্তিহীন।
একটা এসেমেস দিয়েছে। ডেলিভারি রিপোর্ট এখনো পায়নি।
বণিক দুইবার তারেকের সিঙ্গেল ফ্ল্যাটে গেছে।
দরজায় স্টিকারে লেখা, দূরে গিয়া মর!
বণিক দূরে আর কই যাবে। আজিজে গেছে। ব্যাটা কবি। আজিজের আড্ডায় গাড্ড ...


অলস দুপুর

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: রবি, ০৫/০৯/২০১০ - ১০:৫১পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

ছবিগুলো জমে ছিলো অনেকদিন, আজ ভাবলাম কয়েকটা শেয়ার করি সচলায়তনে। ছবিগুলো জমে ছিলো অনেকদিন, আজ ভাবলাম কয়েকটা শেয়ার করি সচলায়তনে। ছবিগুলো জমে ছিলো অনেকদিন, আজ ভাবলাম কয়েকটা শেয়ার করি সচলায়তনে। ছবিগুলো জমে ছিলো অনেকদিন, আজ ভাবলাম কয়েকটা শেয়ার করি সচলায়তনে। ছবিগুলো জমে ছিলো অনেকদিন, আজ ভাবলাম কয়েকটা শেয়ার করি সচলায়তনে। ছবিগুলো জমে ছিলো অনেকদিন, আজ ভাবলাম কয়েকটা শেয়ার করি সচলায়তনে ...


কোরক ও কিন্নরী

হাসান মোরশেদ এর ছবি
লিখেছেন হাসান মোরশেদ (তারিখ: রবি, ০৫/০৯/২০১০ - ৮:০৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

১।
কবরস্থান একটু বেশী ছায়াময় হয়?
জরুরী নয়, তবু এরকম একটা জিজ্ঞাসায় আক্রান্ত হলো রাশেদ আনোয়ার, অক্টোবরের এক প্রায় শেষ হয়ে আসা বিকেলবেলা। মুলফটক দিয়ে বেশ ভিতরে এসে সে ঘুরে তাকাল। দেয়াল তখন অনেক দূরে, দেয়ালের বাইরের সড়ক তবু দৃশ্যমান। দৃশ্যমান সড়কের উপর নরোম রোদ, অথচ কবরস্থানে ছায়া ছায়া প্রায় অন্ধকার। সামিনার বলে দেয়া অনুযায়ী কবরটা এখানেই থাকার কথা। এইতো বড় একটা গাছ, গাছের পেছনে প ...


আয় তোর মুণ্ডুটা দেখি ফুটোস্কোপ দিয়ে-৩০

সুজন চৌধুরী এর ছবি
লিখেছেন সুজন চৌধুরী (তারিখ: রবি, ০৫/০৯/২০১০ - ৮:০৫পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

Noijjja
মালখুঢ় নৈজ্জার সাথে আমার দেখা হৈছিলো ২০০৮-এর শেষের দিকে ১ সন্ধ্যায় আজিজ মার্কেটে,তাও ১ঘন্টার জন্যে! ছিলেন অনেকেই, সবাই বাঘা বাঘা ব্লগার!তার মধ্যেই নজ্রুলিস্লাম-কে চোখে পড়ছিলো আলাদা করে, ২/৪টা কথাও হৈছিলো তার সাথে, দারুণ স্বপ্রতীভ ১টা পোলা!!


ওরা আসবে(?) সাতশ পৃষ্ঠার একটি উপন্যাসের ইতিকথা।

পুতুল এর ছবি
লিখেছেন পুতুল (তারিখ: রবি, ০৫/০৯/২০১০ - ৩:১৭পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বাইরে এতো সুন্দর আবহাওয়া! এই বসন্তের শ্রেষ্ঠদিন আজ। মায়ের সাথে আঁচলকে পানির কাছে ছেড়ে আসলাম। ডুব-সাঁতার দিতে শিখুক মেয়েটা। সময় পাওয়া খুব কঠিন। এমন মূল্যবান সময় নষ্ট করে প্রায় আটশ পৃষ্ঠার বইটা পড়ে লেখকের প্রতি যে অশ্রদ্ধা এবং ক্ষোভ মনে জন্মেছে, তার কিছুটা আপনাদের সাথে ভাগ না করলে কমবে না।
 
সাধারণত বড় বই দেখলে ভয় পাই। পড়ার সাহস না থাকলেও এই বড় বইটা ঘরে দেখে মনে মনে খুশিই ছিলাম। ...


একছটাক কায়েস আহমেদ-১

অদ্রোহ এর ছবি
লিখেছেন অদ্রোহ [অতিথি] (তারিখ: রবি, ০৫/০৯/২০১০ - ২:৫৭পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

তাঁর সাথে আমার পরিচয় কোন এক ঘোরতর দাবদাহের দিনে। আজিজের সামনে দিয়ে যাচ্ছিলাম, ঢুঁ মারার লোভটা বরাবরের মত সংবরণ করতে পারলামনা। দোকানে থরে থরে সাজিয়ে রাখা বইগুলোকে আলগোছে চেখে নিচ্ছিলাম। পকেটের অবস্থা তখন গড়ের মাঠপ্রায়, তাই চাখতেও হচ্ছিল রয়েসয়ে, পৃথুল বইগুলোর লোলুপ প্রলোভন এড়িয়ে ক্ষীণবপুগুলোর দিকে। হঠাৎ করেই হলুদ মলাটের একটি বইয়ের ওপর নজর আটকে গেল। বলে রাখা ভাল, খানিকটা অবাকই ...