এসো নিজে করি ০১ - কিভাবে লেখালেখি করবেন/ How to write

চরম উদাস এর ছবি
লিখেছেন চরম উদাস (তারিখ: শনি, ২৫/০২/২০১২ - ১২:৩০পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

সচলের ফাঁকিবাজদের লিস্ট দেখে মনে হল লেখালেখি নিয়ে কিছু লিখি। এখানে অনেক বাঘাবাঘা লেখক আছেন যারা চরম অলস হবার কারণে লেখালেখি করতে পারছেন না। আবার অনেক নবীনরা আছেন একেবারে তরবারি উঁচিয়ে প্রস্তুত বাঘা হবার জন্য। কিন্তু তাদের হয়তো লেখা পেটে আসলেও, খাতায় আসছে না। আবার অনেকেই হয়তো মাথা চুলকাতে চুলকাতে ঘা করে ফেলছেন কি লিখবেন কিভাবে লিখবেন এইভেবে। ছেলে বুড়ো সবার জন্য শিক্ষামূলক এই প্রবন্ধ লিখছি।

শুরু করার আগে একটু এসো নিজে করি সিরিজটি নিয়ে কথা বলি। এটি একটি জ্ঞানবিতরণ মুলক সিরিজ। এখানে বিভিন্ন জিনিষ কিভাবে করা যায় সেই বিষয়ে জ্ঞান দেয়া হবে। (ওরে নারে, খুশীতে জিহ্বা বের করার কিছু নেই। আমি জিনিষ এবং করা বলতে জিনিষ এবং করাই বুঝিয়েছি )। আমি একই জিনিষ কিভাবে বিভিন্নভাবে করা যায় সেটা শিখাতে চাচ্ছি না (বলেন নাউজুবিল্লাহ)। বরং বিভিন্ন জিনিষ কিভাবে বিভিন্ন ভাবে করা যায় সেটা নিয়ে কথা বলার জন্যই এসো নিজে করি সিরিজ খুলেছি। যেমন পরের পর্বগুলোতে আরও আসবে কিভাবে পাশের বাড়ির মেয়েটির সাথে প্রেম করবেন, কিভাবে আপনার স্ত্রীকে বশে রাখবেন, কিভাবে মানুষের জীবন ভাজা ভাজা করবেন ইত্যাদি ইত্যাদি শিক্ষামূলক লেখা। যাইহোক শুরুতেই বলে রাখছি এটি শিক্ষামূলক লেখা। সুতরাং এখানে রস আশা করে পরে হাসতে পারলাম না বলে দুঃখিত বলে আমাকে অপমান করার চেষ্টা করবেন না।

আমি সাধারণ লেখা লেখি নিয়ে আলোচনা করতে এসেছি। কেউ যদি উত্তরাধুনিক লেখা নিয়ে আগ্রহী হন তবে মহাস্থবির জাতকের মাস্টারপিস " উত্তরাধুনিক লেখালেখির সহজ কৌশল, বা, উত্তরাধুনিক লেখা এতোই সহজ!" পড়ুন। এই লেখাকে সেটার দ্বিতীয় পর্ব অথবা নকল পর্ব বলতে পারেন।

যাই হোক আপনারা যারা অলস কিন্তু তারপরেও লেখা লেখি করতে চান তাদের জন্য প্রথম শর্ত হচ্ছে আপনাকে উপুড় তথা উপুত হতে হবে। ঘাবড়ানোর কিছু নেই, আপনাকে আপনার বিছানা ত্যাগ করতে বলছি না। শুধু কষ্ট করে চিত অবস্থা থেকে আপনাকে একটু উপুত হতে বলছি। লেখক হবার জন্য আপনাকে কর্মঠ হতে হবে না। বড় বড় অনেক কবি সাহিত্যিকরা দিব্যি শুয়ে বসে দিন কাটিয়ে দিয়েছেন। সুতরাং আপনার বিছানাই হতে পারে আপনার প্লে গ্রাউন্ড। তবে উপুত হতে হবে অবশ্যই। চিত, কাত বা উপুত হয়ে অন্য অনেক খেলাই আপনার প্লে গ্রাউন্ডে হয়তো খেলতে পারেন। সে বিস্তারিত জানার জন্য রণদার ভীষণ সব ইয়ে মার্কা আসন বিষয়ক লেখাগুলো দেখতে পারেন (খালি ছবি দেখলেও চলবে)। যাই হোক মূল কথা হচ্ছে লেখা লেখি চিত বা কাতে সম্ভব না, অবশ্যই উপুত। আপনি সূক্ষ্মকোণী হলে পেট বা বুকের নিচে একটা বালিশ দিয়ে নিন। আর স্থূলকোণী হলে কিচ্ছু লাগবে না, আপনার পেটই হতে পারে আপনার বালিশ। তারপরে খাতা কলম কম্পিউটার মোবাইল ট্যাবলেট যা কিছু হাতের সামনে থাকে ওটা নিয়ে রেডি হয়ে যান।

এইবারে লেখার বিষয় নির্বাচন করুন। কবি আর রাজনীতি বিশ্লেষকরা আমাকে চিবিয়ে খেয়ে ফেলতে পারেন তবুও বলবো সবচেয়ে সহজ বিষয় এই দুইটাই। কবিতা লিখে ফেলুন মন খুলে। কোন নিয়মনীতি নেই শুধু খেয়াল রাখবেন ছন্দ যেন না মিলে আর পড়ে মাথা মুণ্ডু কিছু যেন না বোঝা যায়। সবচেয়ে সহজ ফর্মুলা হচ্ছে - প্রকৃতির সাথে নারীকে মিলিয়ে একটা গিট্টু মেরে দিন, হয়ে যাবে কবিতা। কবিতায় কয়েকটা বহুল ব্যবহৃত শব্দ হচ্ছে, তুমি, আমি, নদী, সূর্য, সন্ধ্যা, গোধূলি, সমুদ্র, আকাশ, মেঘ, বৃষ্টি, সীমানা, হৃদয়, অস্তাচল, জল (খবর্দার, পানি না কখনোই), জলজ , সেদিন, এদিন, ইচ্ছেঘুড়ি, বৃক্ষ, কল্পনা, অপেক্ষা, প্রতীক্ষা, বিস্ময়, পাখি, ঘুঘু, কবুতর, শঙ্খচিল, শালিক (শুধু আধুনিক কবিতা হলে কাক কিন্তু দোয়েল না কোনভাবেই। ইসলামিক কবিতা হলে হুদহুদ বা আবাবিল), মাছরাঙা, ঘাসফড়িঙ,কষ্ট, ভালোবাসা, বিস্মৃতি, প্রণয় (আধুনিক কবিতা হলে সঙ্গম বা অনিন্দ্য সঙ্গম, খালি খেয়াল রাখবেন অনিন্দ্যদার চোখে যেন না পড়ে) ... ইত্যাদি ইত্যাদি। এইগুলা লেগো পিসের মতো একটা সাথে আরেকটা ইচ্ছেমত জোড়া দিলেই হয়ে যাবে চমৎকার পদ্য। দাঁড়ান, ফটাফট একটা লিখছি এখনই,

সেদিন গোধূলির সীমানা পেরিয়ে
তোমার আকাশে সন্ধ্যারা সব
পাখির মতোই নীড়েতে এসে
ভিড় জমিয়ে সন্ধ্যাতারা
শঙ্খচিলের বিস্মৃতিতে
অস্তাচলে যায় হারিয়ে ... ইত্যাদি ইত্যাদি

মানে নিয়ে মাথা ঘামাবেন না। পাঠককে মাথা ঘামাতে দিন। কবির কাজ কবিতা লেখা, পাঠকের কাজ মানে খুঁজে বের করা। দোয়া কুনুত পড়তে থাকুন যেন প্রথম মন্তব্যকারী ভালো কিছু বলে। তাইলে পরের সবাই এসে দেখবেন একটা করে বুড়া আঙ্গুল উঁচায়ে আহা উহু করে যাবে। আপনাদের মধ্যে যেসকল জ্ঞানী আঁতেল গবেষকেরা দিনরাত কম্পুটার প্রোগ্রামিং নিয়ে পড়ে থাকেন কিন্তু মাঝে মাঝে প্রফেসরের ঝাড়ি খেয়ে কবিতা লিখতে মন চায় তারা ইচ্ছা করলে কবিতা লিখার জন্য Java, C/C++ বা MATLAB প্রোগ্রামিং ব্যাবহার করতে পারেন। এমন কঠিন কিছু নয়। প্রথমে উপরে বর্ণিত কী-ওয়ার্ড গুলো বসান। তারপর একটা র‍্যান্ডম সিকুয়েন্স তৈরি করে একটার পরে আরেকটা কী-ওয়ার্ড র‍্যান্ডমলি বসিয়ে দেবার এলগরিদম লিখে ফেলুন। নাম যখন সিরিজের এসো নিজে করি, তাই নিজে একটা ছোট প্রোগ্রাম লিখে উদাহরণ দেই। নাইলে তো পরে আবার বলবেন খালি গুলবাজি করে। এই হচ্ছে কবিতা লেখার জন্য একদম ছোট একটা MATLAB প্রোগ্রাম।

%% Automatic Poem Generator

clc
close all
clear all
Poem_Key={'Tumi'; 'Ami'; 'Nodi'; 'Surjo'; 'Sondha'; 'Godhuli';'Somudro'; 'Akash'; 'Megh'; 'Bristi'; 'Shimana'; 'Hridoy';'Jol' ;'Kolpona'; 'Protikkha'; 'Pronoy'};
Poem_Line_No=4;
Poem_Word_No=4;
for i=1:Poem_Line_No
Poem_Index=randperm(length(Poem_Key));

Poem_Line=[];
for j=1:Poem_Word_No
Poem_Line=[Poem_Line Poem_Key{Poem_Index(j)}];
end
Poem{i}=Poem_Line;
end
Poem

এইটাকে MATLAB এ বসিয়ে এন্টারে বোতামে চিপি দিলেই এইরকম একটা আউটপুট পাবেন।

Poem =

'BristiSurjoGodhuliAkash' 'SondhaTumiAkashShimana' 'AkashPronoySurjoBristi' 'PronoyKolponaHridoyAmi'

প্রতিবার ভিন্ন ভিন্ন কবিতা তৈরি হবে। এইবার এটাকে একটু সাইজ করতে হবে। জটিল কিছু না এই মনে করেন আকাশ কে আকাশে, প্রণয় কে প্রণয়ের, হৃদয়কে হৃদয়ের ইত্যাদি ইত্যাদি। ইচ্ছেমত সামান্য কিছু আকার ইকার যোগ বিয়ক করা আরকি। সেটা করার পর ব্যাপারটা এমন হল।

বৃষ্টি সূর্যের গোধূলি আকাশে
সন্ধ্যা তোমার আকাশ সীমানায়
আকাশ প্রণয়ের সূর্য বৃষ্টিতে
প্রণয় কল্পনার হৃদয়ে আমি

খুব একটা মন্দ হয়নি, কি বলেন? আসলে কী-ওয়ার্ড যত বেশী বসাবেন ততো ভালো ফল পাবেন। সময়াভাবে আমি অল্প কিছু কী-ওয়ার্ড বসিয়েছি বলে বলদ প্রোগ্রামের বলদ র‍্যান্ডম নাম্বার জেনারেটর দুইবার আকাশ, দুইবার সূর্য, দুইবার বৃষ্টি আর দুইবার প্রণয় বসিয়ে দিয়েছে পদ্যে। তাই একটু বেখাপ্পা লাগছে আরকি। নিজের প্রতিভা ব্যাবহার করে এটাকে ঠিকঠাক করুন। সব কাজ যদি কম্পুটারই করে দিবে তাইলে আপনি উপুত হয়েছেন কি করতে?

এইবারে আসি রাজনীতিতে। আমাদের দেশের ১০১টা সমস্যা। বেশীরভাগ সমস্যার মূলেই রাজনীতিবিদরা। এইরকম একটা দেশে থেকে রাজনীতি নিয়ে লিখবেন না তো কি করবেন। কিন্তু খবর্দার, জায়গা বুঝে লেখা লেখুন। গোলাম আজম ভাষা সৈনিক ছিলেন, যুদ্ধাপরাধীর বিচার হওয়া উচিৎ কিন্তু কাউকে রাজনৈতিক হয়রানী করা উচিৎ না এইসব পিরীতের আলাপ যে কোন পত্রিকায় ছেপে ফেলতে পারেন। কিন্তু এইখানে লিখলে এক্কেবারে সবাই ধরে ইয়োগা মেরে দিবে। সুতরাং সেইটা একটু খিয়াল কইরা।

আরেকটি সহজ বিষয় হল আলোকচিত্র। আগে এই ছবিটি দেখুন।

কি বুঝলেন? ছবি তোলা সহজ। এসএলআর থাকলে ভালো, না থাকলেও সমস্যা নেই। যে কোন ক্যামেরা দিয়ে যে কোন দিকে তাক করে যে কোন কিছুর ছবি তুলে ফেলুন। তারপর ফটোশপে ফেলে আঁকিবুঁকি করুন। ফটোশপ না থাকলে মাইক্রোসফট পেইন্টেও কাজ চলবে। এই সফটওয়্যারগুলোর ডান বা বাম কোনায় দেখবেন নানা রকম টুল আছে। কোনটা ব্রাশের মতো, কোনটা তুলির মতো, কোনটা ইরেজারের মতো। বিভিন্ন টুল টেনে ছবির উপর আঁকিবুঁকি করুন। নিজে না পারলে বাসায় কোন বাচ্চাকাচ্চা থাকলে ওদের দিয়ে করান। বেশী পাকনামি করতে চাইলে আরও কিছু এডভান্স টুল ব্যাবহার করে ছবির কিছু অংশ ঘোলা করুন আর আলোআঁধারির একটা খিচুড়ি বানান। ছবির কিছু অংশ আলোকজ্জল কিছু আন্ধার, কিছু শার্প কিছু ঘোলা এই হচ্ছে সবচেয়ে কমন ট্রেন্ড। আর এসএলআর ক্যামেরা থাকলে আরও কিছু কারিগরি করতে পারেন। যেই ছবিই পারেন ধরে ধরে বোকে করে ফেলুন। বোকে মানে আর কিছুনা, শুধু সামনের বস্তুটিাকে ফোকাস করে বাকি সবকিছুকে ঝাপসা করে দেয়া। কঠিন কিছু না, লেন্সের F নাম্বার কমিয়ে বিসমিল্লাহ বলে তাক করে একটা টিপি দিলেই বোকেহ হবে। সেইরকম লেন্স হইলে চাইলেও বোকে হবে, না চাইলেও হবে। গত ডিসেম্বর মাসে আমরা তারকাণু ভ্রমণ দিলাম। একেবারে ফ্লোরিডার আনাচে কানাচে অরলান্ডো, মায়ামি, কি ওয়েস্ট, ডিজনি, ফোর্ট লাউটাউ সব ঘুরে টুরে একাকার। ফিরে এসে ছবি খুলে দেখা গেলো সব ছবি বোকে করে ফেলছে পোলাপান। সব ছবিতেই সামনে কেউ একজন দাড়িয়ে কেলাচ্ছে, পেছনে ঝাপসা। ফ্লোরিডার কমলা ক্ষেত, মায়ামি বীচ, কী-ওয়েস্ট, ডিজনির ক্যাসল সবই দেখতে একইরকম। বোকেই যদি করতে হবে তাইলে এতো কষ্ট করে এতো দূরে যাবার কি মানে। পেছনে সমুদ্রই থাকুক আর কমোডই থাকুক সবই তো এক। যাই হোক, যা বলছিলাম। তারপরেও চাইলে বোকে করে ফেলুন, এটাই এখন বাজারে চলতি। ছবির ফাঁকে ফাঁকে দুই দুই একলাইনের পদ্য বা আধ্যাত্মিক কথা বার্তা জুড়ে দিন। ফাহিম হাসান গং রা এসে আপনাকে একটু ভালমন্দ কথা শুনিয়ে যেতে পারে কিন্তু কান দিবেন না। গায়ের চামড়া মোটা না হলে লেখক হওয়া যায় না। ধরে নিন উনারা ঈর্ষাপীড়িত হয়ে আপনার ভুল ধরার চেষ্টা করছেন।

বিজ্ঞান বিষয়ে লিখতে পারেন। এমন একটা বিষয় বেছে নিন যেটা কেউ অতবেশী জানেনা। এইযে অনার্য সঙ্গীত যে দিনের পর দিন ব্যাকটেরিয়া, ভাইরাস নিয়ে কি কি সব বলে যাচ্ছে সেইটা কি হাছা না মিছা কখনো খতিয়ে দেখেছেন। ঐরকম জ্ঞান বা সময় আছে কারো কাছে? তাই যা বলে সরল মনে বিশ্বাস করি। আজকে যদি বলেন মানুষ আসলে আগে ব্যাকটেরিয়া ছিল, ভবিষ্যতেও আবার ব্যাকটেরিয়াই হয়ে যাবে তাইলে সেইটাও তো বিশ্বাস করতে হবে। বা আজকে যদি দ্রোহী বলে পৃথিবীর ভেতরটা আসলে চরম উদাসের মাথার মতোই ফাঁকা বা হয়রান আবীর এসে বলে বাংলার মানুষের বিবর্তন আসলে বানর প্রজাতি না বরং গণ্ডার প্রজাতি থেকে হয়েছে তাহলে বিশ্বাস না করে উপায় আছে?

ভ্রমণকাহিনী নিয়ে না লেখাই ভালো। একজনের অত্যাচারেই লোকজন অতিষ্ঠ হয়ে আছে, আপনি আবার নতুন করে দুনিয়ার আগারে পাগারে যাবার গল্প ফেঁদে বসলে ধোলাই খাবার ব্যাপক সম্ভাবনা আছে।

গল্প, উপন্যাস লিখতে পারেন। উপন্যাস বিসমিল্লাহ বলে শুরু করে দিন। শেষ করতে হবে এমন কোন কথা নেই। সচলে শুরু হওয়া কোন উপন্যাসই শেষ হয় না। লোকজন গাছে ঝুলিয়ে মই নিয়ে বিদায় হয়। আমি নিজেও সাহিত্যিক শুরু করে আপনাদের দোয়ায় সেইটা ঝুলিয়ে রেখে কাট মেরেছি। লিখতে পারেন রম্যরচনা। শুরুতেই লোক হাসানোর গুরু কারণটি জানতে হবে আপনাকে। পাবলিক অনেক কিছুতেই কারণে অকারণে হাসে কিন্তু সবচেয়ে বেশী হাসে অন্যের বেইজ্জতি দেখে। সুতরাং পচানোর জন্য উপযুক্ত কোন ভিক্টিম খুঁজে নিন আগে। তারপর তাকে নিয়ে কষে মসলা কষান।

খেলাধুলা নিয়ে লিখতে পারেন (নাহে, বেলুন নিয়ে খেলার কথা বলছি না, সত্যিকারের খেলার কথাই বলছি)। সাকিব, তামিম, এমনকি চাইলে আশরাফুলকে নিয়েই কান্নাকাটি করতে পারেন। কিন্তু খবর্দার আফ্রিদি না। আপনার গোপন সুপ্ত ভালবাসা থাকলে সেটা সুপ্তই রাখুন নয়তো আবারও লোকজন উপ্ত করে ইয়োগা মেরে দিবে।

লিখতে পারেন কোন বিখ্যাত বা কুখ্যাত ব্যক্তিকে নিয়ে। আগে সিদ্ধান্ত নিন তাঁর পক্ষে লিখবেন নাকি বিপক্ষে। এদের নিয়ে লিখলে পক্ষেই লিখুন বা বিপক্ষে মোটামুটি ১০০ এর উপর মন্তব্য পাবেন। এখন মন্তব্যে টক,ঝাল, মিষ্টি আলোচনা হবে নাকি সবাই আপনাকে ইয়োগা মারবে সেটা নির্ভর করে আপনার পক্ষ নির্বাচনের উপর। নতুন লেখকদের জন্য ছোট একটা চার্ট দিয়ে দিচ্ছি। এটা দেখে বুঝতে পারবেন কোন ব্যক্তিত্বকে নিয়ে লিখলে আপনার লেখার ফলাফল কি হতে পারে।

আজকের ক্লাস এখানেই শেষ। অচিরেই হাজির হবো আবার, এসো নিজে করি ০২ - How to irritate your professor/ কিভাবে আপনার প্রফেসরকে দৌড়ের উপর রাখবেন অথবা your ass is only yours/আপনার পুটু শুধু আপনারই (আপনার প্রফেসরের নয়) নিয়ে। যেসকল দরিদ্র মেধাবী গবেষকরা প্রফেসরের অত্যাচারে জর্জরিত আছেন তারা সাথেই থাকুন।


মন্তব্য

কুঙ্গ থাঙ এর ছবি

হা হা হা হা হা জটিল......... অটোমেটিক কমেন্ট জেনারেটর টাইপের কিছু কি নাই?

চরম উদাস এর ছবি

সেটাও সম্ভব, অটোমেটিক আপনার হয়ে বুড়া আঙ্গুল পোস্ট করে যাবে সব লেখায় চলুক

কুমার. এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি , আপ্নে পারেনও বটে।
কোবতেসমগ্র লেখার ইনপুট দিলাম।

চরম উদাস এর ছবি

কোডটা একটু ঘষামাজা করলেই আস্ত কবিতাসমগ্র লিখে ফেলতে পারবেন খাইছে

আশফাক আহমেদ এর ছবি

আধুনিক কবিতা হলে সঙ্গম বা অনিন্দ্য সঙ্গম, খালি খেয়াল রাখবেন অনিন্দ্যদার চোখে যেন না পড়ে

চরম। কিন্তু কবি আর কাকেরা থুড়ি কবি আর ফটোগ্রাফারেরা আপনাকে পাইলে খবর আছ উদাসদা

কোডিং-এর আইডিয়াটা বাংলা কবিতায় যুগান্তর আনবে আশা করি।

-------------------------------------------------

ক্লাশভর্তি উজ্জ্বল সন্তান, ওরা জুড়ে দেবে ফুলস্কেফ সমস্ত কাগজ !
আমি বাজে ছেলে, আমি লাষ্ট বেঞ্চি, আমি পারবো না !
আমার হবে না, আমি বুঝে গেছি, আমি সত্যি মূর্খ, আকাঠ !

চরম উদাস এর ছবি

সবই আপনাদের দোয়া খাইছে । কোডিং কবিতার আইডিয়া কিন্তু এইখানে প্যাটেন্ট করে রাখলাম, কেউ ব্যাবহার করলে যেন একটু কিছু হলেও সেলামি দিয়ে যায়।

অনিন্দ্য রহমান এর ছবি

চিন্তিত


রাষ্ট্রায়াত্ত শিল্পের পূর্ণ বিকাশ ঘটুক

চরম উদাস এর ছবি

ইয়ে, মানে...
আমার কুন দোষ নাই ।

সচল জাহিদ এর ছবি

আফনে লুক খ্রাপ। অফিসের মইধ্যে হাসি থামাইতে পারতাছিনা।


এ বিশ্বকে এ শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি, নবজাতকের কাছে এ আমার দৃঢ় অঙ্গীকার।
বিশ্ব পানি দিবসব্যক্তিগত ব্লগ। কৃতজ্ঞতা স্বীকারঃ অভ্র।

চরম উদাস এর ছবি

শিক্ষামূলক লেখা নিয়ে হাসি তামাশা করলে চলবে ? মন খারাপ

এ হাসনাত এর ছবি

খিক খিক।।।ফাকিবাজিতে ধরা খেয়ে এই অবস্থা। লেখা পড়ে মনে হলো ছোটবেলায় প্যারাগ্রাফ লিখতাম how to make a cup of tea।
কবিতার প্রোগ্রামিংটা ভালো হয়েছে। চিন্তা করছি vb দিয়ে একটা সফটওয়্যার তৈরি করে আপনাকে পাঠাব। আপনি শুধু কি-ওয়ার্ড লিখে ইন্টার দিবেন, কবিতা বের হয়ে আসবে। তবে প্রকাশের আগে ''কোমল সাহিত্য মেশিনে'' একবার প্রুফ দেখে নিয়েন।
লেখায় গুল্লি
দ্বিতীয় পর্বের অপেক্ষায় রইলাম। আপনি আবার হিমুদা হয়ে যাবেননা। এখনো আমাদের চন্ডীশিরা পড়াচ্ছেন উনি।

চরম উদাস এর ছবি

vb তে লিখে ফেলেন। এরপর আমি আর আপ্নে মিলে প্যাটেন্ট করে ফেলুম নে

তাসনীম এর ছবি

হো হো হো

________________________________________
অন্ধকার শেষ হ'লে যেই স্তর জেগে ওঠে আলোর আবেগে...

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

কিম্ভূত এর ছবি

হো হো হো এই লোকটা সত্যিকারের উস্তাদ গুরু গুরু

চরম উদাস এর ছবি

লইজ্জা লাগে

যুধিষ্ঠির এর ছবি

হো হো হো

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

তিথীডোর এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

________________________________________
"আষাঢ় সজলঘন আঁধারে, ভাবে বসি দুরাশার ধেয়ানে--
আমি কেন তিথিডোরে বাঁধা রে, ফাগুনেরে মোর পাশে কে আনে"

চরম উদাস এর ছবি

দেঁতো হাসি

রায়হান আবীর এর ছবি

শিক্ষামূলক লেখা পইড়া হাসতে হাসতে অজ্ঞান হয়ে গেলাম দেঁতো হাসি দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

সিরিয়াস লেখা নিয়ে হাসি তামাশা করলে ক্যামনে?

rabbani এর ছবি

চলুক পরের পর্বের অপেক্ষায়

আপনার সব "কেন" এর উত্তর খুঁজতে MATLAB কমান্ড প্রম্পট এ উপর্যুপুরি টাইপ করুন why, অথবা why(integer); যেখানে integer এর মান হতে পারে ১, ২, ৩, ১৩২৫, ১৭৮২, ২৪৮৪১৮ ইত্যাদি।

এর পরে ও উত্তর না পেলে:
for i=1:inf, why, end
-------------------------
penny
dog
ইত্যাদি ও চেষ্টা করে দেখতে পারেন, ছবি এর জন্য ক্যামেরা লাগবেনা

চরম উদাস এর ছবি

হ। why দিয়া পুরা উপন্যাস নামায়ে ফেলা যাবে খাইছে

অনার্য সঙ্গীত এর ছবি

হো হো হো শয়তানী হাসি

______________________
নিজের ভেতর কোথায় সে তীব্র মানুষ!
অক্ষর যাপন

চরম উদাস এর ছবি

আরে অন্যায্য দা যে, খবর কি, শইলদা ভালা ? খাইছে

শিশিরকণা এর ছবি

আপ্নেই তাইলে পাপিষ্ঠ দলছুট!। এইবার মডুদের খবর আছে, কোবতের জোয়ারে সব ভেসে যাবে।

ম্যাটল্যাব কোড দেখে এম,আইটির পোলাপানের বানানো র‍্যান্ডম একাডেমিক পেপার জেনারেটর প্রোগ্রামের কথা মনে পড়লো।

~!~ আমি তাকদুম তাকদুম বাজাই বাংলাদেশের ঢোল ~!~

চরম উদাস এর ছবি

হ্যাঁ, সেইটার কথা জানি। ওইটা নাকি একসেপ্ট ও হয়েছিলো ভালোভাবেই। তবে ওইটার ভেতরের পুরা কথাবার্তা অর্থহীন ছিল। আমার কবতে কিন্তু অর্থহীন না, গভীর মর্মার্থ আছে খাইছে

শিশিরকণা এর ছবি

হ! আপ্নে ত এম, আইটির ইয়োগা মেরে দিলেন।

~!~ আমি তাকদুম তাকদুম বাজাই বাংলাদেশের ঢোল ~!~

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

নির্ঝরা শ্রাবণ এর ছবি

চরম ভাই,
আপ্নে পারেন ও-----------------------
গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

চিন্তিত

উদ্ভট রাকিব এর ছবি

সব কাজ যদি কম্পুটারই করে দিবে তাইলে আপনি উপুত হয়েছেন কি করতে?

গড়াগড়ি দিয়া হাসি =))

একজনের অত্যাচারেই লোকজন অতিষ্ঠ হয়ে আছে, আপনি আবার নতুন করে দুনিয়ার আগারে পাগারে যাবার গল্প ফেঁদে বসলে ধোলাই খাবার ব্যাপক সম্ভাবনা আছে।

উত্তম জাঝা!

MATLAB তো দাদা ইনষ্টল খায় না, উদাস হইয়া বইসা আছে।

গুরু গুরু গুরু গুরু

চরম উদাস এর ছবি

আচ্ছা দাঁড়ান, এরপরে কিভাবে MATLAB ইন্সটল করবেন এই নিয়ে একটা How to সিরিজের লেখা দিবনে। অবশ্য আমার বুদ্ধিতে চললে আপনার MATLAB ইন্সটল হবে ঠিকই কিন্তু Operating System আনইন্সটল হয়ে যাবে খাইছে

নিটোল এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গুরু গুরু গুরু গুরু

_________________
[খোমাখাতা]

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

কৌস্তুভ এর ছবি

কবিতার ম্যাটল্যাব কোডের কপিরাইট তো আমার! এই সেদিনও পছন্দনীয়কে পরামর্শ দিচ্ছিলাম ওটা ব্যবহার করে খুকিডোরকে কিছু খাদ্য সাপ্লাই দিতে... যাহোক আপনি যখন পাব্লিক করেই ফেলেছেন তখন GNU GPL করে ছেড়ে দিলাম। দেঁতো হাসি

লেখা

চরম উদাস এর ছবি

এহ, আমি পাবলিশ করে ফেলার পরে এখন আপনি কপিরাইট দাবী করলে হবে রেগে টং ?? ঐরকম আমিও জুকারবারগ রে পরামর্শ দিছিলাম ফেসও দেখা যায় বুকও দেখা যায় এইরকম একটা কিছু বানাইতে। ব্যাটা কথা অর্ধেক বুঝে ফেসবুক বানায়ে ফেললো।
আচ্ছা যান, কপিরাইট থেকে কিছু পাইলে আপনাকে ৫% দিবোনে খাইছে

কৌস্তুভ এর ছবি

এঃ, খালিদ আঙ্কেল টু পিপিদা, আমার অনেক সাক্ষী আছে... কোর্টে তালগাছ উঠলে আপনাকে মার্কনি প্রমাণ কইরাই ছাড়মু! খাইছে

চরম উদাস এর ছবি

এখন চাচা মামার ভয় দেখাচ্ছেন?? আচ্ছা যান ১০%, আর মুলামুলি কইরেন না।

সজল এর ছবি

এই অধম দেড় বছর আগে র‍্যান্ডম সাহিত্য জেনারেটর বানিয়ে দেয়ার প্রস্তাব দিয়েছিলাম আরেক কবিতাপাগল সচল রাফিকে। আমার দিকেও একটু নজর দিয়েন, ৫%, ১০% যা হয় খাইছে

পরের পর্বের অপেক্ষায় আছি, মাত্রই দেড় ঘন্টা ধরে বসের বাণী শুনে আসছি।

---
মানুষ তার স্বপ্নের সমান বড়

চরম উদাস এর ছবি

এতো মহা ঝামেলায় পড়লাম, একের পর এক লোকজন আইসা আবিষ্কারের ভাগ নিতে চায়। একজন বলে আমার অমুক চাচা সাক্ষী, আরেকজন বলে অমুক মামা সাক্ষী। আপনাদের মতো লোকেদের জন্যই আজকে জব্বার কাগুর মনে এতো কষ্ট। আচ্ছা যান আপ্নেরেও দিলাম ৫%

আব্দুর রহমান এর ছবি

উদাস স্যার, এরা সবাই রেড রাকহ্যাম এর বংশধর ( লাল বোম্বেটের গুপ্তধন-টিনটিন)।

------------------------------------------------------------------
এই জীবনে ভুল না করাই সবচেয়ে বড় ভুল

কৌস্তুভ এর ছবি

হো হো হো

চরম উদাস এর ছবি

অরফিয়াস এর ছবি

এ ইয়ে মানে, আমার কোনো সাক্ষী নাই, কিন্তু পকেট খালি, বেশিনা ৫% এই চলবে লইজ্জা লাগে

----------------------------------------------------------------------------------------------

"একদিন ভোর হবেই"

চরম উদাস এর ছবি

অ্যাঁ

তাসনীম এর ছবি

নাহ, কৌস্তুভ ছোঁড়া দেখি কাগু হয়ে যাচ্ছে।

________________________________________
অন্ধকার শেষ হ'লে যেই স্তর জেগে ওঠে আলোর আবেগে...

চরম উদাস এর ছবি

হ।
এই জন্যই তো কবি বলেছেন, ঘুমিয়ে আছে সকল কাগু সব সচলের অন্তরে।

কৌস্তুভ এর ছবি

রেগে টং

Atahar এর ছবি

হো হো হো

তাপস শর্মা এর ছবি

কাম সারছে।

চরম উদাস এর ছবি

ক্যান? কি কইচ্চি?

প্রৌঢ় ভাবনা এর ছবি

মন্তব্য নাই। দুপুর রাইতে ক্ষিদা লাগছে, মুখ চিপি দিয়া হাসতে হাসতে।

চরম উদাস এর ছবি

মুররুব্বির খালি রাত দুপুরে খিদা লাগে ক্যান খাইছে

আলভী মাহমুদ এর ছবি

চলুক

আপনে মানুষটা পুরাই অমানুষ!রক্ষা কর প্রভু,এমনেই মূর্খ মানুশ,কবিতার "ক" ও বুঝি না,বুঝার আশা এদ্দিন দেখি হুদাই করতেসিলাম খাইছে এইটার পরের যেই পর্বের কথা কইলেন,এখন তো প্রত্যেক দিন সচল চেক না কইরা উপায় নাই,প্রফেসররা মারা খাইতাসে দেখলে বড়ই আনন্দ লাগে দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

ধইজ্জ ধরেন, সল্যুশন আসতেছে অচিরেই

জিজ্ঞাসু এর ছবি

হো হো হো

___________________
সহজ কথা যায়না বলা সহজে

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

মুখর এর ছবি

অসাধারণ হো হো হো

চরম উদাস এর ছবি

চোখ টিপি

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

হো হো হো

চরম উদাস এর ছবি

দেঁতো হাসি

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

আচ্ছা, তাহলে বলেই ফেলি; আপনি যে কী জিনিস সেটা আপনার প্রোফাইল-পিক দেখেই বোঝা যায় চোখ টিপি

চরম উদাস এর ছবি

আপনি কি তাইলে পাকি?

প্রকৃতিপ্রেমিক এর ছবি

বানানটা ঠিক কইরা আবার জিগান হাসি

চরম উদাস এর ছবি

দেঁতো হাসি

নিশা এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

স্যাম এর ছবি

হাহাহাহাহহাহাহহা----- ব্যাপক হো হো হো চলুক

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু

সবুজ পাহাড়ের রাজা এর ছবি

ওরে আমারে ধর রে, হাসতে হাসতে পেটে খিল ধইরা গেলো
আইচ্ছা ইতিহাস বিষয়ক লেখার একটা জেনারেটর কোড দুরকার। দির্তাপেন্নী কন?

অট: অনু, সত্যপীরের পরে দেহি আপনের লাইগাও একখান ইমো দরকার। দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

বানায়ে ফেলেন, কি আছে জীবনে
আর ইতিহাসের লেখার জন্য পীর বাবার কাছ থেকে কী-ওয়ার্ড নিয়ে একই প্রোগ্রামে চালিয়ে দেন।

সত্যপীর এর ছবি

হ ইমো চাই ইমো। বান্দরের ভেটকিওলা ইমো।

উদাস ভাই, কি অয়ার্ড লনঃ "বাদশা, মোগল,ঔপনিবেশিক, ইংরেজ, নবাব, বদমাস, হেরেম, যুবতী, কল্লা, গুম, সিপাই, অত্যাচারী, পরোটা, দিল্লী, কোলকাতা, পন্ডিচেরী, মাদ্রাজ, ষড়যন্ত্র, অনুবাদ, লিখক দায়ী নহেন "। প্রোগ্রাম মারেন লিখা কমপ্লিট।

..................................................................
#Banshibir.

প্রদীপ্তময় সাহা এর ছবি

লিখক দায়ী নহেন

যা কইছেন না ।

সবুজ পাহাড়ের রাজা এর ছবি

এই লন আপনের ইমো।

একটা মেইল দিছিলাম। পাইছুইন?

সত্যপীর এর ছবি

হাততালি

..................................................................
#Banshibir.

চরম উদাস এর ছবি

ইমো দেখা যায় না কেন? ইয়ে, মানে...

সত্যপীর এর ছবি

ইমোর বান্দর লাফ দিসে। দুষ্ট বান্দর।

..................................................................
#Banshibir.

সবুজ পাহাড়ের রাজা এর ছবি
চরম উদাস এর ছবি

হো হো হো
জটিল হইছে

সবুজ পাহাড়ের রাজা এর ছবি
প্রদীপ্তময় সাহা এর ছবি

ঠিক, ঠিক ।
ইমো চাই । চাই । ওঁয়া ওঁয়া

সুমিমা ইয়াসমিন এর ছবি

শিখলাম। এইবার 'এসো নিজে করি-০২' লেইখ্যা ফালামু। আপনার আর কাজ নাই, চরম উদাস, যান ছুটি।

চরম উদাস এর ছবি

লিখে ফেলেন। আমার তাইলে এতো কষ্ট করতে হয়না। ছুটিতেই তো যেতে চাই।

সৈয়দ নজরুল ইসলাম দেলগীর এর ছবি

অসহ্যরকমের দুর্দান্ত

______________________________________
পথই আমার পথের আড়াল

চরম উদাস এর ছবি

এক্কেবারে অসহ্য হইয়া গেলেন চিন্তিত

বিলাস এর ছবি

আপ্নে একটা জিনিস !

চরম উদাস এর ছবি

চিন্তিত

পল্লব এর ছবি

বহুতদিন ধইরাই থিওরি দিতাছি, দলছুট বইলা আসলে কেউ নাই। এইটা একটা র‍্যান্ডম কোবতে জেনারেটর বট। যেই কারণে তারে ইমেইল কইরাও কোন সাড়া পাওয়া যায়না, কারণ এইটা প্রসেস করার ক্ষমতা তার প্রোগ্রামে নাই। আপনে আমার থিওরিটাই প্রমাণ কইরা দিলেন।

==========================
আবার তোরা মানুষ হ!

চরম উদাস এর ছবি

এতদিনে বুঝলেন যে আমিই আসলে দলছুট। মডুরাম, প্যালারাম, সাহিত্যবোদ্ধারামদের ঠোকর খেয়ে খেয়ে নতুন রূপে আবার ফিরে এসেচি খাইছে

কোয়াসিমোডো এর ছবি

কালকে সকালে পরীক্ষা, একেতো কিছু পারিনা আর এখন আপনার লেখা পড়ে হাসতে হাসতে গড়াগড়ি দিচ্ছি, রুমমেটরা অবাক হয়ে তাকায় আছে। গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

কি লাভ পড়াশোনা করে?

নিঃসঙ্গ পৃথিবী এর ছবি

হো হো হো গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি শয়তানী হাসি শয়তানী হাসি

গুরু গুরু গুরু গুরু

চরম উদাস এর ছবি

চোখ টিপি

মরুদ্যান এর ছবি

আপনে লুকটা খ্রাপ! ম্যাঁও

চরম উদাস এর ছবি

আপ্নে কি কবি?? খাইছে

পাঠক এর ছবি

সিভিয়ার হইছে । আপনে একটা কড়া মাল রে ভাই।
-মেফিসটো

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

তৃষা এর ছবি

চলুক অনেক উদদীপনা পেলাম। হাসি কিন্তু Linux এ অভ্র installl করতে পারি ভাইজান??

চরম উদাস এর ছবি

এইরে ভেজালে ফেললেন। আমি যে দুই নম্বর মাস্টর এইটা এখনই তো ধরা পড়ে যাবে। দাঁড়ান দেখি, জ্ঞানী কেউ না কেউ আপনাকে সল্যুশন দেয় কিনা।

অরফিয়াস এর ছবি

MATLAB দিয়ে কবিতা, আহা অসাধারণ, এই বাকি ছিলো চোখ টিপি এক কাজ করুন উদাস দা, কবিতা লেখার পড়ে যে গ্রাফ টা এলো সেটারও একটা ফটো সাটিয়ে দিন গড়াগড়ি দিয়া হাসি

তবে চার্টটা এক কথায় গুল্লি

----------------------------------------------------------------------------------------------

"একদিন ভোর হবেই"

চরম উদাস এর ছবি

আরে লিখতে জানলে Photoshop দিয়েও দিব্যি কবিতা লেখা যায় খাইছে

ত্রিমাত্রিক কবি এর ছবি

শুরু করা উপুন্যাস শেষ করার একটা কুড লেইখা দিবেন্নি উদাস ভাই!
গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

_ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _ _
একজীবনের অপূর্ণ সাধ মেটাতে চাই
আরেক জীবন, চতুর্দিকের সর্বব্যাপী জীবন্ত সুখ
সবকিছুতে আমার একটা হিস্যা তো চাই

চরম উদাস এর ছবি

আরে নাহ, আপনের টা কোড দিয়া ফাঁকিবাজি চলবে না। ইভানা আর সামান্থার কাহিনী পড়ার জন্য মুখিয়ে আছি খাইছে

শাব্দিক এর ছবি

উপন্যাস অর্ধ সমাপ্ত রাখার ব্যাপারে উস্কানিমুলক কথাবার্তার বিরুদ্ধে তেব্র পেতিবাদ।

তুলিরেখা এর ছবি

হাসতে হাসতে বিষম টিষম খেয়ে একেবারে লবেজান দশা। হো হো হো
একের পর এক আবিষ্কারক এসে ৫% করে করে নিয়ে যেতে যেতে দেখা যাবে চরম উদাসের নিজের পকেট থেকেই টাকাকড়ি হাওয়া। হাসি

-----------------------------------------------
কোন্‌ দূর নক্ষত্রের চোখের বিস্ময়
তাহার মানুষ-চোখে ছবি দেখে
একা জেগে রয় -

চরম উদাস এর ছবি

সেটাই, কবিতার দুকান খুলেতে না খুলতেই লোকজন ভাগ বসাইতে চলে আসছে মন খারাপ

সাফি এর ছবি

দ্বিতীয় পর্বের আশায় উদাস হয়ে গ্লাম দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

চিন্তিত

মুস্তাফিজ এর ছবি

অসম্ভব রকমের মারাত্মক!!!

...........................
Every Picture Tells a Story

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু মুস্তাফিজ ভাই। আপনের আগমনে আমি ধন্য। ফটগফুরদের নিয়া হালকা মস্করা করেছি, বেয়াদবি মাফ ইয়ে, মানে...

সত্যপীর এর ছবি

কবিতা লিখে ফেলুন মন খুলে। কোন নিয়মনীতি নেই শুধু খেয়াল রাখবেন ছন্দ যেন না মিলে আর পড়ে মাথা মুণ্ডু কিছু যেন না বোঝা যায়।

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি ও মা গো হাসতে হাসতে প্যাটে ব্যথা হয়া গেলো।

..................................................................
#Banshibir.

সত্যপীর এর ছবি

আবার পড়লাম, এইবার হাসি আসছে ট্যাগ দেইখা। "গবেষণা", "শিক্ষা" গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

..................................................................
#Banshibir.

চরম উদাস এর ছবি

শিক্ষামূলক লেখাই তো ছিলো। লোকজন কেন যে আমারে সিরিয়াসলি নেয় না মন খারাপ

তারেক অণু এর ছবি

দেঁতো হাসি
ফটোগফুর নিয়ে ছবিটা জোস হয়ছে, মাঝে মাঝে কিছু পাবলিকরে মনে করায় দিতে হবে দেঁতো হাসি
চলুক

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

shafi.m এর ছবি

দেঁতো হাসি
শাফি।

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

স্বাধীন এর ছবি

চরম চলুক

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু

পথের মানুষ এর ছবি

হাহাহা, কোবতে- টোবতে যাও লিখতাম আর মনে হয় আলসেমিতে লিখবোনা।
ম্যাটল্যাব দিয়ে কাজ চালাবো এখন থেকে দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

Assembly Language দিয়ে ট্রাই করতে পারেন, কবতে আরো ইফেক্টিভ হবে খাইছে

শুভাশীষ দাশ এর ছবি

ভালো চোথা।

চরম উদাস এর ছবি

হাসি

স্বপ্নাদিষ্ট এর ছবি

কবতে রকস! উদাস ভাই রকস! চলুক পরের পর্ব তাড়াতাড়ি নামাইয়া ফালান ভাইডি।।। হাততালি

ম্যাথল্যাব জেনারেটেড কবিতা দেখে পুরাই কস্কি মমিন! হয়ে গেলাম!

-স্বপ্নাদিষ্ট
=======================
যে জাতি নিজের ভাগ্য নিজে পরিবর্তন করে না, আল্লাহ তার ভাগ্য পরিবর্তন করেন না।

চরম উদাস এর ছবি

আগে জানতেন না? আমিতো এতদিন ধরে আমার সব লেখা MATLAB দিয়েই লিখে আসতেছি খাইছে

সত্যপীর এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গুল্লি গড়াগড়ি দিয়া হাসি
ঐ মিয়া আপনে থামেন। এক লিখায় কত হাসাইবেন?

..................................................................
#Banshibir.

নৈষাদ এর ছবি

মারাত্মক।

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু

আনন্দী কল্যাণ এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি হো হো হো

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

প্রদীপ্তময় সাহা এর ছবি

আপনার এই ভীষণরকম 'সিরিয়াস', গভীর, গবেষণালব্ধ, জ্ঞানসমৃদ্ধ, শিক্ষামূলক প্রবন্ধ পাঠ করিয়া যারপরনাই উপকৃত হইলাম ।

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

খালি হাসলেই চলবে, কিছু কি শিখলেন?

প্রদীপ্তময় সাহা এর ছবি

হ শিখছি । যা শিখছি শীঘ্রই অ্যাপ্লাই করুম । খাইছে

অনিকেত এর ছবি

নাহ বস, হাসতে হাসতে চোখে পানি চলে এসেছে--এটা মেনে নিতেই হচ্ছে---তুমি একটা বস মানুষ!
তোমারে স্যালুট!

চরম উদাস এর ছবি

থিঙ্কু অনিকেত দা দেঁতো হাসি

মৃত্যুময় ঈষৎ এর ছবি

ওঁয়া ওঁয়া

এমনে ধুইয়া দিলান বস!!! খেলুমই না!!! রেগে টং

যাউগ্গা আসল কথা কৈঃ ফাডায়ালাইছেন উত্তম জাঝা! !!! পরের পর্ব ছাড়েন!!!


_____________________
Give Her Freedom!

চরম উদাস এর ছবি

কৈ ধুইলাম? সরলমনে একটা লেখা লিখছি ইয়ে, মানে...

দ্রোহী এর ছবি

আপনে একটা জিনিস বটে!!!!!!!

দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

সুপ্রিয় দেব শান্ত এর ছবি

গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

তারাপ কোয়াস এর ছবি

কালকের সংবাদ শিরোনাম হতে পারে:
বিশ্ব বেহায়ার কোবতে লেখার ফর্মুলা ফাঁস! ইয়োগা ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্থ।

সাবধানে থাইকেন উদাস ভাই চোখ টিপি


love the life you live. live the life you love.

চরম উদাস এর ছবি

আবার জিগায় খাইছে

অমিত এর ছবি

উপরে দেখলাম সবাই বাহবা দিচ্ছে। তাহলে আপনের নিয়মেই চলুক
তবে আসলেই গুল্লি

চরম উদাস এর ছবি

হে হে, অটো কমেন্ট করলেন।

কিশোর এর ছবি

পরের পর্বের জন্য তর সইছে না গুরু গুরু গুরু গুরু

চরম উদাস এর ছবি

আসবে

ইমতিয়াজ আহমেদ ইমন এর ছবি

চরম উদাস এর ছবি

বাকসো ফাকা কেন?

রু (অতিথি)  এর ছবি

সচলায়তন এতো নতুন কিছু করে, একটা নোবেলের ব্যবস্থা করে না কেন? সাহিত্যে নোবেল আপনার প্রাপ্য। আপনার ম্যাটল্যাবের কবিতা জেনারেটরের মতো আরেকটা জেনারেটর বানানোর পরিকল্পনা করেছিলাম ব্যান্ডের গানের জন্য, তাও আবার কাগজের পুরিয়া দিয়ে। চোর, পুলিশ,ডাকাত খেলেছেন না! কাগজে লিখে গুটলু বানায় ছুড়ে দিতে হয়, একেক জন একেকটা তোলে। ঐ রকম, না দেখে কাগজের পুরিয়া সাজানো হবে। তারপর যা থাকে কপালে। শব্দের নমুনাগুলো আপনার কাছাকাছি ছিল। ফেরারী (ফেরারী বাতাস মনে হয় ভালো যাবে), নীল এবং নীলিমা, বহুদূর, ছেলেবেলা, হারিয়ে গেছো, অজানা, অচেনা, এইগুলাও ছিল আর কি!

আপনাকে নোবেল দেওয়ার সাথে সাথে সচলায়তনের উচিত হবে একটা 'মুলা লগ' ঝুলানো। যেইসব উপন্যাস আধলা অবস্থায় পড়ে আছে, সেইগুলার মালিকসহ নাম ঠিকানা সব ঝুলায় দেওয়া হবে 'এদের ধরিয়ে দিন' বলে।

মৃত্যুময় ঈষৎ(অফলাইন) এর ছবি

সচলায়তনের উচিত হবে একটা 'মুলা লগ' ঝুলানো। যেইসব উপন্যাস আধলা অবস্থায় পড়ে আছে, সেইগুলার মালিকসহ নাম ঠিকানা সব ঝুলায় দেওয়া হবে 'এদের ধরিয়ে দিন' বলে। চলুক হো হো হো

চরম উদাস এর ছবি

মূলার আইডিয়া টা জটিল খাইছে

অরিত্র অরিত্র এর ছবি

ভাই, কী বলব। হাসতে হাসতে পেট ব্যথা হয়ে গেল।
গুরু গুরু

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

ফাহিম হাসান এর ছবি

একেবারে আগুন লাগিয়ে দিলেন ব্রো গুল্লি গুল্লি গুল্লি

চরম উদাস এর ছবি

দেঁতো হাসি

পরী  এর ছবি

লেখা (গুড়) হয়েছে।
"কিভাবে পাশের ফ্ল্যাটের পোলার সাথে প্রেম করা যায়" আর "কিভাবে মানুষের জীবন ভাজা ভাজা করা যায়" এই দুইটা বিষয়ের জন্য ওয়েটিং অ্যান্ড ওয়েটিং করতেয়াছি মনু দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

আরে , আপনার পাশের বাসার ছেলেটিকেই তো ট্রেনিং দিয়ে দিচ্ছি, কষ্ট করে আপনাকে আর শিখতে হবে না। খালি দিল আর বাসার দরজা একটু খুইল্লা রাইখেন চোখ টিপি

স্বপ্নহারা এর ছবি

গুরু গুরু

ম্যাটল্যাবের র‍্যান্ডম নাম্বার জেনারেটরে একটা সমস্যা আছে। সেটা পুরোপুরি র‍্যান্ডম না। তাই কবিদের সাবধান থাকার ডিস্ক্লেইমার না দিলে কিন্তু কেইস খাইবেন দেঁতো হাসি

যাউজ্ঞা, আমিও অনেক গুলা কোবতে-গল্প-উপন্যাসের শুরু করার চিন্তা করছিলাম। শুরু করা হয় নাই। সেই হিসাবে তো কয়েক পর্ব দিয়ে যারা হাওয়া তাদের রেস্পেক্ট করা ছাড়া গতি দেখি না।

-------------------------------------------------------------
জীবন অর্থহীন, শোন হে অর্বাচীন...

চরম উদাস এর ছবি

আবার বইলেন না, আমার দিনরাত হচ্ছে রেন্ডম নয়েজময়। পত্তেক দিন গাদায় গাদায় রেন্ডম নয়েজ বানায়ে সেইগুলার গ্রাফের দিকে প্রেম নয়নে তাকায়ে থাকাই আমার চাকরি মন খারাপ
এখন দুনিয়ার সবাইরেই খালি নয়েজ মনে হয়, বসরে ইমপালস নয়েজ, বউরে হোয়াইট নয়েজ! নিজেরে 1/f Noise (দ্রুত বুড়া হয়ে যাচ্ছি বলে) , ইত্যাদি ইত্যাদি

সুলতানা পারভীন শিমুল এর ছবি

আপনে মিয়া পুরাই অমানুষ একটা! হো হো হো

...........................

একটি নিমেষ ধরতে চেয়ে আমার এমন কাঙালপনা

চরম উদাস এর ছবি

ক্যান? কি কইচ্চি ইয়ে, মানে...

সুহান রিজওয়ান এর ছবি

এসেছে নতুন মাল,
তাকে ছেড়ে দেতে হবে খাল দেঁতো হাসি

চরম উদাস এর ছবি

খাসা পদ্য হয়েছতো। কি দিয়ে লিখলেন, photoshop ?

দুষ্ট বালিকা এর ছবি

ভাইরে ভাই! গড়াগড়ি দিয়া হাসি

**************************************************
“মসজিদ ভাঙলে আল্লার কিছু যায় আসে না, মন্দির ভাঙলে ভগবানের কিছু যায়-আসে না; যায়-আসে শুধু ধর্মান্ধদের। ওরাই মসজিদ ভাঙে, মন্দির ভাঙে।

মসজিদ তোলা আর ভাঙার নাম রাজনীতি, মন্দির ভাঙা আর তোলার নাম রাজনীতি।

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

এসো_কবিতা_লিখি এর ছবি

গোপন স্বপ্নে সমুদ্রের বৃষ্টি
অপেক্ষা প্রণয়ের নক্ষত্রের আকাশে
আমি দিনে প্রতীক্ষায় নীল
কল্পনার ঝড়ে তোমার নদী

[poem generated by 'এসো কবিতা লিখি v1.0']

চরম উদাস এর ছবি

আরে, মারাত্বক হইছে গড়াগড়ি দিয়া হাসি । কিন্তু এইটা এখানে কেন? সচলের নীড় পাতায় পোস্ট করে দেন খাইছে । মডুরা লেখা না ছাড়লে আমরা ঘরে ঘরে আন্দোলন গড়ে তুলবো

সত্যপীর এর ছবি

হাততালি গুল্লি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

..................................................................
#Banshibir.

কালো কাক এর ছবি

চলুক
মারাত্মক হইসে ! এইরকম কয়েকটা নামায়ে অণুকাব্য-০০১ নাম দিয়ে নীড়পাতায় দেন। দেঁতো হাসি

এইবার মডুদের হইসে ঝামেলা। কোন কবিতা ম্যাটল্যাবপ্রসূত আর কোনটা কারো নিজস্ব মাথাপ্রসূত এই চিন্তায় চুল পেকে যাবে দেঁতো হাসি

_প্রজাপতি এর ছবি

চলুক

ছিন্ন পাতার সাজাই তরণী, একা একা করি খেলা ...

চরম উদাস এর ছবি

আপনারে অসংখ্য -ধইন্যাপাতা-

উচ্ছলা এর ছবি

এটা আরেকটা ''রক স্টার" প্রডাকশান আপ্নার। হাসতে হাসতে আমার মরার দশা হয়েছে।
গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু গুরু

তাপস শর্মা এর ছবি

রক আর স্টার দুইডা আলাদা জিনিষ ইয়ে, মানে... । এখন দুইডা আলাদা কইরা তুমি বেচারা নাদুসনুদুস, নিষ্পাপ উদাস ভাইয়ারে কি বানাইছ তুমিই জান। চিন্তিত

তবে হে নারিবাদী আমাগো উদাসের উদ্দাসামিতে উদাসীন দৃষ্টি দিলে খপর আছে। খুউপ খিয়াল কৈরা ম্যাঁও

চরম উদাস এর ছবি

খাড়ান, আপনের একটা ব্যবস্থা করতেছি, ইস্টে টিউনড!

উচ্ছলা এর ছবি

তাপসের ব্যবস্থা করেন তো, প্লীজ। জীবনটা অতীষ্ট করে মারল ঐটা।
(বিনিময়ে আল্লাহ আপ্নার মাথায় যত চুল আছে, ততগুলা সন্তানের গর্বীত জনক বানাক। দোয়া দিলাম। )

সাফি এর ছবি

বড় ভাই যদি টাকলা না হয়ে থাকেন, তাহলে ভাবী লাগবে কয়টা সেইটা হিসেব করা দরকার

চরম উদাস এর ছবি

আমার মাথায় মাশাল্লা যেই পরিমান চুল আছে তাতে মনে করেন ইলিশ মাছের রেটে ডিম পারলেও এক জীবন পার হয়ে যাবে আপনের দোয়া পুরণ হতে ইয়ে, মানে...

সাফি এর ছবি

ও উদা ভাই, ছুডু ভাইরা আছিনা, চিন্তা করেন কেন দেঁতো হাসি

তাপস শর্মা এর ছবি

হ। আমিও হাজির আছি সাফি ভাই এর লগে। এতটুকু কাম তো কত্তেই পারি। আফটার অল সামাজিকতাওতো একটা আছেনা। হুঁহুঁ খাইছে

তাপস শর্মা এর ছবি

কি কইচ্চি ?

চরম উদাস এর ছবি

আপনে বাঘের কান দিয়া ল্যানজা চুলকাইছেন ঘেঁয়াও...

তাপস শর্মা এর ছবি
চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

তানিম এহসান এর ছবি

জটিল হয়েছে উদাস ভাই, চমৎকার হাসি

চরম উদাস এর ছবি

সবই আপনার দুয়া লইজ্জা লাগে

কলম কবির এর ছবি

এবছর বেসিসের আইটি ইনোভেশন সার্চ প্রোগ্রামে ২১ তম অবস্থানে ছিল একটা সফটওয়্যার, নাম "ই-কবি"। প্রোজেক্টের শ্লোগান- "জীবন হোক ছন্দময়, আর কোন দন্দ্ব নয়"।

আপনাদের বখরার আশা মনে হয় পুরোটাই গেল মন খারাপ

চরম উদাস এর ছবি

দাড়ান, জব্বার কাগুরে বিচার দিতেছি। সবকয়টারে যদি জেলের খিচুড়ি না খাওয়াইছি তাইলে আমার নাম উদাস না (আমার নাম অবশ্য এমনেও উদাস না ইয়ে, মানে... )

কালো কাক এর ছবি

ভাই আপ্নে কমেন্ট দেয়া বন্ধ করেন। এক লেখায় আর কত হাসা যায় ? খাইছে

তদানিন্তন পাঁঠা এর ছবি

আমার আগে ১৬৮ নং মন্তব্য দেখছি। (অবশ্য তারভিতর আপ্নের উত্তর দেয়াগুলিও আছে।) মডারেশন পার হয়ে আমারটা পোস্ট হতে হতে আশা করি আরো কিছু মন্তব্য পেয়ে যাবেন। দেঁতো হাসি

আপনারে কুর্নিশ না জানিয়ে পারলাম না। গুরু গুরু আপনার সিরিয়াস লেখা পড়ে আমার অবস্থাও সিরিয়াস।

চরম উদাস এর ছবি

দেঁতো হাসি
কেমুন আছেন ফাডা ভাই ? বহুদিন আপনের লেখা দেখি না

তদানিন্তন পাঁঠা এর ছবি

কয়েন না ভাইডি, সে বড় দুষ্কের কথা। উপুত হইতে পেটে চাপ পড়ে তাই একটা ফাঁকিবাজি লিখা দিয়েছিলুম (২০০৪ এ লিখা ছিল) ইট্টু এডিট কইরা; কিন্তু মডুরামরা বড়ই নিষ্ঠুর। ঘ্যাচাং মাইরা দিছে। ইয়ে, মানে...

নীড় সন্ধানী এর ছবি

গুরু গুরু গুল্লি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি গড়াগড়ি দিয়া হাসি

‍‌-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.--.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.-.
সকল লোকের মাঝে বসে, আমার নিজের মুদ্রাদোষে
আমি একা হতেছি আলাদা? আমার চোখেই শুধু ধাঁধা?

চরম উদাস এর ছবি

শয়তানী হাসি

জি.এম.তানিম এর ছবি

হো হো হো

-----------------------------------------------------------------
কাচের জগে, বালতি-মগে, চায়ের কাপে ছাই,
অন্ধকারে ভূতের কোরাস, “মুন্ডু কেটে খাই” ।

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

সারার এর ছবি

এই লেখাটা পড়ে লেখালেখি করার জোশ ফিরে পেলাম। আপনার সতর্কবাণী সত্যেও ভ্রমণ -কাহিনীই লিখব! সৈয়দ হকের ''মার্জিনে মন্তব্য'' বইতে র‍্যান্ডম কবিতা জেনারেটরের কথা পড়েছিলাম। কবি তাঁর লেখা কবিতার শব্দ গুলোর অবস্থান কম্পিউটারে র‍্যান্ডমলি পালটে নতুন আরো দুটো কবিতা তৈরি করেছিলেন এবং মন্তব্য করেছিলেন ভবিষ্যতে কম্পিউটার হয়ে উঠবে যুগ্ন-কবি বা এই জাতীয় কিছু! আপনার কপিরাইট বোধহয় পুরোটাই গেল! এরচেয়ে একে ওপেন সোর্স বানায়ে কবিদের ভাত মেরে দিন ও আমাদের জন্য পিজ্জার ব্যবস্থা করুন !

চরম উদাস এর ছবি

শেষ পর্যন্ত এখন সৈয়দ হকও বখরার দাবী নিয়ে চলে আসলেন? মন খারাপ । কয়দিন পরে মনে হয় রবীন্দ্র ভক্তরাও ধুয়ো তুলবে রবীন্দ্রনাথ সব গান Assembly Language আর কবতে FORTRAN দিয়ে লিখতেন (তখন তো আর MATLAB ছিলোনা) ইয়ে, মানে... । অবশ্য সেটা হতেও পারে, নাইলে কোন মানুষের পক্ষে এইপরিমান তো লিখা সম্ভব না।

শিশিরকণা এর ছবি

এইটা আমার অনেক দিন থেকেই সন্দ হয়।
লুডুর গুটি চালান দিয়েও লিখতে পারেন। মনে করেন ছক্কার এক এক সাইডে এক এক খান শব্দ খোদাই করা। কালিতে চুবায় সাদা কাগজের উপর গড়ান দিলে একেবারে কবিতা ছাপা হয়ে যাইবেক। - এইটার প্যাটেন্ট আমি দাবি করে রাখলাম।

~!~ আমি তাকদুম তাকদুম বাজাই বাংলাদেশের ঢোল ~!~

হিমু এর ছবি

কবিদের জন্যে একটা কোবতেবোধক চিহ্ন ডিজাইন করেছিলেন সুজন্দা।

চরম উদাস এর ছবি

হো হো হো জটিল

Kazi এর ছবি

আমার মনটাই িক dirty নািক িঠক েদখছি!!

ব্যাঙের ছাতা এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি
গুরু গুরু
গুল্লি
ইমো তো খুঁজে পাচ্ছিনা মন খারাপ এমন চরম লেখার জন্য।

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

মর্ম এর ছবি

দ্বিতীয় পর্ব কই?!!! এদ্দিন লাগে ক্যান!? রেগে টং

~~~~~~~~~~~~~~~~
আমার লেখা কইবে কথা যখন আমি থাকবোনা...

চরম উদাস এর ছবি

ও মা, মাত্র কয়দিন তো গেলো! এট্টু দম নিতে দিবেন না। এট্টু চা টা (আলাদা করে বলছি কিন্তু) খেয়ে নেই।

^_^ এর ছবি

বেয়াপক শিক্ষামূলক লেখা। প্রতি লাইন এ শিক্ষা। গুরু গুরু গুরু গুরু
লিখে ফেলেন পরের পর্ব টা । আন্তরিক অনুরোধ। আপনে না করতে পারবেন্না। ম্যাঁও
আপনি লিখে ফেলেন। চা তো শেষ, আবার,চা বানায় দিব। হাসি (গুড়) ।

চরম উদাস এর ছবি

চা শেষ, কফি খাই এখন। শেষ হলেই পরের পর্ব নামায়ে ফেলবো

পরিবর্তনশীল এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

চরম উদাস এর ছবি

আপনের নতুন লেখা কৈ? কিরিকেট নিয়া ওইসব ফাকিবাজি লেখা না, আসল লেখা দেন

মেঘা এর ছবি

এটা কোন কথা হলো! উদাস ভাই এতো কমেন্ট কেন?! কমেন্টগুলোও সমান মজার তাই সেগুলোও মিস করতে ইচ্ছা করে না। কত সময় লাগে একটা পোষ্টে ঢুকলে ভেবে দেখেন!

পরের পর্ব কই? আর কত রেস্ট লাগবে? রেগে টং

চরম উদাস এর ছবি

হ, কমেন্টের জবাব দিতে দিতে আমারও হাত পা ব্যথা হয়া গেলো। তবে আমিও লক্ষী ছেলের মতো সবার কমেন্টের জবাব দেই।

কল্যাণ এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি গুরু গুরু

______________
আমার নামের মধ্যে ১৩

চরম উদাস এর ছবি

আপনে এতদিন কুন চিপায় ছিলেন?

নিলয় নন্দী এর ছবি

গায়ের চামড়া মোটা না হলে লেখক হওয়া যায় না।

হাউ টু মেক ইয়োর স্কিন থিক লাইক এ রাইটার

মন খারাপ

চরম উদাস এর ছবি

কথা সত্য খাইছে

কর্ণজয় এর ছবি

। বৃহস্পতি ।

চরম উদাস এর ছবি

একাদশে ?

TFN এর ছবি

লোল হাসি

চরম উদাস এর ছবি

খাইছে

অতিথি লেখক এর ছবি

না বুঝিয়া বুক মার্কে টিপ দিয়েছি। ভাই আমি আপনার শিষ্য হতে চাই।

শাশ্বত স্বপন

অতিথি লেখক এর ছবি

ভাই দিলেন তো বাঁশটা মেরে, দুই-চারটা অকবিতা লেখার চেষ্টা করতাম কিন্তু আপনি কিভবে লেখতে হবে শিখাতে গিয়ে উইকিলসের মতো দিলেন কবি আর কবিতার সব তথ্য ফাঁস করে। কবিতা পড়তে গেলেতো এখন সবাই আপনার কথা মাথা রেখে দিবে আর কবিদের পটু মারবে গুল্লি । আর আপনার জ্বালায় নিজেকে মৌলিক প্রমাণ করতে এইবার শব্দ খুঁজতে হবে, বাংলা অভিধান বুকে নিয়ে ঘুমাতে হবে, দরকার হলে নিজেকেই নতুন শব্দ সৃষ্টি করতে হবে। আপনার বিচার হওয়া উচিত, একটা স্বচ্ছ নিরপেক্ষ আর আর্ন্তজাতিক মানের তদন্ত করে আপনাকে বুঝিয়ে দিতে হবে বাকশালী আচরন করে রেহাই পাওয়া যায়না। গড়াগড়ি দিয়া হাসি

মাসুদ সজীব

অতিথি লেখক এর ছবি

কত অজানারে জানিলাম আজি

তুষার রায়

অতিথি লেখক এর ছবি

গড়াগড়ি দিয়া হাসি

দেবদ্যুতি

অতিথি লেখক এর ছবি

কি আর কইতাম, হাসাইতে হাসাইতে মাইরালছুইন ঠাইট চলুক হো হো হো
ইসরাত অমিতাভ

সাক্ষী সত্যানন্দ এর ছবি

আপনি সূক্ষ্মকোণী হলে পেট বা বুকের নিচে একটা বালিশ দিয়ে নিন। আর স্থূলকোণী হলে কিচ্ছু লাগবে না, আপনার পেটই হতে পারে আপনার বালিশ।

সমকোণ কুথায়? চিন্তিত

____________________________________
যাহারা তোমার বিষাইছে বায়ু, নিভাইছে তব আলো,
তুমি কি তাদের ক্ষমা করিয়াছ, তুমি কি বেসেছ ভালো?

নতুন মন্তব্য করুন

এই ঘরটির বিষয়বস্তু গোপন রাখা হবে এবং জনসমক্ষে প্রকাশ করা হবে না।