সাকিব - হিরো ইজ বিকামিং ভিলেইন

শাহেনশাহ সিমন এর ছবি
লিখেছেন শাহেনশাহ সিমন (তারিখ: সোম, ০৭/০৭/২০১৪ - ৮:১২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

নেইমারের ও ডি মারিয়ার সেমিফাইনাল খেলার অনিশ্চয়তা বা বিভিন্ন ফুটবলদদের ভীড় ঠেলে পত্রিকায় জায়গা করে নিলেন ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান। এবং স্বাভাবিক ভাবেই সোশ্যাল মিডিয়াতে শুরু হয়ে গেছে তার পক্ষ ও বিপক্ষ নিয়ে কথার তুবড়ি। আমিও ব্যাতিক্রম নই। আর সচল-ই বা বাদ থাকবে কেন এই আলোচনা থেকে?

গত আট মাসে সাকিব বেশ কয়েকবার সমালোচনার শিকার হয়েছেন। একটু চোখ বুলিয়ে নেই সেখানেঃ


সুলতানা নন্‌, সুলতান!

ষষ্ঠ পাণ্ডব এর ছবি
লিখেছেন ষষ্ঠ পাণ্ডব (তারিখ: শনি, ০৫/০৭/২০১৪ - ১১:৩০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

আজ থেকে প্রায় আটশ’ বছর আগে কথা ভাবা যাক। তখন ইউরোপ-এশিয়া একের পর এক ক্রুসেডে লিপ্ত, আব্বাসীয় খিলাফাত আর খাওয়ারিজমশাহীর সূর্য অস্তাচলে যাচ্ছে, মঙ্গোলরা প্রবল বিক্রমে এশিয়া আর পূর্ব ইউরোপ তছনছ করছে, ব্রিটেনে সবে ম্যাগনা কার্টা স্বাক্ষরিত হয়েছে, আজটেক আর ইন্‌কারা দোর্দণ্ড প্রতাপে রাজত্ব চালাচ্ছে, কলম্বাসের আমেরিকায় পদার্পণ করতে আরো আড়াইশ’ বছর বাকি, উইলিয়াম ইয়ানযুনেরও অস্ট্রেলিয়ায় পদার্পণ করতে আরো চারশ’ বছর বাকি, এশিয়া-আফ্রিকা-আমেরিকায় ইউরোপিয় দেশগুলোর উপনিবেশ স্থাপন, রেনেসাঁ, শিল্প বিপ্লবের মতো বিষয়গুলো চিন্তার বাইরে, তখন ত্রয়োদশ শতকের প্রথম ভাগে দক্ষিণ ভারতে যখন চেরা সাম্রাজ্যের অবসান হয়ে চোলা, চালুক্য আর পাণ্ডেদের মধ্যে সাম্রাজ্য বিস্তারের লড়াই চলছে। আর উত্তর ও পূর্ব ভারতে মুয়িজ উদ্‌ দৌলাহ্‌ আদ্‌ দীন মুহাম্মাদ ওরফে মুহাম্মাদ ঘোরীর রাজত্ব চলছে।


প্রশ্নপত্র ফাঁস : তরুণ স্বপ্নবণিকেরা

শেহাব এর ছবি
লিখেছেন শেহাব [অতিথি] (তারিখ: শনি, ০৫/০৭/২০১৪ - ৬:১৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[[i]এই লেখাটি প্রথমে আমি বিডিনিউজ২৪.কমের জন্য লিখি প্রশ্নপত্র ফাঁস নিয়ে মুহম্মদ জাফর ইকবালের তৃতীয় লেখাটি প্রকাশিত হওয়ার পর পর। কিন্তু পর দিনই নুরুল ইসলাম নাহিদের লেখাটি আসায় পরিস্থিতি পাল্টে যায় (আমার লেখাটি কিছুটা প্রাসংগিকতা হারায়)। কিছুদিন পরে আমি আবার ঘষামাজা করি কিন্তু দেখা যাচ্ছে এর মধ্যে তদন্ত কমিটি আর শিক্ষাবিদদের সাথে মন্ত্রণালয়ের সভা হয় এবং পরিস্থিতি ঘন ঘন পাল্টাচ্ছে। আমি তাই লেখাটি প্র


এলোমেলো ১৫

মাশীদ এর ছবি
লিখেছেন মাশীদ (তারিখ: শনি, ০৫/০৭/২০১৪ - ১:৫৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

তোমায় আমি আগলে রাখি বুকে
প্রতিদিনের এলোমেলো দুঃখ এবং সুখে।

যেন তোমায় ধরলে বুকে
আমার দিকে তাকিয়ে থাকা আদরমাখা তোমার মুখে
চোখটা খুলে গভীর মায়ায় তাকাই যখন একটু ঝুকে
থামবে তখন আমার যত অস্থিরতা
বুকের মাঝের ভুলগুলি সব মুহূর্তে ঠিক
এটাই যেন খুব স্বাভাবিক
এটাই, শুধু এটাই যেন হবার কথা।

আমার অনেক অনেক কিছুই দেবার ছিল
পাবার ছিল
অনেক কাছের হয়েও দূরের অন্য কোথাও যাবার ছিল


পথ শিশু এবং আগামীর বাংলাদেশ

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: বিষ্যুদ, ০৩/০৭/২০১৪ - ৫:০৮অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

এসেছে নতুন শিশু, তাকে ছেড়ে দিতে হবে স্থান,
জীর্ণ পৃথিবীতে ব্যর্থ, মৃত আর ধ্বংসস্তুপ-পিঠে
চলে যেতে হবে আমাদের ।

চলে যাব-তবু আজ যতক্ষণ দেহে আছে প্রাণ
প্রাণপনে পৃথিবীর সরাব জঞ্জাল,
এ বিশ্বকে এ-শিশুর বাসযোগ্য করে যাব আমি--
নব জাতকের কাছে এ আমার দৃঢ় অঙ্গীকার ।


ভালোলাগার ভিলনুস

অতিথি লেখক এর ছবি
লিখেছেন অতিথি লেখক (তারিখ: বুধ, ০২/০৭/২০১৪ - ৬:০০অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

[justify][justify]


সবিশেষ পার্টি বিত্তান্ত (বাকি অংশ)

রংতুলি এর ছবি
লিখেছেন রংতুলি [অতিথি] (তারিখ: বুধ, ০২/০৭/২০১৪ - ১০:১২পূর্বাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বন্দুকচি তকীউল্লার ট্যাঁকঘড়ি - প্রথম পর্ব

সত্যপীর এর ছবি
লিখেছেন সত্যপীর (তারিখ: মঙ্গল, ০১/০৭/২০১৪ - ১১:৩৩অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

একগাল মুড়ি মুখে দিয়ে হাঁটতে হাঁটতে সেলিম গম্ভীর গলায় বলল, বন্দুকচি কি তবলচির মতন?

আমি একটু চিন্তা করে বললাম, হ কাছাকাছিই। দুইজনেই আওয়াজ বাইর করে। তবলচি তবলা বাজায় আওয়াজ করে আর বন্দুকচি মনে কর যুদ্ধেমুদ্ধে বন্দুক ফুটায় আওয়াজ করে।

বন্দুক ফুটায়? সেলিম আশ্চর্য হয়ে জিজ্ঞেস করল, তইলে এক হইল কেমনে? আমাগো তবলচি আলী নকী তো কাউরে মারত না।

আমি হেসে বললাম, বন্দুকচিও কাউরে মারে না রে ব্যাটা। আওয়াজই বাইরায় খালি। হাতিঘোড়া ভয় খায় এই আর কি।


| ঘড়ায়-ভরা উৎবচন…| ২৯১-৩০০ |

রণদীপম বসু এর ছবি
লিখেছেন রণদীপম বসু (তারিখ: মঙ্গল, ০১/০৭/২০১৪ - ৯:২৭অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

বহুদিন কোন ব্লগ লিখা হয় না। এমনকি ছাইপাশ যে কাজগুলি নিয়মিত করে যাই সেগুলিও আপলোড করা হচ্ছে না ব্যক্তিগত ব্লগেও। আলসেমি একটা নাতি-ক্ষুদ্র কারণ হলেও অবশ্যই তা প্রধান নয়। গত পাঁচ বছর ধরে যে শখের বোঝাটা কাঁধে নিয়েছিলাম 'এ আর কী' ভেবে, সেটা যে নিজের ওজনের চাইতে এভাবে শতগুণ ভারী হয়ে ওঠবে সেটা কি আর মূর্খ মাথায় বুঝেছিলো ! কাঁধে চাপতেই দিনে দিনে ভারী থেকে ভারী হয়ে ওঠা বোঝাটা বুঝিয়ে দিলো ঠিকই, গরু কি সাধে গাছে চড়ে ! কথা ছিলো এই জুনেই কাজটার মুখ বাঁধবো, কিন্তু তা আর হলো কই ! এখন তা প্রলম্বিত করে জুলাইকে টার্গেট করলাম। কোনভাবে ওটা ঘাড় থেকে নামলে আর পায় কে, চুটিয়ে ব্লগিং চলবে আবার ! এ-আশাতেই বুক বাঁধি। কিন্তু এদিকে সচলের আবির্ভাব তিথি যে পেরিয়ে যায় ! কী আর করা ! তাই এই উৎসব-মুখর (?) সংযমের মাসে সকল সহ-সচলের জ্ঞান-গম্যি-ক্ষেমার প্রতি অবিচল আস্থা রেখে আরেকটি ফাঁকিবাজি পোস্ট ! এবং

সচলায়তনের এই আবির্ভাব-তিথিতে সবার জন্য অনেক অনেক শুভকামনা। সচল থাকুন, সচল রাখুন। প্রিয় সচলায়ন অনেক অনেক দীর্ঘায়ু হোক।


রকমারি রক সিটি আর হেলানো রেললাইন

মেঘলা মানুষ এর ছবি
লিখেছেন মেঘলা মানুষ [অতিথি] (তারিখ: মঙ্গল, ০১/০৭/২০১৪ - ৬:১২অপরাহ্ন)
ক্যাটেগরি:

প্রথমেই, কিছু বিজ্ঞাপন দিয়ে নিই, তা না হলে লেখা পড়বার উৎসাহ পাবেন কোথায়? এখানে নাকি পৃথিবীর সবচেয়ে খাড়া রেলপথ আছে যেটাতে এখনও যাত্রীবহন করা হয়। (রোলার কোস্টারগুলো বাদে) এটার একটা অংশে নাকি ৭২% ঢাল আছে! এর মানে হল, আপনি ১০০ ফুট সামনে এগুলে (আনুভূমিক), আপনাকে ৭২ ফুট উপরে (উল্লম্ব) উঠতে হবে। আরও না কি আছে এক অত্যুচ্চ স্থান যেখান থেকে নাকি ৭টি রাজ্য দেখা যায়! সাথে আরও রয়েছে দৃষ্টিনন্দন মনোহর জলের ধারা।